শিরোনাম :

  • ঢামেক হাসপাতালে নবজাতক রেখে নিখোঁজ বাবা-মা নেতাকর্মীদের কাছে পাত্তাই পেলেন না শোভন অস্ট্রেলিয়ার সামনে রানের পাহাড় দাঁড় করাচ্ছে ইংল্যান্ড সৌম্য-লিটনও পারে, প্রয়োজন শুধু বিশ্বাস : ব্যাটিং কোচ পাকিস্তান সিপিএল থেকে নিজেদের বোলারকে ফিরিয়ে নিল
সাবেক এমপি রানা জামিনে মুক্তি পেলেন
টাঙ্গাইল প্রতিনিধি :
০৯ জুলাই, ২০১৯ ১৩:০২:২৬
প্রিন্টঅ-অ+


দীর্ঘ ৩৪ মাস কারাভোগের পর অবশেষে জামিনে মুক্তি পেলেন টাঙ্গাইল-৩ (ঘাটাইল) আসনের আওয়ামী লীগ দলীয় সাবেক সাংসদ আমানুর রহমান খান রানা।

মঙ্গলবার সকাল পৌনে ৯টায় টাঙ্গাইল জেলা কারাগার থেকে মুক্তি পান তিনি। এর আগে মুক্তিযোদ্ধা ফারুক আহমেদ হত্যা মামলায়ও উচ্চ আদালত থেকে জামিন পেয়েছিলেন তিনি। টাঙ্গাইল জেলা কারাগারের জেলার আবুল বাশার এই তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

প্রায় ৩৪ মাস কারাভোগের পর জামিনে মুক্তি পেয়ে রানা রাজধানীর ধানমন্ডিতে বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে ফুল দেয়ার জন্য ঢাকার উদ্দেশ্যে রওয়ানা হন। এর আগে সোমবার, ৮ জুলাই, দুই যুবলীগ নেতা হত্যা মামলায় রানার জামিনের বিরুদ্ধে রাষ্ট্রপক্ষের করা আপিল খারিজ করে দেয় সুপ্রিম কোর্টের আপিল বিভাগ।

গত ১৪ মার্চ মুক্তিযোদ্ধা ফারুক আহমেদ হত্যা মামলায় হাইকোর্ট থেকে ৬ মাসের জামিন পান রানা। পরবর্তীতে সেটি বহাল রাখে আপিল বিভাগ। কিন্তু দুই যুবলীগ নেতা হত্যা মামলায় জামিন না পাওয়ায় মুক্তি পান নি।

উল্লেখ্য, আওয়ামী লীগের টাঙ্গাইল জেলা কমিটির সদস্য ফারুক আহমেদকে ২০১৩ সালের ১৮ জানুয়ারি গুলি করে হত্যা করা হয়। এ ঘটনায় দায়ের করা মামলায় টাঙ্গাইল-৩ (ঘাটাইল) আসনের তৎকালীন এমপি আমানুর রহমান খান রানা ২০১৬ সালের ১৮ সেপ্টেম্বর আত্মসমর্পণ করলে তাকে কারাগারে পাঠানো হয়।

গত বছরের ৩ মে স্থানীয় দুই যুবলীগ নেতা শামীম ও মামুন হত্যা মামলাতেও তাকে গ্রেপ্তার দেখানো হয়। টাঙ্গাইল সদরের বাঘিলের যুবলীগ নেতা শামীম ও মামুন ২০১২ সালের ১৬ জুলাই টাঙ্গাইল শহরে এসে নিখোঁজ হন। মামুনের বাবা এক বছর পর আদালতে হত্যা মামলা করেন। এই মামলার তিন আসামি আদালতে জবানবন্দি দিয়ে বলেন, সাংসদ আমানুরের নির্দেশে যুবলীগ নেতা শামীম ও মামুনকে হত্যা করে লাশ নদীতে ভাসিয়ে দেয়া হয়।



আমার বার্তা/০৯ জুলাই ২০১৯/জহির

 


আরো পড়ুন