শিরোনাম :

  • নয়াপল্টনে বিএনপির নেতাকর্মীদের সঙ্গে পুলিশের সংঘর্ষ জবানবন্দিতে বুলুসহ ১৫ বিএনপি নেতার নাম পেয়েছে পুলিশ সেনা অভ্যুত্থানবিরোধী বিক্ষোভে উত্তাল সুদান, সংঘর্ষে নিহত ৭দুই ট্রাকের মুখোমুখি সংঘর্ষ, নিহত ২
ট্যুরিস্ট পুলিশ নেই প্রাচীন ঐতিহ্যের গৌড় নগরীতে
১৪ ডিসেম্বর, ২০২১ ১৮:৫৮:৫৬
প্রিন্টঅ-অ+

নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছেন চাঁপাইনবাবগঞ্জের শিবগঞ্জে প্রাচীন ঐতিহ্য গৌড় নগরীতে বেড়াতে আসা পর্যটকরা। সীমান্তবর্তী স্থাপনাগুলোতে সোনামসজিদ স্থলবন্দরে ইমিগ্রেশন পুলিশ ও বর্ডার গার্ড বাংলাদেশ (বিজিবি) দায়িত্ব পালন করলেও দর্শনার্থীদের নিরাপত্তায় কেউ নেই। সেখানকার পর্যটকরা ওই অঞ্চলের নিরাপত্তার ট্যুরিস্ট পুলিশ মোতায়েনের দাবি জানান।


স্থানীয়রা জানান, ১৪৯৪-১৫১৯ খ্রিস্টাব্দ পর্যন্ত সুলতান আলাউদ্দিন শাহ এ অঞ্চলে শাসন করেছিলেন। ওই সময়ে নির্মিত ছোট সোনামসজিদসহ আশেপাশের স্থাপনাগুলো গড়ে ওঠে। উপজেলার সীমান্ত এলাকায় ছড়িয়ে-ছিটিয়ে আছে মোঘল আমলের নানান স্থাপনা। প্রাচীন বাংলার রাজধানী খ্যাত গৌড় নগরীর ঐতিহাসিক ছোট সোনামসজিদ, দারাসবাড়ি মাদরাসা, চামচিকা মসজিদ, শাহনেয়ামতুল্লাহর মাজারসহ বিভিন্ন স্থাপনা দেখতে প্রতিদিন ভিড় করেন দর্শনার্থীরা। কিন্তু প্রত্নতাত্ত্বিক এসব স্থাপনা ঘুরে দেখার সময় নিরাপত্তাহীনতায় ভোগেন দর্শনার্থীরা।


ঢাকার গাজীপুর থেকে বেড়াতে আসা রহিমা আক্তার জানান, সোনামসজিদ দেখতে এসে ভয়ে ভয়ে থাকি। এখানকার দর্শনার্থীদের জন্য নিরাপত্তা ব্যবস্থা থাকা উচিত। দর্শনীয় এসব স্থানগুলোতে যদি নিরাপত্তা নিশ্চিত করা যায় তাহলে দর্শনার্থীদের আগ্রহ বাড়বে।


আতাউর রহমান নামে যশোর থেকে আসা এক পর্যটক বলেন, পর্যাপ্ত নিরাপত্তা ব্যবস্থা থাকলে দর্শনার্থীরা নিরাপদ মনে করবে। ট্যুরিস্ট পুলিশ থাকা দরকার এখানে।


এ বিষয়ে জানতে চাইলে চাঁপাইনবাবঞ্জের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মাহবুব আলম খান জানান, সোনামসজিদ এলাকায় আলাদা একটি থানা স্থাপনের জন্য প্রস্তাব পাঠানো হয়েছে। এটি বাস্তবায়ন হলে দর্শনার্থীসহ ওই এলাকায় নিরাপত্তা আরও জোরদার করা যাবে।

আরো পড়ুন