শিরোনাম :

  • রাজপথে তৎপর পুলিশ ১৫ এপ্রিল পর্যন্ত বিদেশি নাগরিকদের ভিসা অন অ্যারাইভাল বন্ধ করোনার সংক্রমণ ঠেকাবে ত্রিফলা, দাবি ভারতীয় বিজ্ঞানীর সস্ত্রীক করোনায় আক্রান্ত ইসরায়েলের স্বাস্থ্যমন্ত্রী
যেখানে দুধ বিক্রি মহাপাপ!
আমার বার্তা ডেস্ক :
২৮ ডিসেম্বর, ২০১৯ ১১:৩৬:২৬
প্রিন্টঅ-অ+


দুধ খুবই পুষ্টিকর খাবার হিসেবে পরিচিত। শিশু-কিশোরদের শারীরিক ও মানসিক বিকাশে দুধ পানের গুরুত্ব অপরিসীম। তবে শুধু শিশু-কিশোর নয়, সকল বয়সের মানুষের জন্যই দুধ পানের গুরুত্ব রয়েছে। এছাড়া, দুধকে পবিত্র মনে করা হয় এবং বিভিন্ন উৎসব পালনেও এর ব্যবহার রয়েছে।

কিন্তু জেনে অবাক হবেন, বিশ্বে এমন একটি জায়গা রয়েছে যেখানে দুধ বিক্রি করা মহাপাপ। সেটি হচ্ছে ভারতের আগ্রার তাজমহল থেকে দুই কিলোমিটার দূরে কুয়া খেদা গ্রাম। এই গ্রামে দুধ বিক্রি করাকে মহাপাপ হিসেবে গণ্য করা হয় এবং আদিকাল থেকে এই অদ্ভুত নিয়ম অনুসরণ করে আসছেন গ্রামের বাসিন্দারা।

গ্রামটির বেশিরভাগ অধিবাসী গবাদি পশুপালনে জড়িত। কিন্তু বিস্ময়কর ব্যাপার হচ্ছে, কুয়া খেদা গ্রামের বাসিন্দাদের দুধ বিক্রি করার অনুমতি নেই। গ্রামটির বাসিন্দারা দুধ বিক্রি বা ক্রয় করেন না। তাদের মতে, বহু বছর ধরে চলে আসা এই নিয়ম ভাঙলে পাপ হবে। প্রচলিত রয়েছে যে, গ্রামের কোনো বাসিন্দা যদি দুধ বিক্রি করার চেষ্টা করেন তাহলে তার পরিবারের সদস্যরা অনাকাঙ্ক্ষিত সমস্যার মুখোমুখি হবেন এবং মারাত্মক বিপদেও পড়তে পারেন।

তারা কারো প্রয়োজনে কেবল দুধ দান করতে পারেন। কারণ অর্থ আয়ের উদ্দেশ্যে দুধ বিক্রি করা এখানে অশুভ হিসেবে বিবেচিত। গ্রামটিতে যখন কোনো অনুষ্ঠান হয় যেমন জন্মদিন, বিয়ে বা উৎসবের সময় কোনো পরিবারের যদি দুধের প্রয়োজন হয় তাহলে গ্রামবাসী দুধ সংগ্রহ করে দান করেন।

স্থানীয়রা বিশ্বাস করেন, গ্রামটির কাছে এক সময় যে সাধু থাকতেন তিনি গরুভক্ত ছিলেন। প্রায় ৪০০ বছর আগে তিনি গ্রামবাসীদের দুধ বিক্রি না করার পরামর্শ দিয়েছিলেন। সাধুর পরামর্শ আজও মেনে চলছে তারা। গ্রামের কোনো অসাধু ব্যক্তি সাধুর সেই পরামর্শ অগ্রাহ্য করে দুধ বিক্রি করতে গিয়ে কী ধরনের বিপদে পড়েছেন তা আজও জানা যায়নি। সূত্র: টাইমস অব ইন্ডিয়া



আমার বার্তা/২৮ ডিসেম্বর ২০১৯/জহির


আরো পড়ুন