শিরোনাম :

  • নয়াপল্টনে বিএনপির নেতাকর্মীদের সঙ্গে পুলিশের সংঘর্ষ জবানবন্দিতে বুলুসহ ১৫ বিএনপি নেতার নাম পেয়েছে পুলিশ সেনা অভ্যুত্থানবিরোধী বিক্ষোভে উত্তাল সুদান, সংঘর্ষে নিহত ৭দুই ট্রাকের মুখোমুখি সংঘর্ষ, নিহত ২
ঢলের পানির সাথে টানা বৃষ্টি, ভাঙন বাড়ছে কুড়িগ্রামে
০২ জুলাই, ২০২১ ২১:০৩:১৮
প্রিন্টঅ-অ+


আজ (শুক্রবর) বিকালে তিস্তার পানি বিপৎসীমার মাত্র ২৪ সেন্টিমিটার নিচ দিয়ে প্রবাহিত হয়েছে। পানি বাড়ায় কুড়িগ্রামে নিচু এলাকা পানিতে তলিয়ে গিয়েছে। ঢলের পানির সাথে  টানা বৃষ্টিতে নদী ভাঙন বাড়ছে কুড়িগ্রামে।

সরেজমিন পরিদর্শন করে দেখা গেছে, ধরলা ও তিস্তা অববাহিকার ৫০টি চরের নিচু এলাকা দু’দিন ধরে প্লাবিত রয়েছে। এসব এলাকার পাট, ভুট্টা, আউশ ধান, বীজতলা ও সবজি ক্ষেত তলিয়ে গিয়েছে। গ্রামীণ সড়ক ডুবে  বিচ্ছিন্ন রয়েছে যোগাযোগ ব্যবস্থা।

সদর উপজেলার হলোখানা ইউপিসদস্য মোক্তার হোসেন বলেন, আমার বাড়ির কাছে একটি রাস্তাসহ তিনটি রাস্তা বন্যার পানিতে ভেঙে গেছে। চলাচলে চরম দুর্ভোগে পড়েছে মানুষ। তিনি জানান, সারডোবে বন্যা নিয়ন্ত্রণ বাঁধের ৬০ মিটার অংশ নদী গর্ভে বিলীন হয়েছে। গত তিন দিনে অন্তত ২০টি পরিবার ভিটা হারিয়েছে। বিকল্প বাঁধের ভাঙা অংশ দিয়ে পানি ঢুকে প্লাবিত হয়েছে ১৫টি গ্রাম।

ফুলবাড়ী উপজেলার ভাঙামোড় ইউপি চেয়ারম্যান লুৎফর রহমান বাবু জানান, তার ইউনিয়নের রাঙামাটি ও খোঁচাবাড়ি গ্রাম দুটির বেশীর ভাগ এলাকা প্লাবিত হওয়ায় ফসল তলিয়ে যাওয়ার পাশাপাশি গ্রামীণ যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন হয়ে গেছে।

কুড়িগ্রাম পানি উন্নয়ন বোর্ডের নির্বাহী প্রকৌশলী আরিফুল ইসলাম বলেন, মধ্য জুলাইয়ের আগে বড় বন্যার আশঙ্কা নেই। যেসব এলাকায় নদী ভাঙন চলছে তা চিহ্নিত করে জিওব্যাগ ও জিওটিউব ফেলে ভাঙন প্রতিরোধের চেষ্টা করা হচ্ছে।


আরো পড়ুন