শিরোনাম :

  • আজ প্রধানমন্ত্রী ৭ বিদ্যুৎকেন্দ্র উদ্বোধন করবেন তিনটি সংসদীয় স্থায়ী কমিটি পুনর্গঠন বিমানে এল ২২৫টি অস্ট্রেলিয়ান গরু সৌদি থেকে ফিরছেন নির্যাতনের শিকার সেই সুমি অস্ট্রেলিয়ান ক্রিকেটার্স অ্যাসোসিয়েশনের নতুন সভাপতি ওয়াটসন
প্রতিটি শেয়ারের বিপরীতে নগদ ১০ পয়সা
নিজস্ব প্রতিবেদক :
০৪ নভেম্বর, ২০১৯ ১১:৪৪:২৫
প্রিন্টঅ-অ+


পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত ওষুধ খাতের কোম্পানি সেন্ট্রাল ফার্মার পরিচালনা পর্ষদ শেয়ারহোল্ডারদের ১ শতাংশ নগদ লভ্যাংশ দেয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে। অর্থাৎ কোম্পানিটির শেয়ারহোল্ডাররা লভ্যাংশ হিসেবে প্রতিটি শেয়ারের বিপরীতে নগদ ১০ পয়সা করে পাবেন।

কোম্পানিটির পরিচালনা পর্ষদ সভায় ২০১৯ সালের ৩০ জুন সমাপ্ত বছরের আর্থিক প্রতিবেদন পর্যালোচনা করে এ লভ্যাংশ দেয়ার সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে বলে সোমবার (৪ নভেম্বর) ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জ (ডিএসই) থেকে জানানো হয়েছে।

প্রাথমিক গণপ্রস্তাবের (আইপিও) মাধ্যমে পুঁজিবাজার থেকে টাকা তুলে ২০১৩ সালে শেয়ারবাজারে তালিকাভুক্ত হওয়া সেন্ট্রাল ফার্মা এবারে প্রথম নগদ লভ্যাংশ দিল। অবশ্য শতকরা হিসাবে এটি তালিকাভুক্ত হওয়ার পর কোম্পানিটির সব থেকে কম লভ্যাংশ।

তালিকাভুক্তির বছর অর্থাৎ ২০১৩ সালে কোম্পানিটি শেয়ারহোল্ডারদের ১৫ শতাংশ বোনাস শেয়ার লভ্যাংশ দিয়েছিল। পরের দুই বছর ২০১৪ ও ২০১৫ সালে লভ্যাংশের হার একই থাকে।

তবে ২০১৬ সালে এসে লভ্যাংশের হার কমে ১০ শতাংশ বোনাস শেয়ারে এসে দাঁড়ায়। ২০১৭ সালেও কোম্পানিটি শেয়ারহোল্ডারদের ১০ শতাংশ বোনাস শেয়ার লভ্যাংশ হিসেবে দেয়। তবে ২০১৮ সালে লভ্যাংশ পরিমাণ কমে দাঁড়ায় ৫ শতাংশ বোনাস শেয়ারে।

অর্থাৎ কোম্পানিটির লভ্যাংশের হার ধারাবাহিকভাবে কমছে। লভ্যাংশ পতনের নেতিবাচক প্রভাব পড়েছে কোম্পানিটির শেয়ার দামে। বর্তমানে কোম্পানিটির শেয়ার দাম অভিহিত মূল্যের নিচে নেমে গেছে।

এদিকে ২০১৯ সালের জুন শেষে সমাপ্ত বছরের লভ্যাংশের বিষয়ে কোম্পানিটির পরিচালনা পর্ষদের নেয়া সিদ্ধান্ত শেয়ারহোল্ডারদের অনুমোদনের জন্য বার্ষিক সাধারণ সভার (এজিএম) তারিখ নির্ধারণ করা হয়েছে আগামী ৩০ ডিসেম্বর। আর রেকর্ড ডেট নির্ধারণ করা হয়েছে ২৫ নভেম্বর।

সমাপ্ত হিসাব বছরটিতে কোম্পানিটি শেয়ারপ্রতি মুনাফা করেছে ৪৮ পয়সা। আর ২০১৯ সালের জুন শেষে শেয়ারপ্রতি সম্পদ মূল্য দাঁড়িয়েছে ১৪ টাকা ৮৭ পয়সা।

লভ্যাংশ ঘোষণার কারণে আজ সোমবার কোম্পানিটির শেয়ার দামের কোনো সার্কিট ব্রেকার থাকবে না। অর্থাৎ কোম্পানিটির শেয়ারের দাম যত খুশি বাড়তে অথবা কমতে পারবে।



আমার বার্তা/ ৪ নভম্বের ২০১৯/রিফাত


আরো পড়ুন