শিরোনাম :

  • জলবায়ু তহবিল গঠনে আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়ের প্রতি আহ্বান প্রধানমন্ত্রী কুড়িগ্রাম এক্সপ্রেসের উদ্বোধন করবেন আজ নতুন টি-টোয়েন্টি লিগে খেলবেন শচিন লারা মুরালিরা বিমানের সিবিএ নির্বাচন আজ ক্যারিবীয় দলে সুযোগ পেলেন ওয়ালশ-কিং
দুই কোম্পানির শেয়ারের অস্বাভাবিক দাম
নিজস্ব প্রতিবেদক :
৩০ সেপ্টেম্বর, ২০১৯ ১৫:১৮:১৫
প্রিন্টঅ-অ+


পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত স্ট্যান্ডার্ড সিরামিকের শেয়ারের দাম ১৩ কার্যদিবসে বেড়েছে প্রায় ২০০ টাকা। এছাড়া প্যারামাউন্ট ইন্স্যুরেন্সের শেয়ারের দাম ১২ কার্যদিবসে বেড়েছে ছয় টাকা। প্রতিষ্ঠান দুটির শেয়ারের এমন দাম বৃদ্ধি অস্বাভাবিক বলছে ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জ (ডিএসই) কর্তৃপক্ষ। এজন্য বিনিয়োগকারীদের সতর্ক করতে সোমবার তথ্যও প্রকাশ করেছে সংস্থাটি।

ডিএসই জানিয়েছে, শেয়ারের অস্বাভাবিক দাম বাড়ার পেছনের কারণ জানতে চেয়ে ২৫ সেপ্টেম্বর স্ট্যান্ডার্ড সিরমিক এবং ২৯ সেপ্টেম্বর প্যারামাউন্ট ইন্স্যুরেন্সকে নোটিশ পাঠানো হয়। এর জবাবে কোম্পানি দুটির কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে, সম্প্রতি শেয়ারের যে অস্বাভাবিক দাম বেড়েছে তার জন্য তাদের কাছে অপ্রকাশিত কোনো মূল্য সংবেদনশীল তথ্য নেই।

তথ্য পর্যালোচনায় দেখা যায়, গত ৯ সেপ্টেম্বর স্ট্যান্ডার্ড সিরামিকের প্রতিটি শেয়ারের দাম ছিল ৩৯৪ টাকা ১০ পয়সা। যা টানা বেড়ে ২৯ সেপ্টেম্বর লেনদেন শেষে দাঁড়ায় ৫৮৫ টাকা ৬০ পয়সায়। অর্থাৎ ১৩ কার্যদিবসে কোম্পানিটির শেয়ারের দাম বেড়েছে ১৯১ টাকা ৫০ পয়সা।

এমন দাম বাড়ার পরিপ্রেক্ষিতেই ডিএসই থেকে কোম্পানিটিকে নোটিশ পাঠানো হয় এবং কোম্পানি কর্তৃপক্ষের দেয়া তথ্যের ভিত্তিতে বিনিয়োগকারীদের সতর্ক করতে তথ্য প্রকাশ করা হয়। তবে এরপরও কোম্পানিটির শেয়ারের দাম বাড়ার প্রবণতা অব্যাহত রয়েছে।

ডিএসইর তথ্য অনুযায়ী, মাত্র ছয় কোটি ৪৬ লাখ ১০ হাজার টাকা পরিশোধিত মূলধনের এ কোম্পানিটির শেয়ার সংখ্যা ৬৪ লাখ ৬০ হাজার ৬৫০টি। এর মধ্যে ২৮ দশমিক ৫০ শতাংশ শেয়ার রয়েছে উদ্যোক্তা ও পরিচালকদের হাতে। বাকি শেয়ারের মধ্যে সাধারণ বিনিয়োগকারীদের কাছে আছে ৬৪ দশমিক ৮৭ শতাংশ শেয়ার। প্রাতিষ্ঠানিক বিনিয়োগকারীদের কাছে ৬ দশমিক ৬৩ শতাংশ শেয়ার আছে।

অপর কোম্পানি প্যারামাউন্ট ইন্স্যুরেন্সের শেয়ারের দাম গত ১১ সেপ্টেম্বর ছিল ১৮ টাকা ৪০ পয়সা। যা টানা বেড়ে ২৯ সেপ্টেম্বর লেনদেন শেষে দাঁড়ায় ২৪ টাকা ৪০ পয়সায়। অর্থাৎ ১২ কার্যদিবসে কোম্পানিটির শেয়ারের দাম বেড়েছে ছয় টাকা।

এমন দাম বাড়ার পরিপ্রেক্ষিতেই ডিএসই থেকে কোম্পানিটিকে নোটিশ পাঠানো হয়। কোম্পানি কর্তৃপক্ষের দেয়া তথ্যের ভিত্তিতে বিনিয়োগকারীদের সতর্ক করতে সোমবার তথ্য প্রকাশ করা হয়েছে। এরপরও কোম্পানিটির শেয়ারের দাম বাড়ার প্রবণতা অব্যাহত রয়েছে।

ডিএসইর তথ্য অনুযায়ী, ৩৩ কোটি ২২ লাখ ৩০ হাজার টাকা পরিশোধিত মূলধনের এ কোম্পানিটির শেয়ারের সংখ্যা তিন কোটি ৩২ লাখ ২৩ হাজার ১২টি। এর মধ্যে ৪২ দশমিক ৭৮ শতাংশ শেয়ার রয়েছে উদ্যোক্তা ও পরিচালকদের হাতে। বাকি শেয়ারের মধ্যে সাধারণ বিনিয়োগকারীদের কাছে আছে ৪৩ শতাংশ শেয়ার। প্রাতিষ্ঠানিক বিনিয়োগকারীদের কাছে ৮ দশমিক ৮৫ শতাংশ এবং বিদেশিদের কাছে ৫ দশমিক ৩৭ শতাংশ শেয়ার আছে।



আমার বার্তা/৩০ সেপ্টেম্বর ২০১৯/ রিফাত


আরো পড়ুন