শিরোনাম :

  • আজ প্রধানমন্ত্রী ৭ বিদ্যুৎকেন্দ্র উদ্বোধন করবেন তিনটি সংসদীয় স্থায়ী কমিটি পুনর্গঠন বিমানে এল ২২৫টি অস্ট্রেলিয়ান গরু সৌদি থেকে ফিরছেন নির্যাতনের শিকার সেই সুমি অস্ট্রেলিয়ান ক্রিকেটার্স অ্যাসোসিয়েশনের নতুন সভাপতি ওয়াটসন
যৌন হেনস্তার অভিযোগ থেকে বিকাশ বহেলের অব্যাহতি
বিনোদন ডেস্ক :
০২ জুন, ২০১৯ ১১:৩২:২৪
প্রিন্টঅ-অ+


যৌন হেনস্তার অভিযোগ থেকে অব্যাহতি পেলেন নির্মাতা বিকাশ বহেল।

এ প্রসঙ্গে একটি বিবৃতির বরাত দিয়ে মুম্বাই মিররের প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, ‘ফ্যান্থম ফিল্মসের সাবেক এক কর্মীর করা যৌন হেনস্তার অভিযোগ ও হৃতিক রোশানের সুপার থার্টি সিনেমার পরিচালক হিসেবে তাকে বাদ দেয়াসহ সকল প্রকার অভিযোগ ফ্যান্থম ফিল্মসের অর্ধেক অংশীদার রিলায়েন্স এন্টারটেইনমেন্ট অভ্যন্তরীণ তদন্ত করে নির্মাতা বিকাশ বহেলকে সকল অভিযোগ থেকে অব্যাহতি দিয়েছে। এ ক্লিনচিটের মাধ্যমে আগামী সপ্তাহে সুপার থার্টি সিনেমার প্রকাশিতব্য ট্রেইলারে পরিচালক হিসেবে বিকাশ বহেলের নাম দেয়া হবে।’

রিলায়েন্স এন্টারটেইনমেন্টের সিইও শিবাশিষ সরকার বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, ‘হ্যাঁ, অভ্যন্তরীণ কমিটির বিকাশ বহেলকে অব্যাহতি দিয়েছেন এটি সত্য। যেহেতু কমিটি বিকাশকে অব্যাহতি দিয়েছেন তাই সুপার থার্টি সিনেমার পরিচালক হিসেবে তার নাম দেয়া ছাড়া আমাদের উপায় নেই।’

এর আগে ২০১৭ সালে কুইন সিনেমার নির্মাতা ও প্রযোজনা প্রতিষ্ঠান ফ্যান্থম ফিল্মসের সহ-প্রতিষ্ঠাতা বিকাশ বহেলের বিরুদ্ধে যৌন হেনস্তার অভিযোগ তোলেন এক নারী। ফ্যান্থম ফিল্মসের ওই নারী কর্মচারী যৌন হেনস্তার অভিযোগ করে জানান, গোয়াতে ভ্রমণের সময় তার সঙ্গে আপত্তিকর আচরণ করেছেন এ নির্মাতা। গত বছর বলিউডে ‘মি টু’ আন্দোলনের সময় বিষয়টি নতুন করে আলোচনায় আসে। এছাড়া অভিনেত্রী কঙ্গনা রাণৌতও এ নির্মাতার সঙ্গে তার তিক্ত অভিজ্ঞতার কথা প্রকাশ করেন। পরবর্তী সময়ে হৃতিকের সুপার থার্টি সিনেমার পরিচালক হিসেবে বিকাশের নাম বাদ দেয়ার সিদ্ধান্ত নেয়া হয়। এছাড়া প্রযোজনা প্রতিষ্ঠান ফ্যান্থম ফিল্মসও ভেঙে যায়।

যদিও তার বিরুদ্ধে হেনস্তার বিষয়টি সম্পূর্ণ অস্বীকার করে সেই সময় বিকাশ বহেল বলেন, ‘এ ধরনের কিছুই হয়নি। কর্তৃপক্ষের কাছে এ ধরনের কোনো অভিযোগ যায়নি। গোয়ার ঘটনা ও ওই নারী সম্পর্কে কথাগুলো শুনেছি। তিনি আমার কর্মচারী। হ্যাঁ, তিনি আমার বন্ধু, আমরা একসঙ্গে একটি প্রোডাকশনে কাজ করেছি। যদি তার সঙ্গে কোনো আপত্তিকর কিছু করি তা হলে তার সঙ্গে বসে কথা বলব। আমি যদি সীমা অতিক্রম করি এবং তাকে দুঃখ দিয়ে থাকি তা হলে তার কাছে প্রয়োজনে ক্ষমা চাইব। তাকে আমি অনেকদিন ধরেই চিনি। গত আড়াই বছর তিনি আমাকে কখনই জানাননি আমার আশেপাশে তিনি অস্বস্তিবোধ করেন।’

 



আমার বার্তা/০২ জুন ২০১৯/জহির


আরো পড়ুন