শিরোনাম :

  • পুরান ঢাকায় অবাধে চলছে নিষিদ্ধ পলিথিন উৎপাদন কারণ ছাড়াই বেড়েছে ভোজ্যতেলের দাম ৭৫ হাজার ৫৯০ হজযাত্রী সৌদি আরব পৌঁছেছেনক্যারিবীয় দলে ফিরলেন নারিন-পোলার্ড আসিফের বিরুদ্ধে প্রতারণার মামলার তদন্ত প্রতিবেদন দাখিল ১১ সেপ্টেম্বর
এই রায় নজির হয়ে থাকবে : রিজভী
নিজস্ব প্রতিবেদক :
০৭ জুলাই, ২০১৯ ১৬:০৪:২৩
প্রিন্টঅ-অ+


প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে বহনকারী ট্রেনে হামলার মামলায় ৯ জনের মৃত্যুদণ্ড ও ২৬ জনের যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দেয়ার তীব্র সমালোচনা করেছেন বিএনপির জ্যেষ্ঠ যুগ্ম মহাসচিব অ্যাডভোকেট রুহুল কবির রিজভী।

তিনি বলেছেন, যে ঘটনায় কেউ হতাহত হয় না, সেই মামলায় ফাঁসি দেওয়ার আইন পৃথিবীতে আছে কি না, আমাদের জানা নেই। এই রায় পৃথিবীর ইতিহাসে নজির হয়ে থাকবে।

রোববার রাজধানীর নয়াপল্টনে দলীয় কার্যালয়ে প্রেস ব্রিফিংয়ে তিনি এসব কথা বলেন।

রুহুল কবির রিজভী বলেন, ১৯৯৪ সালের ২৩ সেপ্টেম্বর দলীয় কর্মসূচিতে অংশ নিতে ট্রেনে করে যাওয়ার সময় ঈশ্বরদী রেলওয়ে জংশনে যাত্রাবিরতি করলে ওই ট্রেন ও শেখ হাসিনার কামরা লক্ষ্য করে গুলিবর্ষণ করা হয়। এ মামলায় পুলিশ কোনো সাক্ষী না পেয়ে আদালতে চূড়ান্ত প্রতিবেদনও দাখিল করে। ১৯৯৬ সালে আওয়ামী লীগ সরকার গঠন করার পর শেখ হাসিনার নির্দেশে আজ্ঞাবহ পুলিশকে দিয়ে মামলাটি পুনঃতদন্ত করে নতুনভাবে ঈশ্বরদীর বিএনপি, যুবদল ও ছাত্রদলের শীর্ষস্থানীয় ৫২ জন নেতাকর্মীকে এ মামলার আসামি বানানো হয়। তাদের অপরাধ তারা বিএনপি করে।

তিনি বলেন, দেশের সচেতন মানুষ আজ প্রশ্ন করছেন, যে ঘটনায় কেউ আহত হলো না, নিহত হলো না, সেই মামলায় ফাঁসি কী করে হয়? বিনা মেঘে বজ্রপাত কী করে সম্ভব? সম্ভব এজন্য যে, দেশের প্রাতিষ্ঠানিক কাঠামো জবরদখল করার ষোলকলা পূর্ণ হয়েছে। মুক্তিযুদ্ধের চেতনার নামে এই অগণতান্ত্রিক কাজগুলোকে বৈধতা দেয়া হয়েছে। ফলে গণতন্ত্র এখন আইসিইউতে মৃত্যুযন্ত্রণায় ছটফট করছে। নির্বাচনগুলোতে জনগণের রায় প্রতিফলিত না হয়ে নিয়মরক্ষার আনুষ্ঠানিকতায় পরিণত হয়েছে।

শেখ হাসিনার সঙ্গে থাকা প্রত্যক্ষদর্শী এবং ১৯৮১-৯৭ পর্যন্ত তার ব্যক্তিগত সহকারী মতিয়ূর রহমান রেন্টুর বহুল আলোচিত ‘আমার ফাঁসি চাই’ বইয়ের রেফারেন্স দিয়ে রুহুল কবির রিজভী বলেন, সাংবাদিকদের ঘুম থেকে জাগাতে শেখ হাসিনার নির্দেশে তার আত্মীয় বাহাউদ্দিন নাসিম এবং পুলিশের লোকেরা ফাঁকা গুলি করেছিল, তাতে কেউ হতাহত হয়নি। অথচ ফাঁসি দেয়া হয়েছে বিএনপির ৯ নেতাকে!



আমার বার্তা/০৭ জুলাই ২০১৯/জহির

 


আরো পড়ুন