শিরোনাম :

  • রাজধানীর উত্তরখানে আগুনে একই পরিবারের ৮ জন দগ্ধ ভারতে আঘাত হেনেছে ঘূর্ণিঝড় তিতলিবাবরসহ ১৯ জনের মৃত্যুদণ্ড, তারেকসহ ১৯ জনের যাবজ্জীবনরায়কে ঘিরে ঢাকায় ব্যাপক নিরাপত্তা ব্যবস্থা২১ আগস্ট গ্রেনেড হামলা মামলার রায় আজ
পিঠ ব্যথার যে ৮ লক্ষণ বিপজ্জনক
আমার বার্তা ডেস্ক :
০৯ অক্টোবর, ২০১৮ ১২:৩১:২৯
প্রিন্টঅ-অ+


অ্যাসপিরিন সেবন শুরু করা এবং পিঠ ব্যথাকে উপেক্ষা করার পূর্বে কিছু বিষয় বিবেচনা করা দরকার। এ প্রতিবেদনে পিঠ ব্যথার ৮টি লক্ষণ দেওয়া হলো, যা লক্ষ্য করলে আপনার জরুরি চিকিৎসার প্রয়োজন হবে।

* সম্প্রতি আপনার পিঠে ইনজুরি হয়েছে : আপনি যেভাবেই সরাসরি পিঠে আঘাত পান না কেন (যেমন- পড়ে যাওয়া, গাড়ি দুর্ঘটনা ঘটা, কোনোকিছু আপনার পিঠে আঘাত করা), দ্রুত কোনো বিশেষজ্ঞকে দেখানো উচিত। ইমার্জেন্স রুম ফিজিশিয়ান ডা. ট্রয় ম্যাডিসন বলেন, ‘আপনার খুব সম্ভবত স্পাইনাল ইনজুরি হতে পারে। এটি খুব মারাত্মক।’ ডা. ম্যাডিসন হাসপাতালের জরুরি বিভাগে যেতে পরামর্শ দিচ্ছেন। ইনজুরি মূল্যায়ন করার জন্য আপনার এক্স-রে অথবা সিটি স্ক্যান প্রয়োজন হবে।

* আপনি ওজন হারাচ্ছেন : দ্রুত, অপ্রত্যাশিত ওজন হ্রাস কখনোই ভালো লক্ষণ নয়। এর সঙ্গে পিঠ ব্যথা থাকলে, এটি মেরুদণ্ডে টিউমারের একটি লক্ষণ হতে পারে। ক্রিস্টোফার কেলি এবং মার্ক এইজেনবার্গ তাদের প্রকাশিতব্য বই ‘অ্যাম আই ডাইং?’-এ লিখেন, ‘কোনো টিউমার কশেরুকাকে দুর্বল করতে পারে, যা ফ্র্যাকচার ও ব্যথা সৃষ্টি করতে পারে এবং এটি স্পাইনাল কর্ড ও তার শাখাকে চাপ দিতে পারে- যার ফলে দুর্বলতা, ইনকন্টিনেন্স ও অন্যান্য অনেক রোগের সৃষ্টি হতে পারে। যদি আপনার ক্যানসারের পারিবারিক ইতিহাস থাকে অথবা যদি আপনি অতি ধূমপায়ী হন, তাহলে যত দ্রুত সম্ভব চিকিৎসক দ্বারা মূল্যায়ন করুন। কিছু টিউমার মেরুদণ্ডে শুরু হয়, কিন্তু তারা সেখান থেকে অন্যান্য স্থানে ছড়িয়ে পড়তে পারে, যেমন- ফুসফুস, স্তন, কিডনি ও প্রোস্টেট ক্যানসার। এ কারণে যত দ্রুত সম্ভব চিকিৎসকের শরণাপন্ন হওয়া উচিত।

* আপনি প্রস্রাব নিয়ন্ত্রণে রাখতে পারেন না : পিঠ ব্যথার সঙ্গে ব্লাডার বা বাওয়েল ইনকন্টিনেন্স থাকতে পারে অথবা বর্ধিত দুর্বলতা কিংবা পা, পেলভিস ও নিতম্বে অসাড়তা থাকতে পারে, যা মারাত্মক হতে পারে। ওয়েস্টচেস্টার হেলথের মেডিক্যাল চিকিৎসক সৈয়দ এস. রহমান বলেন, ‘এসব উপসর্গ কাউডি ইকুইনা সিন্ড্রোমের লক্ষণ হতে পারে, যা সাধারণত নিম্নস্থ মেরুদণ্ডে সম্পূর্ণ নার্ভ স্যাকের তীব্র চাপে হয়ে থাকে।’ এর জন্য প্রায়ক্ষেত্রে কোনো ইনফেকশন বা টিউমার দায়ী হয়ে থাকে।

