শিরোনাম :

  • অরুণ জেটলি বিরল এক ক্যানসারে ভুগছিলেন কোথায় গিয়ে থামবে আজ নিউজিল্যান্ড! শিশু সায়মা হত্যা : তদন্ত প্রতিবেদন দাখিল ১৬ সেপ্টেম্বরওএসডি হচ্ছেন জামালপুরের সেই ডিসি দ্বিতীয় ম্যাচেই হোঁচট খেলো রিয়াল মাদ্রিদ
পাকিস্তান হাইকমিশনে এসি-কম্পিউটার চুরি, গ্রেফতার ৬
নিজস্ব প্রতিবেদক :
২৮ নভেম্বর, ২০১৮ ১৪:৪৫:১৯
প্রিন্টঅ-অ+


রাজধানীর গুলশানে পাকিস্তান হাইকমিশনের এসি, কম্পিউটারের সিপিইউ ও ইউপিএস চুরির ঘটনায় ৬ জনকে গ্রেফতার এবং খোয়া যাওয়া এসি বাদে সব মালামাল উদ্ধার করছে গুলশান থানা পুলিশ।

বুধবার গুলশান থানায় অনুষ্ঠিত সংবাদ সম্মেলনে এ তথ্য জানান ডিএমপির গুলশান বিভাগের উপ-কমিশনার (ডিসি) মোস্তাক আহমেদ।

গ্রেফতারকৃতরা হচ্ছেন সজল ওরফে কালু (২২), মোস্তফা (৩৫), দুলাল মিয়া (৩৪), জাহাঙ্গীর আলম (৪৫), নিমাই বাবু (৪২) ও সেকুল ইসলাম (৩৫)।

ডিসি মোস্তাক বলেন, গুলশান এলাকায় বোতল কুড়ান কালু (২২)। ওই এলাকায় পাকিস্তান হাইকমিশনের পেছনের দেয়াল ঘেঁষা এলাকায় নিয়মিত যাতায়াত ছিল তার। সেই সুবাদে হাইকমিশনের পেছনে যাওয়ার পর দেখতে পান দেয়ালের কিছু অংশ ভাঙা। ওই অংশ দিয়ে ভেতরে একটি এসি দেখতে পান তিনি। এ কারণে কুবুদ্ধি চাপে তার মাথায়, কয়েক জনের সঙ্গে সেই এসি চুরির বুদ্ধি আঁটেন। এরপর পরিকল্পনা অনুসারে কালু ও তার সহযোগিরা সেই এসি সরাতেই দেখেন ফাঁকা অংশ দিয়ে হাইকমিশনের ভেতরে যাওয়া যায়। তখন ভবনের ভেতরে ঢুকে ৩টি সিপিইউ ও ৪টি ইউপিএস চুরি করেন তারা।

এ ঘটনায় ২৫ নভেম্বর গুলশান থানায় অভিযোগ করে পাকিস্তান হাইকমিশন কর্তৃপক্ষ। এর ভিত্তিতে বিষয়টি তদন্তে নামে পুলিশ। তদন্তের ভিত্তিতে মঙ্গলবার রাতে রাজধানীর বিভিন্ন এলাকায় অভিযান চালিয়ে চুরির মূল হোতা কালুসহ ৬ জনকে গ্রেফতার করা হয়।

এ সময় তাদের দেয়া তথ্যমতে ৩টি সিপিইউ, ২টি ইউপিএস, ১টি কম্পিউটার মনিটর ও চুরির কাজে ব্যবহৃত ১টি ভ্যানগাড়ি উদ্ধার করা হয়।

মোস্তাক আহমেদ বলেন, ২৫ নভেম্বর অভিযোগ পাওয়ার পর থানা পুলিশের পাশাপাশি ডিবি ও সিআইডির টিম ঘটনাস্থল পরিদর্শনে যায়। এরপর ওখানকার সিসিটিভি ফুটেজ দেখা যায়, কয়েক জন প্রথমে একটি এসি বের করে ভ্যানে করে নিয়ে যাচ্ছে, এরপর ৩টি সিপিইউ বের করে সিএনজি অটোরিকশায় করে নিয়ে যাচ্ছে।

তিনি বলেন, পুরো এলাকার সিসিটিভি ফুটেজ পর্যালোচনা করে আমরা একজনের চেহারা শনাক্ত করতে পারি। তারপর সেই ছবিটি এলাকার সুইপারদের দেখালে তারা একে কালু বলে চিহ্নিত করেন। তখন কালুর বাসায় গিয়ে তাকে গ্রেফতার করলে পুরো ঘটনা বেরিয়ে আসে।

হাইকমিশনের নিরাপত্তার বিষয়ে এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, এ ঘটনার পর হাইকমিশনকে দেয়াল ঠিক করতে এবং সিসিটিভি বাড়িয়ে নিরাপত্তা আরও জোরদার করার পরামর্শ দেয়া হয়েছে।



আমার বার্তা/২৮ নভেম্বর ২০১৮/জহির


আরো পড়ুন