শিরোনাম :

  • রাজধানীর উত্তরখানে আগুনে একই পরিবারের ৮ জন দগ্ধ ভারতে আঘাত হেনেছে ঘূর্ণিঝড় তিতলিবাবরসহ ১৯ জনের মৃত্যুদণ্ড, তারেকসহ ১৯ জনের যাবজ্জীবনরায়কে ঘিরে ঢাকায় ব্যাপক নিরাপত্তা ব্যবস্থা২১ আগস্ট গ্রেনেড হামলা মামলার রায় আজ
মৈত্রী হলের প্রাধ্যক্ষকে অব্যাহতি
নিজস্ব প্রতিবেদক :
১১ মার্চ, ২০১৯ ১০:৪০:৪৮
প্রিন্টঅ-অ+


ছাত্রলীগ প্যানেলের প্রার্থীদের পক্ষে সিল মারা এক বস্তা ব্যালট পেপার উদ্ধার হওয়ার ঘটনায় ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় (ঢাবি) বাংলাদেশ কুয়েত মৈত্রী হলের প্রাধ্যক্ষ শবনম জাহানকে অব্যাহতি দেয়া হয়েছে। নতুন প্রাধ্যক্ষ করা হয়েছে ডিজাস্টার ম্যানেজমেন্ট ইনস্টিটিউটের পরিচালক অধ্যাপক মাহবুবা নাসরীনকে।

এছাড়া বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রো-ভাইস চ্যান্সেলর (প্রশাসন ) অধ্যাপক ড. মুহাম্মদ সামাদকে আহ্বায়ক করে চার সদস্যবিশিষ্ট একটি তথ্যানুসন্ধান কমিটি গঠন করা হয়েছে।

বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন বিশ্বিবিদ্যালয়ের সহকারী প্রক্টর আব্দুর রহিম।

বস্তাভর্তি ব্যালট পেপার উদ্ধারের ঘটনায় প্রাধ্যক্ষ শবনম জাহানের পদত্যাগ দাবিতে ছাত্রীরা আন্দোলনে নামেন। হলে তাকে অবরুদ্ধ করে রাখেন শিক্ষার্থীরা। এ হলকেন্দ্রে ভোটগ্রহণ স্থগিত করা হয়েছে। অবশ্য সকাল ৮টায় ডাকসু ও হল সংসদ নির্বাচন শুরু হওয়ার কথা থাকলেও ছাত্রীদের প্রতিবাদের মুখে এ হলে ভোটগ্রহণ শুরুই করা যায়নি।

ভোট স্থগিতের বিষয়টি নিশ্চিত করেন প্রো ভিসি (প্রসাশন) অধ্যাপক ড. মু. সামাদ।

ডাকসু নির্বাচনের প্রধান রিটার্নিং কর্মকর্তা অধ্যাপক ড. এসএম মাহফুজুর রহমান জানান, বিষয়টি আমরা পর্যবেক্ষণ করছি। আপাতত ভোট স্থগিত রাখা হয়েছে।

বাংলাদেশ কুয়েত মৈত্রী হলের মনোয়ারা বিল্ডিংয়ে ভোটের সব আয়োজন করা হয়েছে। তারপাশে অডিটোরিয়াম ও রিডিং রুম। সকাল থেকেই সেখানে দাবি ছিল- অন্যান্য হলে যখন ব্যালট পেপারে দেখিয়ে ঢুকানো হয়েছে আমাদের হলে কখন কোথায় ব্যালট ঢুকানো হলো দেখতে চাই।

স্বতন্ত্র ভিপি প্রার্থী নুরুন্নাহার পলি অভিযোগ করেন, একটা হলে এক বস্তা ব্যালট পেপার পাওয়া যায়...ভোটের আগেই যেখানে কি না আগে থেকে সিল মারা হয়েছে। এ বিষয়টা আমরা প্রক্টরকে জানিয়েছি। হল প্রভোস্টকে জানিয়েছি... তারা ব্যবস্থা নেয়নি। যখন আমরা ব্যালটসহ মিডিয়ার সামনে উপস্থাপন করেছি.. তখন তারা ভোট স্থগিত করেছে। ভোট স্থগিত করবে কী, তারা ভোট শুরুই করতে পারেনি।

হল প্রশাসনের যোগসাজশে ছাত্রলীগ প্যানেল এ কাজ করেছে বলেও অভিযোগ তার।



আমার বার্তা/১১ মার্চ ২০১৯/জহির


আরো পড়ুন