শিরোনাম :

  • ডিজিটাল বাংলাদেশ দিবস আজ কেরানীগঞ্জের অগ্নিকাণ্ড : নিহতের সংখ্যা বেড়ে ৯ ইরানের ওপর নতুন মার্কিন নিষেধাজ্ঞা নাইজারে সেনা ক্যাম্পে হামলায় নিহত ৭১
৩০ বছর পর দেখা মিলল ‘ইঁদুর-হরিণ’ প্রাণীর
আন্তর্জাতিক ডেস্ক :
১৪ নভেম্বর, ২০১৯ ১১:৩৮:২২
প্রিন্টঅ-অ+


দেখতে অনেকটা হরিণের মতো কিন্তু প্রাণীটি আসলে একটি ইঁদুর। এমন অদ্ভুত-দর্শন প্রাণীর দেখা মিলল ভিয়েতনামের উত্তর-পশ্চিম দিকের একটি জঙ্গলে।

সেই প্রাণীটির ভিডিও ধারণ করেছে ওই বনের কর্মকর্তারা। তা দ্য গার্ডিয়ানসহ বিভিন্ন আর্ন্তজাতিক গণমাধ্যমে প্রকাশ পেয়েছে।

সেই সুবাদে সোশ্যাল মিডিয়ায়ও ভাইরাল হয়েছে এই ইঁদুর-হরিণ মিশ্রণের আজব প্রাণীর।

ভিডিওতে দেখা গেছে, ছোট হরিণের মতো দেখতে প্রাণীটি খরগোশের আকারের। বনের পড়ে থাকা শুকনো পাতার ফাঁকে খাবারের সন্ধান করছে সে।

গত সোমবার (১১ নভেম্বর) 'নেচার ইকোলজি অ্যান্ড ইভলিউশন’ এই প্রাণিটিকে নিয়ে একটি প্রবন্ধ প্রকাশ করেছে। সেখানে প্রাণী বিশেষজ্ঞরা এই অদ্ভুত-দর্শন প্রাণিটির নাম দিয়েছেন রুপোলি পিঠের শেভ্রোটাইন বা মাউস-ডিয়ার, বাংলায় ইঁদুর-হরিণ।

তারা বলছেন, এ প্রাণীটি বিরল প্রজাতির ও বিলুপ্তির পথে। চোরা শিকারীদের কারণেই প্রাণীটি বিলুপ্তি হচ্ছে বলে অভিযোগ করেন তারা। প্রায় ৩০ বছর আগে একই জঙ্গলে এর দেখা মিলেছিল। শেষ বার এটি ১৯৯০ সালে দেখা গিয়েছিল বলে জানান তারা।

১৯১০ সালে প্রথমবার দেশটির হোচিমিন সিটি থেকে ৪৫০ কিলোমিটার দূরে নেহ ট্র্যাংয়ের কাছে একটি বনাঞ্চলে এই মাউস-ডিয়ার দেখা মেলে।

এরপর পেরিয়ে যায় ৮০ বছর। এই কয়েক যুগের মধ্যে কোনো আলোচনাতেই আসেনি প্রাণীটি। একে কেউ দেখেনি। কিন্তু ১৯৯০ সালে হঠাৎ ভিয়েতনামেই দেখা মেলে এমন একটি প্রাণীর।

তবে ওই বনের বাসিন্দারা জানিয়েছেন, বিজ্ঞানীদের চোখে ধরা না দিলেও তাদের কেউ কেউ ইঁদুর-হরিণ প্রাণীটি দেখেন। জঙ্গলে এর অস্তিত্ব টের পান তারা।

তবে জঙ্গলের অধিবাসীদের এমন দাবির প্রমাণ পাননি প্রাণী বিজ্ঞানীরা। তাদের কথা মাথায় রেখেই ভিয়েতনামের দুই প্রাণী বিজ্ঞানী এই মাউস-ডিয়ারের সন্ধানে নামেন। অধিবাসীদের কথামতো জঙ্গলের যেই অঞ্চলে তাদের বসবাস রয়েছে সেখানে ৩০টি মোশান-অ্যাক্টিভ ক্যামেরা বসান তারা। ব্যর্থ হননি এ দুই বিজ্ঞানী। সেসব ক্যামেরায় ধরা পড়ে এই বিরল প্রজাতির ইঁদুর-হরিণের ছবি।

ইঁদুর-হরিণ নামের এই প্রাণীর বসবাস ভিয়েতনাম ছাড়া আর কোথায় আছে কিনা তার খোঁজে নেমেছেন প্রাণী বিজ্ঞানীরা।



আমার বার্তা/ ১৪ নভেম্বর ২০১৯/রিফাত


আরো পড়ুন