শিরোনাম :

  • জলবায়ু তহবিল গঠনে আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়ের প্রতি আহ্বান প্রধানমন্ত্রী কুড়িগ্রাম এক্সপ্রেসের উদ্বোধন করবেন আজ নতুন টি-টোয়েন্টি লিগে খেলবেন শচিন লারা মুরালিরা বিমানের সিবিএ নির্বাচন আজ ক্যারিবীয় দলে সুযোগ পেলেন ওয়ালশ-কিং
আবরারের মৃত্যু : চার্জশিট গ্রহণ করেছেন আদালত
নিজস্ব প্রতিবেদক :
২৫ জুলাই, ২০১৯ ১৩:৪৫:৪০
প্রিন্টঅ-অ+


বাংলাদেশ ইউনিভার্সিটি অব প্রফেশনালসের (বিইউপি) শিক্ষার্থী আবরার আহাম্মেদ চৌধুরীর নিহত এবং পথচারী সিমথিয়া সুলতানা মুক্তা আহত হওয়ার ঘটনায় সু-প্রভাত বাসের মালিক-চালকসহ চারজনের বিরুদ্ধে করা মামলার পৃথক দুটি চার্জশিট গ্রহণ করেছেন আদালত।

বৃহস্পতিবার ঢাকা মহানগর হাকিম দেবদাস চন্দ্র অধিকারী চার্জশিট দুটি গ্রহণ করে বিচারিক আদালতে বদলির আদেশ দেন। এর আগে ২৪ জুন মামলা তদন্ত কর্মকর্তা ডিবি পুলিশের পরিদর্শক কাজী শরিফুল ইসলাম নতুন কোনো আসামি ও সাক্ষী না পাওয়ায় সম্পূরক অভিযোগপত্র দাখিল করেন।

গত ৩০ এপ্রিল ঢাকা মহানগর হাকিম আদালতে অধিকতর তদন্তের জন্য আবেদন করেন শরিফুল ইসলাম। ঢাকা মহানগর হাকিম দেবদাস চন্দ্র অধিকারী ডিবি পুলিশের আবেদনটি মঞ্জুর করেন।

২৫ এপ্রিল ঢাকা মহানগর হাকিম আদালতে পৃথক দুটি চার্জশিট জমা দেন মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা গোয়েন্দা পুলিশের পরিদর্শক কাজী শরিফুল ইসলাম। দুই চার্জশিটে সাক্ষী করা হয় ৩২ জনকে।

আবরার নিহত হওয়ার ঘটনায় বাসের কন্ডাক্টর ইয়াছির আরাফাত ও মালিক ননী গোপাল সরকারের বিরুদ্ধে পেনাল কোডের ২৭৯/৩০৪/১০৯ ধারায় চার্জশিট দেন তদন্ত কর্মকর্তা। অপরদিকে ঘটনায় জড়িত থাকার কোনো তথ্য-প্রমাণ না পাওয়ায়, বাসের চালক সিরাজুল ইসলাম ও তার সহকারী ইব্রাহিম হোসেনকে অব্যাহতির আবেদন করেন তদন্তকারী কর্মকর্তা।

এছাড়া পথচারী সিমথিয়া সুলতানা মুক্তাকে আহত করায় বাসের চালক সিরাজুল ইসলাম, তার সহকারী ইব্রাহিম হোসেন, কন্ডাক্টর ইয়াছির আরাফাত ও মালিক ননী গোপাল সরকারের বিরুদ্ধে পেনাল কোডের ২৭৯/৩৩৮-ক/১০৯ ধারায় আরেকটি চার্জশিট দেন তদন্ত কর্মকর্তা।

এ মামলায় বাসচালক সিরাজুল ইসলাম, সহকারী ইব্রাহিম হোসেন, কন্ডাক্টর ইয়াছির আরাফাত ও মালিক ননী গোপাল সরকার কারাগারে। তারা আদালতে ১৬৪ ধারায় স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিয়েছেন।

গত ১৯ মার্চ সকাল ৭টার দিকে প্রগতি সরণি এলাকায় সু-প্রভাত (ঢাকা-মেট্রো-ব-১১-৪১৩৫) বাসের চাপায় বিইউপির শিক্ষার্থী আবরার আহাম্মেদ চৌধুরী নিহত হন। সেদিন রাতেই আবরারের বাবা ব্রিগেডিয়ার জেনারেল (অব.) আরিফ আহাম্মেদ চৌধুরী বাদী হয়ে গুলশান থানায় মামলা করেন।

মামলায় বাসের চালক সিরাজুল ইসলাম, হেলপার ইব্রাহিম হোসেন, কন্ডাক্টর ইয়াছির আরাফাত ও মালিক ননী গোপাল সরকারকে আসামি করা হয়।



আমার বার্তা/২৫ জুলাই ২০১৯/জহির


আরো পড়ুন