শিরোনাম :

  • ডি মারিয়া উড়িয়ে দিলেন রিয়ালকে তিন সপ্তাহ পরিকল্পনা, অতঃপর অভিযানের গ্রিন সিগন্যাল কোহলির ব্যাটে সহজ জয় ভারতের বিএনপি নেতা শামসুজ্জামান দুদুর বাড়িতে হামলা জাবি উপাচার্যকে পদত্যাগের জন্য আল্টেমেটাম
সাকিবকে পুরো ক্রিকেট বিশ্বই অন্য চোখে দেখে : মাশরাফি
স্পোর্টস ডেস্ক :
০৩ জুন, ২০১৯ ১১:১৪:২৪
প্রিন্টঅ-অ+


দলের এক্স-ফ্যাক্টর কে তা স্পষ্ট করে ম্যাচের আগের দিন বলেননি মাশরাফি বিন মুর্তজা। ম্যাচের পরও বললেন না। দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে ম্যাচ জয়ের জন্য পর পুরো দলকেই কৃতিত্ব দিয়েছেন। আলাদা করে প্রশংসা করেছেন সৌম্য, সাকিব ও মুশফিকের। বোলিংয়ে মুস্তাফিজের কথাও বলেছেন।  তবে সব কিছুকে ছাপিয়ে সাকিব আল হাসানের পারফরম্যান্স নিয়েই ছিল যত আলোচনা।

বোলিংয়ে ১ উইকেটের আগে ব্যাটিংয়ে ৭৫ রান। তাতেই ম্যাচসেরার পুরস্কার পেয়েছেন বাঁহাতি অলরাউন্ডার। ম্যাচ শেষে তাকে প্রশংসায় ভাসিয়েছেন অধিনায়ক মাশরাফিও,‘সাকিব অবশ্যই আমাদের সেরা খেলোয়াড়। ওয়ার্ল্ডের সেরা খেলোয়াড়। শুধু এটাই বলবো না, ও এমন একজন খেলোয়াড় যাকে সবাই এখন অন্য চোখে দেখে। আমি বা আমরা কিভাবে দেখি সেটা গুরুত্বপূর্ণ না। আমি নিশ্চিত যে সে নিজেকে নিয়ে গর্ববোধ করে। আমরা প্রত্যাশা করি ওর সেরা ক্রিকেটটা। এটা অবশ্যই ওর কাছে ভালো লাগে। চার বিশ্বকাপের প্রথম ম্যাচে চার ফিফটি। এটা অবশ্যই তার জন্য ভালো স্মৃতি।’

মিডল অর্ডার থেকে প্রমোশন পেয়ে সাকিব এখন তিনে নিয়মিত ব্যাটিং করছেন। তিনে ৪৬.১৪ গড়ে ১৬ ম্যাচে ৬৪৬ রান করেছেন। লম্বা সময় তাকে ক্রিজে রাখতেই এ পরিকল্পনা টিম ম্যানেজম্যান্টের। সাকিব আস্থার প্রতিদান দিয়েছেন ভালোভাবে।

‘শেষ বছর আমরা তাকে তিনে ব্যাটিংয়ের সুযোগ করে দেই। কিন্তু ত্রিদেশীয় সিরিজের ফাইনালে ইনজুরিতে পড়ে যায়। ছয় মাস লেগেছিল তাকে মাঠে ফিরতে।  পরবর্তীতে  কিছুদিন আবার সে পাঁচে ব্যাটিং করে। কিন্তু আমরা আবার পরিকল্পনা করে তাকে তিনে পাঠাই। যেহেতু তার অভিজ্ঞতা আছে এবং সিনিয়র মোস্ট তাই সে উপরের চাপ নিতে পারবে এবং লম্বা সময় ব্যাটিং করতে পারবে। এটাই চিন্তা ছিল। আয়ারল্যান্ড থেকে আবার সে তিনে ফেরে এবং আবার সে ফাইনাল মিস করে। কিন্তু তার তিনে ফেরা আমাদের জন্য ভালো হয়েছে। এখানে প্রথম ম্যাচেই ভালো করল যেটা আমাদের দলের খুব কাজে এসেছে।’ - বলেছেন মাশরাফি।  

দক্ষিণ আফ্রিকার ৭৫ রানে ২ উইকেট হারানোর পর সাকিব ও মুশফিক ১৪২ রানের জুটি গড়েন। ওয়ানডে ক্রিকেটে তাদের দুজনের রসায়ন দারুণ। এ নিয়ে পঞ্চমবারের মতো গড়েছেন শতরানের জুটি। চাপের মধ্যে থেকেও দুজন ২২ গজে স্বাচ্ছন্দ্যে সময় কাটিয়েছেন। আগ্রাসন দেখিয়ে রান পেয়েছেন। বোলারদের চোখে চোখ রেখে করেছেন শাসন। মাশরাফির মতে, দুজনের এমন প্রতিরোধ আর লড়াই তাদের কাছে নতুন নয়।

‘ওরা এরকম ইনিংস অনেক খেলেছে। তাই আজ নতুন কিছু মনে হয়নি। আমরা দেখে অভ্যস্ত। এরকম বড়  ইনিংসও অনেক সময় খেলেছে। কঠিন সময় থেকে বের করে এনেছে দলকে। ওরা দুজনই এরকম চাপের সময়ে পরিস্থিতি হ্যান্ডেল করতে পারে। যেভাবে ইনিংস মেরামত করেছে তা সত্যিই মনোমুগ্ধকর ছিল। ওদের থেকে সবাই এটাই আশা করে।’ - যোগ করেন মাশরাফি।

 



আমার বার্তা/০৩ জুন ২০১৯/জহির


আরো পড়ুন