শিরোনাম :

  • বিদ্যুৎ স্বাভাবিক হতে সময় লাগবে ‘৮ থেকে ১০ ঘণ্টা’ ঢাকায় বিদ্যুৎ স্বাভাবিক ‘রাত ৮টার মধ্যে, চট্টগ্রামে ৯টায়’দুই ট্রাকের মুখোমুখি সংঘর্ষ, নিহত ২ আইসিসির সেরা হওয়ার দৌড়ে বাংলাদেশের নাসুমআফগান ক্রিকেট বোর্ডের সিইওকে বিদায় দিল তালেবান
গ্রিন ইউনিভার্সিটির সাংবাদিকতা বিভাগের নবীন বরণ
আশিক মাহমুদ:
১০ আগস্ট, ২০২২ ১৯:৩৬:৫২
প্রিন্টঅ-অ+

গ্রিন ইউনিভার্সিটি অব বাংলাদেশ (জিইউবি)  ক্যাম্পাসে অনুষ্ঠিত হলো সাংবাদিকতা ও গণযোগাযোগ(জেএমসি) বিভাগের নতুন শিক্ষার্থীদের ওরিয়েন্টেশন প্রোগ্রাম (নবীন বরণ)। আজ বুধবার সকাল ১০ টায় শিক্ষা জীবনের অতিব গুরুত্বপূর্ণ মাধ্যমিক ও উচ্চমাধ্যমিক পর্যায় শেষে উচ্চশিক্ষার প্রারম্ভে বিশ্ববিদ্যালয় পর্যায়ে পরিচিতি অনুষ্ঠানে অংশ নেয় নবীন শিক্ষার্থীরা। এসময় জমকালো আয়োজন ও অনুষ্ঠানের মধ্য দিয়ে নবীনদের ফুল দিয়ে বরণ করে নেওয়া হয় বিশ্ববিদ্যালয়ের জেএমসি বিভাগের পক্ষ থেকে। ফুল ও ক্রেস্ট দিয়ে বরণ করে নেওয়া হয় অনুষ্ঠানে আগত অতিথিদের।


জেএমসি বিভাগের চেয়ারপার্সন প্রফেসর ড. শেখ মোহাম্মদ শফিউল ইসলামের সভাপতিত্বে নবীনবরণ এই অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন গ্রিন ইউনিভার্সিটি অব বাংলাদেশ'র উপাচার্য প্রফেসর ড. মোহাম্মদ গোলাম সামদানী ফকির। বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন অত্র প্রতিষ্ঠানের উপদেষ্টামণ্ডলীর সদস্য প্রফেসর ড. মো: আব্দুর রাজ্জাক। 


প্রধান অতিথির বক্তব্যে নবাগতদের উদ্দেশ্যে  গোলাম সামদানি ফকির বলেন, ' একজন সাংবাদিক হলো সমাজের দর্পন। আর গণমাধ্যম হলো একটি দেশের চতুর্থ স্তম্ভ। আপনারা যারা এই গণমাধ্যম শাখায় এসেছেন তাদের জন্য শুভ কামনা। আমাদের সকল ধরনের সুযোগ সুবিধা ব্যবহার করে, ল্যাব ব্যবহার করে সঠিক শিক্ষাগ্রহণ করে গ্রাজুয়েশন শেষে সারাবিশ্বে ছড়িয়ে ছিটিয়ে বিশ্বকে নতুন পথে নিয়ে যাওয়ায় অবদান রাখবে এই কামনা ব্যক্ত করেন তিনি।


নবীন বরণ অনুষ্ঠানের সভাপতি শেখ মোহাম্মদ শফিউল ইসলামের স্বাগত বক্তব্যের মাধ্যমে অনুষ্ঠানটি শুরু হয়। উপস্থিত সকল শিক্ষার্থী ও অভিভাবকদের উদ্দেশ্যে শফিউল ইসলাম বলেন, 'একজন সাংবাদিক হিসেবে সত্যিকার অর্থে দেশকে তুমি কি দিলে সেটিই প্রশ্ন, দেশ তোমাকে কি দিল বা সমাজ তোমাকে কি দিলো সেটি প্রশ্ন নয়। অতএব তোমরা নিজেদের এভাবেই তৈরী করো। আমাদের যথেষ্ট সুযোগ সুবিধা রয়েছে।'


এছাড়াও তিনি ভারতীয় এক জনপ্রিয় সংগীত শিল্পীর একটি গজলের দুটি লাইন উল্লেখ করে শিক্ষার্থীদের অনুপ্রেরণা যোগিয়ে বলেন, 'তোমরা যে পথ দিয়ে যাবে, সে পথ যেন আলোকিত হয়। সে পথকে আলোকিত করতে হবে। আর তোমরা যেখানে যাবে তারা তোমাকে পেয়ে ধন্য হবে। তুমি তাদের/চাকরি পেয়ে ধন্য হয়ো না।'


জেএমসি'র শিক্ষার্থীদের সঞ্চালনায়  অনুষ্ঠানে 'কর্পোরেট কমিউনিকেশন' বিষয়ে বক্তব্য রাখেন নগদের গণযোগাযোগের প্রধান মোহাম্মদ জাহিদুল ইসলাম এবং 'মাল্টিমিডিয়া জার্নালিজম' বিষয়ের উপর  বক্তব্য রাখেন চ্যানেল আই অনলাইনের ইনপুট এডিটর ফাহমিদা আক্তার। এছাড়াও অনুষ্ঠানে আরও বক্তব্য রাখেন অত্র প্রতিষ্ঠানের জেএমসি'র সিনিয়র শিক্ষক ড. অলিউর রহমান, ড. মোহাম্মদ আফজাল হোসাইন খান, লেকচারার মোহাম্মদ শরিফ উদ্দিন ও এসিস্ট্যান্ট প্রফেসর মুনিরা শরমিন প্রমুখ। 


এসময় সিনিয়র শিক্ষক, অন্যান্য বিভাগীয় প্রধান এবং ঊর্ধ্বতন কমকর্তাসহ অভিভাবকগণ উপস্থিত ছিলেন। অনুষ্ঠানের শেষ ভাগে বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের অংশগ্রহনে অনুষ্ঠিত হয় বিশেষ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান। জমকালো এই সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের মধ্য দিয়ে সমাপ্তি হয় ফল ২০২২ এর নবীন বরণ।

আরো পড়ুন