শিরোনাম :

  • রোকেয়ার আদর্শে উজ্জীবিত হয়ে নারীরা বঙ্গবন্ধুর সোনার বাংলা গড়বে : প্রধানমন্ত্রী নারীর ক্ষমতায়নে বাংলাদেশ বিশ্বে রোল মডেল : রাষ্ট্রপতি বেগম রোকেয়া দিবস আজ উগ্রবাদবিরোধী জাতীয় সম্মেলন শুরু হচ্ছে আজ
প্রথমবার আয়কর দিয়ে উচ্ছ্বসিত তারা
নিজস্ব প্রতিবেদক :
১৪ নভেম্বর, ২০১৯ ১১:৫৮:৩৭
প্রিন্টঅ-অ+


একই প্রতিষ্ঠানে চাকরি করেন সোহেল শেখ, তুষার মণ্ডল, আব্দুস সবুর, বাবুল ওঝা ও গৌরাঙ্গ পাল। এসেছিলেন আয়কর মেলায়। প্রথমবারের মতো কর দিয়ে উচ্ছ্বসিত তারা। কর দিয়ে ফেরার সময় বলেন, সরকারের কাছে তাদের পরিচয় এখন ‘করদাতা’।

সবাই মিলে দেব কর, দেশ হবে স্বনির্ভর- স্লোগানে রাজধানীর অফিসার্স ক্লাবে শুরু হয়েছে সপ্তাহব্যাপী আয়কর মেলা। করসেবা প্রদান ও কর সচেতনতা বাড়াতে প্রতিবছরের মতো এবারও এই মেলার আয়োজন করেছে জাতীয় রাজস্ব বোর্ড (এনবিআর)।

রাজধানীর তেজগাঁও শিল্পাঞ্চল এলাকায় অবস্থিত সরকারি মালিকানাধীন ওষুধ প্রস্তুতকারক প্রতিষ্ঠান এসেনসিয়াল ড্রাগস কোম্পানি লিমিটেডে উৎপাদন শ্রমিকের পদে চাকরি করেন সোহেল শেখ, তুষার মণ্ডল, আব্দুস সবুর, বাবুল ওঝা ও গৌরাঙ্গ পাল।

আয়কর দিয়ে ফেরার পথে জাগো নিউজকে সোহেল শেখ বলেন, সকাল সাড়ে আটটার দিকে আসছিলাম। বিশেষ ভিড় ছিল না। খুব সহজেই কর দিতে পেরেছি। তবে এখন ভিড় বাড়ছে।

গৌরাঙ্গ পাল বলেন, প্রথমবারের মতো আয়কর দিলাম। বিষয়টি আমি জানতামই না। অফিস মাধ্যমে জানতে পেরেছি এবার আমি আয়করের আওতায় পড়েছি। আমাকে আয়কর দিতে হবে। দেশের সুনাগরিকের দায়িত্ব মাত্রই আয়কর দেয়া। সেই দায়িত্বের জায়গা থেকে অন্য সহকর্মীদের সাথে আমিও এসেছি এই আয়কর মেলায়।

তিনি বলেন, এখানে যখন আসি তখন আমাদের সাথে ৬-৭ শ মানুষের সিরিয়াল ছিল। কিন্তু এরপরও কর দিতে সমস্যা হয়নি। মাত্র ১৫ মিনিটের মধ্যেই কর দেয়ার প্রক্রিয়া সম্পন্ন হয়েছে। এখানে যারা কাজ করছেন, দেখে মনে হয়েছে তারা খুবই আন্তরিক ও হেল্পফুল। এটাই হওয়া উচিত। জটিলতা কমিয়ে সুন্দর প্রক্রিয়ায় কর নেয়ায় সরকারকেও ধন্যবাদ জানান তিনি।

তুষার মন্ডল বলেন, দেশের অন্যান্য পেশার কর্মকর্তা-কর্মচারীদের মতো আমিও কর দিলাম। খুব ভাল লাগছে। আমার আয় নিয়ে আর কোনো প্রশ্ন থাকবে না। অল্প বেতন হলেও সরকারের কাছে আমি করদাতা।

বাবুল ওঝা বলেন, আমার খুব ভাল লাগছে। এইবারই প্রথম এসেছি আয়কর মেলায়। জীবনের প্রথম আয়কর দিলাম। বেতন কাঠামো হিসেবে আমরা পাঁচজনই ৫ হাজার টাকা আয়কর দিয়েছি।

বৃহস্পতিবার সকালে শুরু হওয়া এ মেলা চলবে ২০ নভেম্বর পর্যন্ত। রাজধানী ঢাকার পাশাপাশি বিভাগীয় শহরে ও সব জেলা শহরে চার দিন এবং ৪৮টি উপজেলায় দুই দিন মেলা হবে। পাশাপাশি উপজেলা পর্যায়ে ৮টি গ্রোথ সেন্টারে একদিন ভ্রাম্যমাণ মেলা অনুষ্ঠিত হবে।

মেলা শুরু হয়ে গেলেও এর আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন হবে বিকেলে। অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে মেলার উদ্বোধন করবেন। মেলায় ব্যক্তিশ্রেণির করদাতারা হয়রানিমুক্ত রিটার্ন জমা দিতে পারবেন বলে দাবি জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের।

আগামী ৩০ নভেম্বর পালিত হবে জাতীয় আয়কর দিবস। এরপর আয়কর রিটার্ন জমা দেয়া যাবে না। তবে উপ কর কমিশনারের কাছে সময় বৃদ্ধির আবেদন এবং জরিমানা দিয়ে রিটার্ন জমা দেয়া যাবে।



আমার বার্তা/ ১৪ নভেম্বর ২০১৯/রিফাত


আরো পড়ুন