শিরোনাম :

  • খাদ্যসংকটে বানভাসি মানুষ বিচারকদের নিরাপত্তায় কী ব্যবস্থা : হাইকোর্ট সিভিল সার্ভিসের সামর্থ্য বহুগুণে বৃদ্ধি করেছি : প্রধানমন্ত্রী ট্রেভর বেইলিসকে দলে ভেড়াল কেকেআর পাটুয়াটুলীতে ধসে পড়া ভবন থেকে বাবা-ছেলের মরদেহ উদ্ধার
হামলার ঘটনা তদন্ত সাপেক্ষে ব্যবস্থা : উপাচার্য
নিজস্ব প্রতিবেদক :
০৩ এপ্রিল, ২০১৯ ১৩:১৩:০৪
প্রিন্টঅ-অ+


ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় কেন্দ্রীয় ছাত্র সংসদের (ডাকসু) ভিপি নুরুল হক নুরসহ প্রতিবাদী শিক্ষার্থীদের ওপর হামলার ঘটনা তদন্ত সাপেক্ষে ব্যবস্থা নেয়া হবে বলে জানিয়েছেন বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. মো. আখতারুজ্জামান।

তিনি বলেন, ডাকসুর ভিপি নুরসহ তার সঙ্গে থাকা শিক্ষার্থীদের সঙ্গে আমার কথা হয়েছে। তাদের বলেছি, এখন কেন্দ্রীয় ছাত্র সংসদ আছে। যেকোনো দাবি-দাওয়া আদায়ে একটি দায়িত্বশীল জায়গা তৈরি হয়েছে। আন্দোলনকারীদের আমি বুঝিয়েছি, এখন যেকোনো আলোচনার মাধ্যমে সমস্যার সমাধান করা সম্ভব। আমাদের এখন দায়িত্বশীল ভূমিকা পালন করতে হবে।

বুধবার দুপুরে আন্দোলনকারী শিক্ষার্থীদের সঙ্গে আলোচনা শেষে সাংবাদিকদের এসব কথা বলেন উপাচার্য। এর আগে সকাল ৯টায় আন্দোলনকারীদের কাছে যান উপাচার্য অধ্যাপক ড. মো. আখতারুজ্জামান। সেখান থেকে তিনি প্রতিবাদী শিক্ষার্থীদের নিজ কার্যালয়ে নিয়ে যান। সেখানে সকাল সাড়ে ১০টা পর্যন্ত আন্দোলনকারীদের সঙ্গে কথা বলেন উপাচার্য।

উপাচার্য বলেন, গতকালের ঘটনায় এসএম হলের প্রভোস্ট তাৎক্ষণিকভাবে একটি তদন্ত কমিটি গঠন করেছেন। যারা দোষী তাদের বিরুদ্ধে বিশ্ববিদ্যালয়ের আইন অনুযায়ী ব্যবস্থা নিতে হবে। আমি তাদের বলেছি, কোনো অনাকাঙ্ক্ষিত ঘটনা ঘটিয়ে কেউ যাতে অস্থিতিশীল পরিবেশ তৈরি করতে না পারে, সেজন্য সবার সহযোগিতা দরকার। কেউ অন্যায় করে যাতে পার না পায় সে বিষয়টাও আমরা নিশ্চিত করব। সবাই যেন নিজেদের দায়িত্বশীল জায়গাগুলো ভুলে না যায়।

এ আলোচনার আগে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় সলিমুল্লাহ মুসলিম (এসএম) এক শিক্ষার্থীকে মারধর ও শিক্ষার্থীদের ওপর হামলার ঘটনার বিচারের জন্য আগামী সোমবার পর্যন্ত সময় দেন ডাকসুর ভিপি নুরুল হক নুর। তিনি বলেছেন, এর মধ্যে যদি অপরাধীদের শাস্তি নিশ্চিত না করা হয় তাহলে নতুন কর্মসূচি দেয়া হবে।

সন্ত্রাসবিরোধী রাজু স্মারক ভাস্কর্যের সামনে শিক্ষার্থীদের যে বিক্ষোভ কর্মসূচি ছিল তা স্থগিত ঘোষণা করেন তিনি।

গত সোমবার রাতে ঢাবির এসএম হলের উর্দু বিভাগের মাস্টার্সের শিক্ষার্থী ফরিদ হাসানকে মারধর করে ছাত্রলীগ। এ ঘটনায় গতকাল বিকেলের দিকে অভিযোগপত্র দিতে এসএম হলে যান ডাকসুর ভিপি নুরুল হক নুর, সমাজসেবা সম্পাদক আকতার হোসেন, শামসুন্নাহার হলের ভিপি শেখ তাসনীম আফরোজ ইমি, ছাত্র ফেডারেশনের বিশ্ববিদ্যালয় শাখার সভাপতি উম্মে হাবিবা বেনজির, অরণি সেমন্তি খানসহ কয়েকজন। তারা ভেতরে গেলে সেখানে ছাত্রলীগ নেতাকর্মীরা তাদের বাধা দেন ও অবরুদ্ধ করে বলে অভিযোগ পাওয়া যায়।

প্রতিবাদে মঙ্গলবার রাত পৌনে ৮টা থেকে বুধবার সকাল পর্যন্ত ভিসির বাসভবনের সামনে অবস্থান কর্মসূচি পালন করেন ভিপি নুরসহ প্রতিবাদী শিক্ষার্থীরা। রাত পৌনে ১টার দিকে ঘটনাস্থলে গিয়ে বিচারের আশ্বাস দিয়ে কর্মসূচি স্থগিত করার অনুরোধ জানান প্রক্টর অধ্যাপক ড. এ কে এম গোলাম রব্বানী। কিন্তু শিক্ষার্থীরা প্রক্টরের আশ্বাসে ভরসা রাখেননি। তারা ভিসিকে ঘটনাস্থলে এসে শিক্ষার্থীদের সঙ্গে কথা বলার দাবি জানান।

পরে আজ সকালে ভিসি ড. মো. আখতারুজ্জামানের সঙ্গে আলোচনায় বসেন নুর।



আমার বার্তা/০৩ এপ্রিল ২০১৯/জহির


আরো পড়ুন