শিরোনাম :

  • সন্ধ্যার মধ্যেই আঘাত হানবে ‘গুলাব’, সতর্কতা জারিকরোনা পরীক্ষায় শাহজালালে বসল পিসিআর ল্যাবট্রেনের ছাদে হত্যার ঘটনায় গ্রেপ্তার ৫চার অপহরণকারীকে হত্যা করে প্রকাশ্যে ঝুলিয়ে রাখল তালেবান
নাটোরে পাটের ব্যাপক উৎপাদন
রবি-১ জাতের পাট চাষে অধিক ফলনের সম্ভাবনা
আখলাক হোসেন লাল
১৪ সেপ্টেম্বর, ২০২১ ১৭:৫০:৩০
প্রিন্টঅ-অ+

নাটোরে ২০২১-২২ মৌসুমে পাটের ব্যাপক উৎপাদন হয়েছে। পাট কাটার শুরুতে পানির অভাবে পাট জাগ দেয়া নিয়ে কৃষকদের মনে আশঙ্কা থাকলেও অধিক বৃষ্টিপাতের ফলে নদী খাল বিলে পানি আসায় পাট জাগ দিতে কৃষকদের আর কোন বিড়ম্বনায় পড়তে হয়নি। পাটের ভালো ফলন পেয়ে কৃষকরা যেমন আনন্দিত অধিক ফলনের কারনে তেমনি ভালো দাম না পাওয়ারও শঙ্কা আছে কৃষকদের মনে। 


নাটোর সদর উপজেলা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের সূত্র মতে উপজেলায় এবার ২০২১-২২ মৌসুমে ২ হাজার ৭’শ হেক্টর জমিতে ৪ জাতের পাট চাষ করা হয়। তারমধ্যে জেআরও ৫২৪ জাতের পাট ১হাজার ৯’শ হেক্টর জমিতে, রবি-১ জাতের পাট ২ হেক্টর জমিতে, ০-৭২ জাতের পাট ১৩০ হেক্টর জমিতে ও ০-৯৮৯৭ জাতের পাট ৬৬৮ হেক্টর জমিতে চাষ করা হয়। এতে করে পাটের মোট উৎপাদন ২০২১-২২ মৌসুমে হয় ৮ হাজার ১’শ মেট্রিকটন যার গড় ফলন ৩ মেট্রিকটন।


 এর মধ্যে পরীক্ষামূলকভাবে রবি-১ জাতের পাট চাষ করা হয় যার ফলন হেক্টর প্রতি ৩.৭২ মেট্রিকটন পাওয়া যায়। ২০২০-২১ মৌসুমে নাটোর সদর উপজেলায় ১ হাজার ৮’শ হেক্টর জমিতে পাট চাষ করা হয়েছিল। তারমধ্যে জেআরও ৫২৪ জাতের পাট ১ হাজার ৫১৫ হেক্টর জমিতে, রবি-১ জাতের পাট ১ হেক্টর জমিতে, ০-৭২ জাতের পাট ১১৫ হেক্টর জমিতে ও ০-৯৮৯৭ জাতের পাট  ১৭৯ হেক্টর জমিতে চাষ করা হয়। এতে করে মোট উৎপাদন হয়েছিল ৪ হাজার ৬৮০ মেট্রিকটন পাট যার গড় ফলন ছিল ২.৬ মেট্রিকটন। এর মধ্যে পরীক্ষামূলকভাবে রবি-১ জাতের পাট চাষ করা হয় যার ফলন ছিল হেক্টর প্রতি ৩ মেট্রিকটন।


সদর উপজেলার বড় হরিশপুর ইউনিয়নের জাঠিয়ান এলাকার পাট চাষী মোঃ বাবর আলী বলেন,তিনি ২বিঘায় পাট চাষ করে বিঘা প্রতি ৫ মন করে ফলন পেয়েছেন। তাছাড়া হালশা ইউনিয়নের বাহান্ন বিঘা ফুলার হালশা এলাকার পাট চাষী বীর মুক্তিযোদ্ধা শাহজাহান বলেন তিনি ৩ বিঘা জমিতে বিদেশি জাতের সম্রাট পাট বীজ চাষ করে ফলন পেয়েছেন বিঘা প্রতি ৭ মণ করে।    


সদর উপজেলা কৃষি সম্প্রসারণ অফিসার মোঃ মেহেদুল ইসলাম বলেন নাটোরে পাটের ভালো ফলন হয়েছে। 


এখানে যেসব জাতের পাট উৎপাদন হয় জেআরও ৫২৪, সম্রাট পাটের বীজ সাধারণত দেশের বাইরে থেকে আমদানি করে চাষ করা হয়। তবে নতুন জাতের পাট রবি-১ বাংলাদেশ জুট রিসার্চ ইনস্টিটিউটের উদ্ভাবিত। এই জাত উৎপাদন করলে আরোও ভালো ফলন পাওয়া যাবে। 


এই কৃষিবিদ আরোও বলেন দেখা যায় সমপরিমান রবি-১ ও অন্যান্য জাতের পাট চাষে একই সার ও কীটনাশক প্রয়োগ করে যেখানে অন্যান্য জাতের পাট হেক্টর প্রতি ২.৬ মেট্রিকটন উৎপাদন হয় সেখানে রবি-১ হেক্টর প্রতি ৩.৭২ মেট্রিকটন উৎপাদিত হয়। অর্থাৎ অন্যান্য পাট বীজ চাষে যেখানে বিঘায় ৫-৭ মন করে পাট পাওয়া যায় সেখানে রবি-১ জাতের পাট চাষে বিঘা প্রতি ১১ মণ করে পাট পাওয়া যাবে। যা বাংলাদেশের অর্থনীতিতে ইতিবাচক প্রভাব ফেলতে পারে। 


তিনি বলেন এই লক্ষ্যে বাংলাদেশ বস্ত্র ও পাট মন্ত্রনালয় এই রবি-১ জাত টিকে কৃষক পর্যায়ে প্রণোদনার অন্তর্ভুক্ত করেছে।


আমার বার্তা/সি এইচ কে


 

আরো পড়ুন