শিরোনাম :

  • রোকেয়ার আদর্শে উজ্জীবিত হয়ে নারীরা বঙ্গবন্ধুর সোনার বাংলা গড়বে : প্রধানমন্ত্রী নারীর ক্ষমতায়নে বাংলাদেশ বিশ্বে রোল মডেল : রাষ্ট্রপতি বেগম রোকেয়া দিবস আজ উগ্রবাদবিরোধী জাতীয় সম্মেলন শুরু হচ্ছে আজ
নতুন পেঁয়াজ বাজারে না উঠলে দাম কমবে না
সাতক্ষীরা প্রতিনিধি :
১৬ নভেম্বর, ২০১৯ ১৩:৫৯:১৭
প্রিন্টঅ-অ+


সাতক্ষীরার পাইকারী বাজারগুলোতে পেয়াজ বিক্রি হচ্ছে কেজি প্রতি সাতক্ষীরা ২১০-২২০ টাকা কেজি দরে। আর খুচরা বাজারে বিক্রি হচ্ছে ২৩০-২৪০ টাকায়। নতুন দেশি পেঁয়াজ বাজারে না উঠলে অথবা ভারত থেকে পেঁয়াজ আমদানি না হলে পেঁয়াজের বর্তমান মূল্য কমার সম্ভাবনা নেই বলে জানিয়েছেন ব্যবসায়ীরা।

সাতক্ষীরায় পেঁয়াজের বড় মোকাম শহরের সুলতানপুর বড়বাজার। শনিবার সকাল ৯টা-১০টা পর্যন্ত বড়বাজার ঘুরে দেখা যায়, খুচরা বাজারে পেয়াজ বিক্রি হচ্ছে ২৩০-২৪০ টাকা কেজি দরে। আর পাইকারী বিক্রি হচ্ছে ২১০-২২০ টাকায়। এছাড়া পেঁয়াজের সরবরাহ অনেকটা কম দেখা গেছে।

বড় বাজারের পাইকারী পেঁয়াজ ব্যবসায়ী মেসার্স সাকিব এন্টারপ্রাইজের মালিক শেখ কামরুজ্জামান। তার দোকানেই সব থেকে বেশি পেঁয়াজ রয়েছে, ২০-৩০ বস্তা পেঁয়াজ। শেখ কামরুজ্জামান বলেন, গতকাল চট্টগ্রাম থেকে পেঁয়াজ এনেছি। প্রতি কেজির দাম পড়েছে ১৯০ টাকা। বিক্রি করছি ২১০-২২০ টাকায়। বাজারে পেঁয়াজের সরবরাহ খুবই কম। একদিকে দাম বেশি অন্যদিকে কম দামে বিক্রি করার ব্যাপারে প্রশাসনিক চাপের কারণে ব্যবসায়ীরা পেঁয়াজ আমদানি কমিয়ে দিয়েছেন। ব্যবসায়ীরা বেশি দামে ক্রয় করে কম দামে বিক্রি করবে না।

তিনি বলেন, বর্তমানে পেঁয়াজের বাজারমূল্য কম হওয়ার কোনো সম্ভাবনা নেই। নতুন পেঁয়াজ বাজারে আসলে দাম কমবে। ভারত থেকে আমদানি শুরু হলেও দাম কমে যাবে। এছাড়া পেঁয়াজের দাম কমার কোনো সম্ভাবনা নেই।

অন্যদিকে বড়বাজারের খুচরা ব্যবসায়ী আমির আলী জানান, শুক্রবার প্রতিকেজি পেঁয়াজ ২০০ টাকায় বিক্রি করেছিলাম। আজ (শনিবার) ২৪০ টাকায় বিক্রি করছি।

বড়বাজারের ক্রেতা জাহিরুল ইসলাম বলেন, কিছুদিন আগেও যে পেঁয়াজ প্রতিকেজি ২০-২২ টাকায় কিনেছি সেই একই পেঁয়াজ বর্তমানে ২৩০-৪০ টাকায় কিনতে হচ্ছে। সাধারণ ক্রেতাদের ক্রয় ক্ষমতার বাইরে চলে গেছে পেঁয়াজের মূল্য। এভাবে কতদিন চলবে কে জানে। সাধারণ খেটে খাওয়া মানুষরা পড়েছি বিপাকে।

সাতক্ষীরার ভোমরা স্থল বন্দরের সিঅ্যান্ডএফ অ্যাসোসিয়েশনের সাধারণ সম্পাদক মোস্তাফিজুর রহমান নাসিম বলেন, গত এক মাস ১৮ দিন যাবৎ ভারত থেকে পেঁয়াজ আমদানি বন্ধ রয়েছে। ভারত সরকার পেঁয়াজ রফতানি বন্ধ ঘোষণার পর থেকেই বাংলাদেশের পেঁয়াজ বাজারে এর প্রভাব পড়তে শুরু করে। বর্তমানে চড়া মূল্যে পেঁয়াজ কিনতে হচ্ছে ক্রেতাদের। এক্ষেত্রে ব্যবসায়ীদের কিছু করার নেই। আমদানি শুরু না হলে পেঁয়াজের দাম আর কমবে না।



আমার বার্তা/১৬ নভেম্বর ২০১৯/রহিমা


আরো পড়ুন