* আপনার ব্যথা আপনাকে রাতে জাগিয়ে তোলে : অনেক ক্ষেত্রে অতিব্যবহার বা ক্ষয় জনিত পিঠ ব্যথা তুলনামূলক ভালো হয় যখন আপনি বিশ্রাম নেন। কিন্তু যদি আপনি প্রতিনিয়ত পিঠের ব্যথার কারণে ঘুম থেকে জেগে ওঠেন, তাহলে কম মারাত্মক কিছুর লক্ষণ হতে পারে, যেমন- বিনাইন টিউমার। যদি আপনার ব্যথার সঙ্গে ক্ষুধা হ্রাস, জ্বর অথবা দুর্বলতা বা অসাড়তা থাকে, তাহলে এখনই চিকিৎসক দ্বারা মূল্যায়ন করুন।

* আপনার পাকস্থলী ব্যথাও আছে : সাধারণ পিঠ ব্যথা বিরল ক্ষেত্রে পাকস্থলীতে মাইগ্রেট করতে পারে। কিন্তু পাকস্থলীর ব্যথা প্রায়সময় পিঠে অনুভূত হতে পারে, যার মানে হচ্ছে আপনার পিঠ ব্যথার উৎপত্তি হয়েছে পেট থেকে। পেটের একটি মারাত্মক কন্ডিশন হচ্ছে, অ্যাবডোমিনাল অ্যাওরটিক অ্যানিউরিজম। তীব্র নিম্নস্থ পিঠ ব্যথা হতে পারে পেটে বর্ধিত মহাধমনীর (অ্যাওরটা) একটি উপসর্গ, যাকে অ্যাবডোমিনাল অ্যাওরটিক অ্যানিউরিজম বলে, বলেন ডা. রহমান। যদি আপনার ব্যথা তীব্র ও প্রতিনিয়ত হয়, তাহলে হাসপাতালে যান।

* আপনার পিঠে স্প্যাজম ও পেলভিকে ব্যথা আছে : যদি আপনার পিঠ ব্যথা প্রতিনিয়ত না হয় এবং এর পরিবর্তে স্প্যাজম হয়, তাহলে সম্ভবত আপনার কিডনিতে পাথর হয়েছে। যদি এমনটা ঘটে, তাহলে আপনার প্রস্রাবের সঙ্গে কিছু রক্তও লক্ষ্য করতে পারেন। হাসপাতালে যান এবং রোগ নির্ণয় করুন ও এর চিকিৎসা  করুন। এই পাথর অপসারণ করার জন্য আপনাকে আইভি দেওয়া হতে পারে।

* আপনার অস্টিওপোরোসিস আছে : যদি আপনি জানেন যে আপনার অস্টিওপোরোসিস আছে এবং যদি হঠাৎ আপনার পিঠ ব্যথা আসে, তাহলে সম্ভবত আপনার কশেরুকাতে ফ্র্যাকচার হয়েছে। কমন কারণের মধ্যে সম্প্রতি পড়ে যাওয়া, ভারী কিছু উত্তোলন করা অথবা এমনকি শক্তিশালী কাশি অন্তর্ভুক্ত। এই ব্যথা নিজে নিজে চলে যায়, কিন্তু যদি না যায়, তাহলে চিকিৎসককে দেখানোর প্রয়োজন হবে। আপনার ভারটিব্রোপ্লাস্টি নামক প্রসিডিউর প্রয়োজন হতে পারে, যেখানে কশেরুকাকে মজবুত করার জন্য সিমেন্ট ইনজেক্ট করা হয়।

* আপনার অসাড়তা আছে : স্পাইনাল কর্ড ড্যামেজ স্থায়ী প্যারালাইসিসের কারণ হতে পারে। এ কারণে আপনার পিঠ ব্যথা ও অসাড়তা (বিশেষ করে পায়ে) থাকলে হাসপাতালে যান। ফ্রন্টলাইন ইআর ডটকম অনুসারে, এই কন্ডিশন প্রায়সময় এক বা একাধিক লুম্বার নার্ভের ইনজুরির ইঙ্গিত দিতে পারে। এসব গুরুত্বপূর্ণ নার্ভের ইনজুরি সম্পূর্ণ প্যারালাইসিস সৃষ্টি করতে পারে, যদি সঠিক সময়ে উপযুক্ত পদক্ষেপ না নেন। যত দ্রুত সম্ভব হাসপাতালে যান।



আমার বার্তা/০৯ অক্টোবর ২০১৮/জহির

 


আরো পড়ুন