শিরোনাম :

  • পুরান ঢাকায় অবাধে চলছে নিষিদ্ধ পলিথিন উৎপাদন কারণ ছাড়াই বেড়েছে ভোজ্যতেলের দাম ৭৫ হাজার ৫৯০ হজযাত্রী সৌদি আরব পৌঁছেছেনক্যারিবীয় দলে ফিরলেন নারিন-পোলার্ড আসিফের বিরুদ্ধে প্রতারণার মামলার তদন্ত প্রতিবেদন দাখিল ১১ সেপ্টেম্বর
থানচিতে আটকা পড়া পর্যটকরা ৫ দিন পরে ফিলল
বান্দরবান প্রতিনিধি :
১০ জুলাই, ২০১৯ ১১:৩৭:৫৬
প্রিন্টঅ-অ+


পাঁচ দিনের টানা বর্ষণে সাঙ্গু নদীর পানি বেড়ে বান্দরবানের থানচির দুর্গম এলাকায় আটকা পড়া ঢাকার ১৬ পর্যটক থানচি সদরে ফিরে এসেছেন।

থানচি থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) জোবাইরুল হক মঙ্গলবার রাত ১১টার দিকে জাগো নিউজকে এই তথ্য জানিয়েছেন।

তিনি আরও জানান, ভারী বর্ষণে সাঙ্গু নদীর পানি বৃদ্ধির কারণে নৌপথ বন্ধ থাকায় গত শনিবার থেকে দুটি গ্রুপের মোট ১৬ জন পর্যটক থানচির জিন্না পাড়ায় অবস্থান করছিলেন। মঙ্গলবার সন্ধ্যায় ঢাকার ওই পর্যটকরা নৌকায় থানচি সদরে চলে আসেন। পরে বান্দরবানের সদরের উদ্দেশে রওনা হন।

এছাড়া বিক্ষিপ্তভাবে আর কোনো পর্যটক আটকা নেই বলে আশা প্রকাশ করছেন ওসি।

স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, থানচির দুর্গম পর্যটন কেন্দ্র থেকে গত সোমবার সন্ধ্যায় পায়ে হেঁটে ৪ জন ফিরে আসলেও সাতভাই খুম থেকে ১৬ জনের দলটি পায়ে হেঁটে মঙ্গলবার সন্ধ্যায় থানচি সদরে পৌঁছে। তারা গত বুধবার থানচির জিন্নাহ পাড়া, আমিয়া খুম ও সাতভাই খুম ঘুরতে যান।

পর্যটকদের দলনেতা ওমর ফারুক বলেন, ভারী বর্ষণে অনেক কষ্ট হলে ও নিরাপদে থানচি সদরে পৌঁছাতে পেরেছি। দুর্যোগের মধ্যেও ফিরতে পারায় থানচির প্রশাসন, বিজিবি, পুলিশ, গাইডসহ সবাইকে ধন্যবাদ জানান তিনি।

প্রসঙ্গত, বান্দরবানের থানচি ও রুমায় সাঙ্গু নদীতে পানি বৃদ্ধির কারণে নৌ পথে যাতায়াত ঝুঁকিপূর্ণ হওয়ার কারণে গত শুক্রবার থেকে সেখানকার পর্যটন কেন্দ্রগুলোতে ভ্রমণ পিপাষুদের যাতায়াতে নিরুৎসাহিত করছে উপজেলা প্রশাসন।



আমার বার্তা/ ১০ জুলাই ২০১৯/রিফাত


আরো পড়ুন