শিরোনাম :

  • রাজধানীর উত্তরখানে আগুনে একই পরিবারের ৮ জন দগ্ধ ভারতে আঘাত হেনেছে ঘূর্ণিঝড় তিতলিবাবরসহ ১৯ জনের মৃত্যুদণ্ড, তারেকসহ ১৯ জনের যাবজ্জীবনরায়কে ঘিরে ঢাকায় ব্যাপক নিরাপত্তা ব্যবস্থা২১ আগস্ট গ্রেনেড হামলা মামলার রায় আজ
পদ্মা সেতুর ১৩তম স্প্যান বসছে ১৬ মে
শরীয়তপুর প্রতিনিধি :
১২ মে, ২০১৯ ১২:২৫:২১
প্রিন্টঅ-অ+


দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলের মানুষের স্বপ্নের পদ্মা সেতুর  ১৩তম স্প্যান বসছে ১৬ মে। ৩ বি নামের এ স্প্যানটি মাওয়া প্রান্তের ১৪ ও ১৫ নম্বর খুঁটির উপর বসানো হবে।

এখন শেষ সময়ের কাজ চলছে। স্প্যান প্রস্তুত করা হচ্ছে। খুঁটিও প্রায় প্রস্তুত। ১০ মে এ স্প্যান বসার কথা থাকলেও তা  পেছানো হয়েছে। সব ঠিক থাকলে ১৬ মে এটি মাওয়া প্রান্তে ১৪ ও ১৫ নম্বর খুঁটির উপর বসানো হবে।

এর সঙ্গে পদ্মা সেতু দৃশ্যমান হবে ১৯৫০ মিটার। এর আগে মাওয়া প্রান্তে আরো একটি অস্থায়ী স্প্যান বসানো হয়েছে। ৬ মে ৫ এফ নম্বর স্প্যানটি অস্থায়ী ভাবে মাওয়া ও জাজিরা প্রান্তের মাঝামাঝি ২০ ও ২১ নম্বর খুঁটিতে বসানো হয়েছে।

সেতু বিভাগের উপসহকারী প্রকৌশলী মো. হুমায়ুন কবীর জানান, স্প্যানটি ৩০-৩১ নম্বর খুঁটির জন্য তৈরি। কিন্তু খুটি দুটি এখনও সম্পূর্ণ না হওয়ায় এবং কনস্ট্রাকশন ইয়ার্ডে স্প্যান রাখার জায়গা সংকুলান না হওয়ায় এটি অস্থায়ী ভাবে ২০-২১ নম্বর খুঁটির উপর বসানো হয়।

৩০-৩১ নম্বর খুঁটি সম্পূর্ণ হওয়ার পর এটি সরিয়ে নেওয়া হবে। চলতি মে মাসে জাজিরা প্রান্তে আরো একটি অস্থায়ী স্প্যান বসানোর কথা রয়েছে।

স্প্যানটি ৩২-৩৩ নম্বর খুঁটির ওপর স্থায়ীভাবে বসানো হবে। কিন্তু ৩২ নম্বর খুঁটিটি পুরোপুরি সম্পূর্ণ না হওয়ার কারণে এটি ৩২ ও ৩৩ নম্বর খুঁটির কাছাকাছি কোনো অস্থায়ী খুঁটির উপর বসানো হবে।

পরে ৩২ নম্বর খুঁটি প্রস্তুত হলে এটি ৩২ ও ৩৩ নম্বর খুঁটির উপর স্থায়ীভাবে বসানো হবে। এ লক্ষ্যে এখন প্রস্তুতি চলছে।

কুমারভোগ কনস্ট্রাকশন ইয়ার্ডে জায়গা সংকুলান না হওয়ায় প্রস্তুত স্প্যানগুলো অস্থায়ীভাবে খুঁটির উপর বসানো হচ্ছে বলে জানান সংশ্লিষ্ট প্রকৌশলী। ইতোমধ্যে চীন থেকে আরো দুটি স্প্যান মাওয়ার পথে রওনা দিয়েছে। মাওয়া কুমারভোগ কনস্ট্রাকশন ইয়ার্ডে স্প্যান দুটি পৌঁছতে আরো ১০-১৫ দিন সময় লাগবে। চীন থেকে এ পর্যন্ত ২১টি স্প্যান এসেছে। আরো দুটি স্প্যান পথে রয়েছে।

এর মধ্যে ১২টি স্প্যান বসানো হয়েছে। এখনও ৯টি স্প্যান মাওয়া কুমারভোগ কনস্ট্রাকশন ইয়ার্ডে। পদ্মা সেতুতে স্প্যান বসবে ৪১টি । বাকি ১৮টি স্প্যানের অধিকাংশ চীন থেকে দেশে আসার প্রক্রিয়া চলছে।

পদ্মা সেতুর কাজ শেষ হলে দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলের সঙ্গে গোটা দেশের যোগাযোগব্যবস্থার ব্যাপক উন্নতি হবে। দেশের অর্থনীতিতে নতুনমাত্রা যোগ হবে। পদ্মা সেতুর দুই পাড়ে গড়ে উঠবে বিশ্বমানের শহর। কলকারখানায় ভরে উঠবে এ এলাকা। শ্রমজীবী মানুষের ব্যাপক কর্মসংস্থানের সুযোগ সৃষ্টি হবে।

সর্বক্ষেত্রে ব্যবসা-বাণিজ্যের ব্যাপক প্রসার ঘটবে বলে আশা করছেন পদ্মা পাড়ের মানুষ।

দোতলা এ সেতুর নিচতলায় চলবে ট্রেন। স্থাপন করা স্পেনগুলোয় এখন রেলের স্লাব বসানোর কাজ চলছে। জাজিরা প্রান্তের স্পেনগুলোয় ১২৮টি স্লাব বসানো হয়েছে। পুরো সেতুর দুই হাজার ৯৫৯টি স্লাব বসানো হবে। মাওয়া কনস্ট্রাকশন ইয়াডে স্পেন ও স্লাব বসানোর কাজ চলছে।



আমার বার্তা/১২ মে ২০১৯/জহির



 


আরো পড়ুন