শিরোনাম :

  • ৩০ হাজার ৩৫৪ জন হাজি দেশে ফিরেছেন মক্কায় আরও এক বাংলাদেশি হাজির মুত্যু এবার হজ করেছেন ২৪ লাখ ৮৯ হাজার ৪০৬ মুসল্লি মোজাফফর আহমদের প্রতি শ্রদ্ধা জানাবেন প্রধানমন্ত্রী ইশান্তের তোপে দিশেহারা ক্যারিবীয়রা
তারেক-ফখরুলসহ ছয়জনের বিরুদ্ধে মামলার আবেদন
নিজস্ব প্রতিবেদক :
০৫ মে, ২০১৯ ১৩:২৫:২০
প্রিন্টঅ-অ+


বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমান, দলটির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরসহ ছয়জনের বিরুদ্ধে মামলা দায়েরের আবেদন করেছেন বাংলাদেশ জননেত্রী পরিষদের সভাপতি এ বি সিদ্দিকী। পাঞ্জাবি ছিঁড়ে ফেলা ও মুজিব কোট খুলে নেওয়ার অভিযোগে মামলা দায়েরের আবেদন করেছেন তিনি।

রোববার ঢাকা মহানগর হাকিম আবু সুফিয়ান মো. নোমানের আদালতে শুনানি হবে।

মামলায় বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য খন্দকার মোশাররফ হোসেন, আমীর খসরু মাহমুদ চৌধুরী, গয়েশ্বর চন্দ্র রায় এবং যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভীসহ অজ্ঞাত আরো পাঁচজনকে আসামি করা হয়েছে।

বাদীর অভিযোগ, তিনি গত ৩০ এপ্রিল খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে করা একটি মানহানির মামলার হাজিরা দিতে সকাল ৭টায় রামপুরা থেকে বাসে করে রওনা হন। সকাল ৮টার দিকে তাঁতীবাজার মোড়ে নেমে হেঁটে আদালতের দিকে রওনা হন। তার পেছনে থাকা পাঁচজন বিএনপির কর্মী তার পাঞ্জাবি ধরে টেনে গতি রোধ করে এবং তা ছিঁড়ে ফেলে। তাকে (এ বি সিদ্দিকী) বলে, তোকে পেয়েছি আর ছাড়া যাবে না। কারণ, তুই আমাদের মা ও আমাদের নেত্রী বেগম খালেদা জিয়া এবং বিএনপির নেতাদের বিরুদ্ধে অনেকগুলি মামলা করেছিস। তোর একাধিক মামলায় গ্রেপ্তারি পরোয়ানা থাকায় আমাদের মা মুক্তি পাচ্ছে না। তাই তোকে আজ খুন করব। কারণ, আমাদের বিএনপির তারেক রহমানের নির্দেশে ঊর্ধ্বতন নেতাদের হুকুমে তোকে প্রস্তাব দিচ্ছি, এক মাসের মধ্যে মামলা তুলে নিবি। তা না করলে তোর পরিণতি ভয়ঙ্কর হবে। এক মাসের জন্য তোকে মুক্ত করে দিলাম। যদি স্বেচ্ছায় মামলা তুলে না নিস তাহলে তোকে মরতে হবে। তোকে তোর সরকারও আমাদের হাত থেকে আর বাঁচাতে পারবে না। তোকে নুসরাতের মতো জ্বলন্ত আগুনে পুড়িয়ে মারব। যদি বাঁচতে চাস, কথাটি মনে রাখিস। আর যদি মামলা প্রত্যাহার না করিস তাহলে তোকে এমনভাবে খুন করব পৃথিবীর কেউ তোকে বাঁচাতে পারবে না। এসব কথা বলে দুর্বৃত্তরা তার মুজিব কোট খুলে নিয়ে যায় এবং বলে, তোর বাবার মার্কা মুজিব কোট খুলে নিয়ে গেলাম। শেখ মুজিবের জুলুমবাজ মুজিব কোট আর আমরা দেখতে চাই না। এই বলে আমার পকেটে থাকা ২ হাজার ২০০ টাকা ছিনিয়ে নিয়ে আমাকে বলে, কোন চিল্লাফাল্লা করবি না, এদিক-ওদিক দেখবি না, সোজা আদালতের দিকে চলে যা। আমরা যা বলেছি, এই শর্ত ভঙ্গ করবি না। না হলে তোকে জাহান্নামে যেতে হবে, এটা যেন মনে থাকে।’

এ বি সিদ্দিকী আসামিদের বিরুদ্ধে আনা অভিযোগ আমলে গ্রহণ করে গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারি করে আসামিদের আটক করে জেল হাজতে আটক রাখার আবেদন করেন।

 



আমার বার্তা/০৫ মে ২০১৯/জহির


আরো পড়ুন