শিরোনাম :

  • ডি মারিয়া উড়িয়ে দিলেন রিয়ালকে তিন সপ্তাহ পরিকল্পনা, অতঃপর অভিযানের গ্রিন সিগন্যাল কোহলির ব্যাটে সহজ জয় ভারতের বিএনপি নেতা শামসুজ্জামান দুদুর বাড়িতে হামলা জাবি উপাচার্যকে পদত্যাগের জন্য আল্টেমেটাম
গায়িকা মিলাকে গ্রেফতারের দাবিতে মানববন্ধন
বিনোদন ডেস্ক :
১২ জুন, ২০১৯ ১২:২৭:০১
প্রিন্টঅ-অ+


মিলা ও তার সহকারী পিটার কিমের গ্রেফতারের দাবিতে জাতীয় প্রেস ক্লাবের সামনে মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়েছে। বুধবার (১২ জুন) মিলার সাবেক স্বামী বৈমানিক এস এম পারভেজ সানজারি পক্ষে তার ভাই ও এইড ফর মেন নামের একটি সংগঠন এ মানববন্ধনের আয়োজন করে।

গত ৫ জুন সানজারির ওপর এসিড হামলা চালিয়ে হত্যাচেষ্টার অভিযোগ এনে গায়িকা মিলার বিরুদ্ধে একটি মামলা দায়ের করেন পারভেজে সানজারির বাবা এস এম নাসির উদ্দিন। উত্তরা পশ্চিম থানায় মামলাটি (নম্বর-৫) দায়ের করা হয়। সেই মামলার এজাহারে মিলা এবং তার সহকারী পিটার কিমকে অভিযুক্ত করা হয়।

বুধবার সকাল ১০টায় সেই মামলায় অভিযুক্ত মিলা ও তার সহযোগী পিটারকে গ্রেফতারের দাবি জানিয়ে মানববন্ধন করেন সানজারির ভাই ও এইড ফর মেন নামের একটি সংগঠন।

মানববন্ধনের সভাপতিত্ব করেন এইড ফর মেন সংগঠনের আহ্বায়ক ড. আব্দুর রাজ্জন। এছাড়া মানববন্ধনে সানজারির ভাই অ্যাডভোকেট আলামিন খান, এইড ফর মেন-এর আইন উপদেষ্টা অ্যাডভোকেট কাউসার হোসাইন প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

সানজারির ভাই আলামিন খান বলেন, ‘পরিকল্পিতভাবে কণ্ঠশিল্পী মিলার নির্দেশে আমার ভাইয়ের ওপর অ্যাসিড ছুঁড়েছে তার সহকারী কিম। তার হাত ও শরীরের বিভিন্ন অংশ পুড়ে গেছে। আমার ভাইকে হত্যার চেষ্টা করা হয়েছে। এখনো নিয়মিত হুমকি দিয়ে আসছে মিলার লোকজন। তাদের বিচারের দাবিতে আমরা রাস্তায় নেমেছি।’

এইড ফর মেন সংগঠনটির যুগ্ম আহ্বায়ক সাইফুল ইসলাম নাদিম বলেন, ‘হামলার ১০ দিন পার হলেও এখন পর্যন্ত কাউকে গ্রেফতার করা হয়নি। যা চরম হতাশাজনক। পারভেজ সানজারি শুধুমাত্র পুরুষ হওয়ার কারণে সুষ্ঠ বিচার পাচ্ছেন না।’

এখনো পুরোপুরি সুস্থ না হওয়ায় মানববন্ধনে উপস্থিত হতে পারেননি সানজারি। মুঠোফোনে তিনি বলেন, ‘আমার ওপর যারা হামলা করেছে তাদের বিচার চাই। ন্যায় বিচারের দাবিতে আমার ভাইয়েরা রাস্তায় দাঁড়িয়েছে। অবিলম্বেই যেন তাদের গ্রেফতার করে বিচারের আওতায় নেওয়া হয়।’

সানজারি আরও বলেন, ‘গত ২ জুন সন্ধ্যার দিকে মোটরসাইকেলযোগে যাওয়ার সময় পথে মিলার সহকারী কিমের সঙ্গে দেখা হয় আমার। তাকে পাশ কাটিয়ে চলে যেতে চাইলে হঠাৎ একটি বোতল থেকে আমার দিকে কিছু ছুঁড়ে মারা হয়। এতে আমার পা, কাঁধ ও হাতের বেশ কিছু জায়গা ঝলসে যায়। পরে আমাকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়।

এর আগেও গত ২১ এপ্রিল আদালতে মিলার বিরুদ্ধে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে একটি মামলা দায়ের করেন পারভেজ সানজারি।



আমার বার্তা/১২ জুন ২০১৯/জহির


আরো পড়ুন