শিরোনাম :

  • নয়াপল্টনে বিএনপির নেতাকর্মীদের সঙ্গে পুলিশের সংঘর্ষ জবানবন্দিতে বুলুসহ ১৫ বিএনপি নেতার নাম পেয়েছে পুলিশ সেনা অভ্যুত্থানবিরোধী বিক্ষোভে উত্তাল সুদান, সংঘর্ষে নিহত ৭দুই ট্রাকের মুখোমুখি সংঘর্ষ, নিহত ২
ভিক্টরিয়া কলেজে বন্ধ, বসেছে মাদকের হাট
১১ জুলাই, ২০২১ ২০:৫৬:৩২
প্রিন্টঅ-অ+


করোনায় ১৬ মাস বন্ধ কুমিল্লার ভিক্টোরিয়া সরকারি কলেজ। চলছে ১৪ দিনের কঠোর লকডাউন। বন্ধ ক্যাম্পাস আর পরিত্যাক্ত ছাত্রাবাস এখন পরিণত হয়েছে অনৈতিক কাজে জড়িতদের আবাসস্থল। নিয়মিত আনাগোনা বাড়ছে মাদকসেবী আর যৌনকর্মীদের। অতিরিক্ত সতর্কতা আর পুলিশের টহল উপেক্ষা করেই চলছে এমন অনৈতিক কর্মকান্ড।

কুমিল্লা ভিক্টোরিয়া সরকারি কলেজের ডিগ্রি শাখার ২২টি বিভাগে প্রায় ২৫ হাজার শিক্ষার্থী অধ্যয়ন করেন। কবি নজরুল ইসলাম ছাত্রাবাস ও নওয়াব ফয়জুন্নেসা হলে হাজার শিক্ষার্থী আবাসিক সুবিধা পেয়ে থাকে। এছাড়াও কয়েক হাজার ছাত্র-ছাত্রী ধর্মপুর এলাকায় ভাড়া বাসায় থাকেন।

একাধিক ‍বিশ্বস্ত সূত্র জানিয়েছে, কলেজের কান্দিরপাড় উচ্চমাধ্যমিক শাখায় দেয়ালের উপর দিয়ে প্রবেশ করে বহিরাগতরা। রাতের আঁধারে চলে মাদক সেবন। নিউ হোস্টেল ও শেরে বাংলা ছাত্রী হোস্টেলের পরিত্যক্ত ভবনে রাতের আঁধারে আনাগোনা বাড়ে যৌনকর্মীদের। ধর্মপুর শাখার বিভিন্নি স্থানে আড্ডা জমে মাদকসেবীদের। স্থানীয়দের সাথে যুক্ত হয়ে দূর থেকে আসা মাদকসেবীরা। সন্ধ্যা না হতেই ক্যান্টিনে বসে মদের হাট। অভিযুক্তদের  বেশি ভাগই কলেজ ছাত্রলীগের বহিষ্কৃত কর্মী।





ভিক্টোরিয়া কলেজ বিতর্ক পরিষদের একজন নারী সদস্য অভিযোগ করেছেন, কেন্দ্রীয় লাইব্রেরির সামনে বহিরাগতা বসে সিগারেট খায়। এখানে পাঠাগার ও দু’টি সংগঠনের কার্যক্রম চলে। তাদের কারণে মেয়ে সদস্যরা আসতে চায় না।

কলেজে অধ্যয়নরত  আব্দুল্লাহ হিল ক্বাফি জানান, গত চারবছর ধরে কলেজ ক্যাম্পাসে বহিরাগতদের অধিপাত্য বেড়েছে। ফেসবুকে কলেজ ছাত্রীদের সাথে অবৈধ প্রেম সম্পর্কে লিপ্ত হয়ে, শারীরিক সম্পর্কে লিপ্ত হয় বহিরাগত বখাটেরা। তারা ছাত্রীদের ব্ল্যাক মেইল করে কলেজের বিভিন্ন কক্ষে নানা অপকর্মে লিপ্ত হয়। এ সন্ত্রাসীরা  অবৈধ অস্ত্র বহন করে তাই এখানের শিক্ষক, শিক্ষার্থী কর্মচারি কেউ তাদের বিরুদ্ধে বলতে চায় না।

কলেজ ক্যাম্পাসের বেহাল দশার ব্যপারে কলেজ কতৃপক্ষ বলছেন, এই সম্যার স্থায়ী সমাধান দরকার। আর স্থায়ী সমাধানে প্রয়োজন ক্যম্পাস এলাকায় অতিরিক্ত পুলিশ ফাঁড়ি।





 


আরো পড়ুন