শিরোনাম :

  • প্রধানমন্ত্রী রাতে দেশে ফিরবেন পদ্মা সেতুর আড়াই কিলোমিটার দৃশ্যমান হচ্ছে আজ যুক্তরাষ্ট্রে ওয়ালমার্টের বাইরে গোলাগুলিতে নিহত ৩ আজ বিমানে পেঁয়াজ আসছে ইডেনে যে বিষয়টাতে বেশি ভয় পাচ্ছেন মিরাজ
আমির খসরু ও তার স্ত্রীর দেশত্যাগে নিষেধাজ্ঞা চায় দুদক
নিজস্ব প্রতিবেদক :
০৪ অক্টোবর, ২০১৮ ১৮:২২:৫৫
প্রিন্টঅ-অ+


বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য আমির খসরু মাহমুদ চৌধুরী ও তার স্ত্রী তাহেরা আলমের দেশত্যাগে নিষেধাজ্ঞা চেয়েছে দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক)।

বৃহস্পতিবার বিকেলে স্পেশাল ব্র্যাঞ্চের বিশেষ পুলিশ সুপার বরাবর পাঠানো দুদকের পরিচালক ও অনুসন্ধান কর্মকর্তা কাজী শফিকুল আলমের চিঠিতে এ নিষেধাজ্ঞা চাওয়া হয়েছে।

চিঠিতে দুদকের পরিচালক কাজী শফিক বলেন, "অভিযোগ সংশ্লিষ্ট আমির খসরু মাহমুদ চৌধুরী ও তার স্ত্রী দেশ ত্যাগ করে অন্য দেশে পালিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করছেন। সুষ্ঠু অনুসন্ধান কার্যক্রম পরিচালনার স্বার্থে তাদের বিদেশ গমন রহিত করা আবশ্যক।’

আমির খসরুর বিরুদ্ধে অভিযোগ, তিনি বেনামে পাঁচ তারকা হোটেল ব্যবসা, ব্যাংকে কোটি কোটি টাকা অবৈধ লেনদেনসহ বিভিন্ন দেশে অর্থ পাচার এবং নিজ, স্ত্রী ও পরিবারের অন্য সদস্যদের নামে শেয়ার ক্রয়সহ জ্ঞাত আয়বহির্ভূত সম্পদ অর্জন করেছেন।

এসব অভিযোগে অনুসন্ধানে আমির খসরুকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য গত ২৮ আগস্ট প্রথম তলব করে দুদক। ওই সময় ঈদের ছুটির কারণে তথ্য-উপাত্ত সংগ্রহ ও প্রস্তুতি নিতে না পারার কারণ দেখিয়ে দুদককে উপস্থিত হতে এক মাস সময় চেয়েছেলেন তিনি।

এ আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে তাকে সময় দিয়ে ১০ সেপ্টেম্বর দ্বিতীয় দফায় তলব করেন অনুসন্ধান কর্মকর্তা কাজী শফিক।

এর মধ্যে তলবের বিরুদ্ধে ‘আইনগত বৈধতা চ্যালেঞ্জ’ করে একটি রিট আবেদন হাইকোর্টে বিচারাধীন উল্লেখ করে তা নিষ্পত্তি না হওয়া পর্যন্ত কোনো পদক্ষেপ না নিতে দুদকে আবেদন করেন বিএনপি নেতা আমির খসরু মাহমুদ চৌধুরী। পরে হাইকোর্ট এ আবেদনের ওপর শুনানি করে দুদকের তলব বৈধ বলে আদেশ দেয়।

নিরাপদ সড়কের দাবিতে শিক্ষার্থীদের আন্দোলনে আরো মানুষ নামাতে আমির খসরুর একটি ফোনালাপ ইন্টারনেটে ছড়িয়ে পড়ে। তা সরকারের বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র বলে ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগের নেতারা অভিযোগ করার পর এই বিএনপি নেতার বিরুদ্ধে মামলাও হয়। ওই ঘটনার পর আমির খসরু ওই ফোনালাপের কণ্ঠ তার নয় বলে দাবি করেন। মামলা হওয়ার পর বেশকিছু দিন তিনি আত্মগোপনে ছিলেন। পরে তিনি ওই মামলায় জামিন নেন।



আমার বার্তা/০৪ অক্টোবর ২০১৮/জহির

 


আরো পড়ুন