শিরোনাম :

  • রাজধানীর উত্তরখানে আগুনে একই পরিবারের ৮ জন দগ্ধ ভারতে আঘাত হেনেছে ঘূর্ণিঝড় তিতলিবাবরসহ ১৯ জনের মৃত্যুদণ্ড, তারেকসহ ১৯ জনের যাবজ্জীবনরায়কে ঘিরে ঢাকায় ব্যাপক নিরাপত্তা ব্যবস্থা২১ আগস্ট গ্রেনেড হামলা মামলার রায় আজ
ভোটের আগে রাত জেগে পাহারা দিতে হবে: মমতা
আন্তর্জাতিক ডেস্ক :
১১ মে, ২০১৯ ১২:১৭:১৩
প্রিন্টঅ-অ+


জাতীয় নির্বাচন ঘিরে ভারতে রাজনীতিবিদদের মধ্যে চরম উত্তেজনা বিরাজ করছে। বাকযুদ্ধে একে অপরকে ঘায়েলের চেষ্টা চলছে।

প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি বনাম পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়, মোদি বনাম কংগ্রেস সভাপতি রাহুল গান্ধী এই রাজনীতিকদের মধ্যে বাকযুদ্ধটা এবার বেশিই চোখে পড়ছে।

এবার মোদির বিরুদ্ধে বিপুল টাকা খরচ করে পশ্চিমবঙ্গে ভোট কেনার অভিযোগ এনেছেন পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

কলকাতার দৈনিক আনন্দবাজার পত্রিকার এক প্রতিবেদনে ভারতের ক্ষমতাসীন দলটির বিরুদ্ধে মমতার এমন অভিযোগের কথা জানানো হয়েছে।

শুক্রবার পশ্চিমবঙ্গের এক নির্বাচনী প্রচারণা সভায় মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বলেন, ‘ভোটের আগে রাত জেগে পাহারা দিতে হবে। বিজেপি বাক্স ভর্তি করে বাংলায় টাকা ঢোকাচ্ছে।’

প্রমাণ হিসাবে গত বৃহস্পতিবার রাতে পশ্চিমবঙ্গের বিজেপি প্রার্থী ভারতী ঘোষের বিরুদ্ধে ‘অবৈধ’ টাকা রাখার বিষয়টি সামনে নিয়ে আসেন তিনি।

শুক্রবার অভিযুক্ত এই বিজেপি নেতার নাম উল্লেখ না করে অশোকনগরের নির্বাচনী সভায় মমতা বলেন, ‘বৃহস্পতিবার দেখেছেন কয়েক কোটি টাকা নিয়ে ধরা পড়েছে এক বিজেপির এক প্রার্থী। এ খবর মিডিয়ায় এসেছে। ভোটের আগে সমাজের দুষ্কৃতিকারীদের সেই টাকা দিয়ে বলা হচ্ছে, ভোট দখল করো। গরিব লোককে খাওয়াও। এটাই তাদের নির্বাচন?’

ক্ষমতাসীন দল হওয়ার কারণে বিজেপি বিশেষ সুবিধা ও নিরাপত্তা পাচ্ছে বলে এসব টাকা পাচারের মাধ্যমে নির্বাচনী প্রচারণা চালাচ্ছে বলে অভিযোগ মমতার।

বিজেপির প্রার্থীরা তাদের নিরাপত্তার জন্য দেয়া অতিরিক্ত গাড়ি ব্যবহার করছেন বলে অভিযোগ করেন মমতা।

তিনি বলেন,‘পশ্চিমবঙ্গের একাধিক বিজেপি নেতা জেট প্লাস এবং ওয়াই প্লাস নিরাপত্তা পান। এমন নিরাপত্তা পাওয়ার সুবাদে তাদের সঙ্গে অতিরিক্ত গাড়ি থাকে। সেই গাড়িতে করেই বাক্স ভর্তি টাকা পাচার করা হয়।’

দেশের সাংবাদিকরা নরেন্দ্র মোদির কাছেও ঘেঁষতে পারে না জানিয়ে তিনি বলেন, ‘আমরা কোথাও সভা করতে গেলে সাংবাদিকরা অনবরত ছবি তুলতে পারেন। লুকানোর কিছুই থাকে না। কিন্তু মোদি যখন হেলিকপ্টার থেকে নামেন, সাংবাদিকদের তার ত্রিসীমানাতেও ঢুকতে দেয়া হয় না। কেউ ছবি তুলতে পারেন না। এরপরও তার হেলিকপ্টার থেকে ট্রাঙ্ক নামছে বলে ছবি প্রকাশ হয়ে গিয়েছিল।’



আমার বার্তা/১১ মে ২০১৯/রিফাত


আরো পড়ুন