শিরোনাম :

  • রিজেন্ট হাসপাতালের চেয়ারম্যান সাহেদকে গ্রেফতার করেছে র‍্যাব সাহেদকে ঢাকায় আনা হয়েছে পাঠাওয়ের সহ-প্রতিষ্ঠাতা ফাহিম সালেহ নিউইয়র্কে খুন আফগানিস্তান থেকে আরও সেনা প্রত্যাহার করল যুক্তরাষ্ট্র
দণ্ডিত শিশুরা মুক্তি পেল কিনা জানতে চেয়েছেন হাইকোর্ট
নিজস্ব প্রতিবেদক :
১১ নভেম্বর, ২০১৯ ১৪:০২:৫৫
প্রিন্টঅ-অ+


ভ্রাম্যমাণ আদালতে দণ্ডপ্রাপ্ত শিশুদের মুক্তি ও জামিনের বিষয়ে হাইকোর্টের আদেশসংক্রান্ত কপি সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের কাছে পৌঁছাল কিনা, তা জানতে চেয়েছেন হাইকোর্ট। শিশুরা মুক্তি পাচ্ছেন কিনা তাও জানতে চেয়েছেন আদালত।

এ বিষয়ে সুপ্রিম কোর্টের রেজিস্ট্রার জেনারেলের দফতরে খোঁজ নিয়ে সংশ্লিষ্ট বেঞ্চের কর্মকর্তাকে হাইকোর্টকে জানানোর জন্য বলা হয়েছে। সোমবার হাইকোর্টের বিচারপতি শেখ হাসান আরিফ ও বিচারপতি রাজিক আল জলিলের সমন্বয়ে গঠিত বেঞ্চ এই আদেশ দেন।

‘আইনে মানা, তবু ১২১ শিশুর দণ্ড’ শিরোনামে গত ৩১ অক্টোবর জাতীয় দৈনিকে একটি প্রতিবেদন প্রকাশ পায়। প্রকাশিত প্রতিবেদন ওই দিনই আদালতের নজরে আনেন চিলড্রেন’স চ্যারিটি বাংলাদেশ ফাউন্ডেশন (সিসিবি ফাউন্ডেশন) চেয়ারম্যান ও সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী আবদুল হালিম।

পরে ভ্রাম্যমাণ আদালতে দণ্ডিত গাজীপুরের টঙ্গী ও যশোরের পুলেরহাটের কিশোর উন্নয়ন কেন্দ্রে থাকা ১২ বছরের কম বয়সী শিশুদের অবিলম্বে মুক্তি দিতে নির্দেশ দেন হাইকোর্ট। টঙ্গী ও যশোর কিশোর উন্নয়ন কেন্দ্রের তত্ত্বাবধায়কদের প্রতি এই নির্দেশ দেয়া হয়।

একইসঙ্গে ভ্রাম্যমাণ আদালতের মাধ্যমে দণ্ডিত হয়ে শিশু উন্নয়ন কেন্দ্রে থাকা ১২ থেকে ১৮ বছর পর্যন্ত বয়সী শিশুদের ছয় মাসের জামিন দেন হাইকোর্ট। এছাড়া সাজাপ্রাপ্ত শিশুদের প্রত্যেকের জন্য সাজার আদেশসম্বলিত নথি আলাদাভাবে তৈরি করে তা সাত কার্যদিবসের মধ্যে হাইকোর্টে পাঠাতে সংশ্লিষ্ট ম্যাজিস্ট্রেট ও বিবাদীদের প্রতি নির্দেশ দেয়া হয়।

তারই ধারাবাহিকতায় সোমবার নির্ধারিত দিন সকালে হাইকোর্টের সংশ্লিষ্ট বেঞ্চের কার্যক্রম শুরু হলে আদালত আইনজীবী আবদুল হালিমের কাছে শিশুদের মুক্তি ও জামিন সংক্রান্ত আদেশের অগ্রগতি সম্পর্কে জানতে চান।

এ পর্যায়ে হাইকোর্ট বলেন, আদালতের আদেশ পৌঁছেনি। অবশ্যই যেন পৌঁছে। যতদূর শুনেছি, ডেসপাস পর্যন্ত গেছে। আদালত সংশ্লিষ্ট বেঞ্চ কর্মকর্তাকে ডেকে এ বিষয়ে খোঁজ নিতে বলেন। আদালত বলেন, আজ বেলা ২টার মধ্যে অবশ্যই যেন আদেশ তাদের কাছে যায়।



আমার বার্তা/১১ নভেম্বর ২০১৯/জহির


আরো পড়ুন