শিরোনাম :

  • নয়াপল্টনে বিএনপির নেতাকর্মীদের সঙ্গে পুলিশের সংঘর্ষ জবানবন্দিতে বুলুসহ ১৫ বিএনপি নেতার নাম পেয়েছে পুলিশ সেনা অভ্যুত্থানবিরোধী বিক্ষোভে উত্তাল সুদান, সংঘর্ষে নিহত ৭দুই ট্রাকের মুখোমুখি সংঘর্ষ, নিহত ২
একজনের পরীক্ষায় অন্যজন: কেন্দ্রীয় ব্যাংকের দুই কর্মকর্তা বরখাস্ত
১৯ নভেম্বর, ২০২১ ১৫:৩৭:০৫
প্রিন্টঅ-অ+

রাষ্ট্রায়ত্ত ব্যাংকের চাকরির নিয়োগ পরীক্ষায় প্রশ্নফাঁসের ঘটনায় এখনও আলোচনা-সমালোচনা চলছে। এরই মধ্যে বেরিয়ে এলো বাংলাদেশ ব্যাংকের নিয়োগ পরীক্ষায় জালিয়াতির কথা। কেন্দ্রীয় ব্যাংকের পরীক্ষায় জালিয়াতিতে সহযোগিতা করায় দুই কর্মকর্তাকে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়েছে। এ ঘটনায় তদন্ত করছে নিয়ন্ত্রক সংস্থাটি।


সাময়িক বরখাস্ত হওয়া দুই কর্মকর্তা হলেন যুগ্ম পরিচালক মো. আলমাস আলী ও আবদুল্লাহ আল মাবুদ। বাংলাদেশ ব্যাংকের সিসিটিভি অপারেটর পদে নিয়োগে জালিয়াতিতে সহযোগিতা ও পরিকল্পনার জন্য তাদের বিরুদ্ধে শাস্তিমূলক ব্যবস্থা নেওয়া হয়।


সিসিটিভি অপারেটর পদের ২৬টি শূন্য পদের জন্য ২০১৯ সালের ৬ অক্টোবর নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করে বাংলাদেশ ব্যাংক। এ পদের জন্য লিখিত পরীক্ষার তারিখ নির্ধারণ ছিল গত বছরের ২৭ মার্চ। কিন্তু বৈশ্বিক মহামারি করোনাভাইরাসের কারণে পরীক্ষা স্থগিত হয়। পরে একই বছরের ১৬ অক্টোবর লিখিত পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়। বাংলাদেশ ব্যাংক স্কুল অ্যান্ড কলেজে অনুষ্ঠিত ওই পরীক্ষায় ৭০০ জনের মধ্যে অংশ নেন ১৪২ জন। আর উত্তীর্ণ হন ২১ শতাংশ পরীক্ষার্থী।


চলতি বছরের ৬ জানুয়ারি উত্তীর্ণদের মৌখিক পরীক্ষার জন্য ডাকা হয়। উত্তীর্ণ প্রার্থীদের তথ্য যাচাইকালে আবু বকর সিদ্দিক নামে এক পরীক্ষার্থীর লিখিত পরীক্ষার উত্তরপত্র ও নিজের হাতের লেখার মধ্যে মিল পাওয়া যায়নি। ওই পরীক্ষার্থীকে জিজ্ঞাসাবাদের একপর্যায়ে স্বীকার করেন যে তিনি নিজে পরীক্ষায় অংশ নেননি। অর্থাৎ তার পক্ষে অন্য কেউ পরীক্ষা দিয়েছেন।


এই আলোচিত ঘটনাটি বিশেষ তদন্তের নির্দেশ দেন গভর্নর ফজলে কবির। কেন্দ্রীয় ব্যাংকের বিশেষ তদন্তে উঠে আসে, ওই পরীক্ষার্থীর পরিবর্তে নিত্যানন্দ পাল নামে একজন অংশ নেন। এই অনিয়মের মূল পরিকল্পনাকারী ছিলেন বাংলাদেশ ব্যাংকের যুগ্ম পরিচালক আবদুল্লাহ আল মাবুদ আর আর্থিক লেনদেন করেন অপর যুগ্ম পরিচালক মো. আলমাস আলী। এ জন্য আলমাস আলীর অ্যাকাউন্টে বড় অঙ্কের অর্থ যোগ হয়।


পরীক্ষায় অনিয়মের সত্যতা পাওয়ায় আবদুল্লাহ আল মাবুদ ও মো. আলমাছ আলীর বিরুদ্ধে শাস্তিমূলক ব্যবস্থার সুপারিশ করে কেন্দ্রীয় ব্যাংকের ওই তদন্ত কমিটি। গত ১৩ জুন আবদুল্লাহ আল মাবুদ ও মো. আলমাস আলীকে সাময়িক বরখাস্ত করে বাংলাদেশ ব্যাংক। এই অনিয়মের ঘটনায় চূড়ান্ত সিদ্ধান্তের জন্য তদন্ত করছে বাংলাদেশ ব্যাংক।


এ বিষয়ে বাংলাদেশ ব্যাংকের সহকারী মুখপাত্র আবুল কালাম আজাদ এক লিখিত বক্তব্যে বলেন, বাংলাদেশ ব্যাংকের জন্য সিসিটিভি অপারেটর পদে গত বছরের ১৬ অক্টোবর অনুষ্ঠিত লিখিত পরীক্ষায় অনিয়মের অভিযােগ পাওয়ায় প্রাথমিকভাবে ব্যাংকের যুগ্ম পরিচালক আবদুল্লাহ আল মাবুদ ও মাে. আলমাস আলীকে চলতি বছরের ১৩ জুন সাময়িক বরখাস্ত করা হয় এবং অভিযােগের সার্বিক বিষয়টি এখনও তদন্তাধীন। তদন্ত কার্যক্রম সম্পন্ন হওয়ার পর অভিযােগ প্রমাণিত হলে সংশ্লিষ্টদের বিরুদ্ধে যথাযথ প্রশাসনিক ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।


আমার বার্তা/গাজী আক্তার

আরো পড়ুন