শিরোনাম :

  • ‘রেড জোন’ ওয়ারীতে লকডাউন শুরু যেসব অঞ্চলে ঝড়-বৃষ্টি হতে পারে আজ পিআরএলে থাকা যুগ্মসচিবের করোনায় মৃত্যু ইইউ রেমডেসিভির ব্যবহারের ছাড়পত্র দিল
হজ নিয়ে সৌদি আরবের সিদ্ধান্তের অপেক্ষায় মুসলিম দেশগুলো
আমার বার্তা ডেস্ক:
০৭ জুন, ২০২০ ১২:০২:৫২
প্রিন্টঅ-অ+
ছবি :সংগৃহীত




করোনাভাইরাসের কারণে হজ্জ পালনে দেখা দিয়েছে অনিশ্চয়তা। তবে হজ নিয়ে সৃষ্ট অনিশ্চয়তা খুব দ্রুতই কাটবে বলে আশাবাদী সংশ্লিষ্টরা। করোনার কারণে গত ৩১ মার্চ হজ পালনেচ্ছুকদের পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে না আসা পর্যন্ত হজের সিদ্ধান্তের জন্য অপেক্ষা করতে বলেছিলেন দেশটির হজ ও উমরা বিষয়ক মন্ত্রী ড. মোহাম্মদ সালেহ বিন তাহের বেনতেন।

চাঁদ দেখা সাপেক্ষে ৩০ জুলাই (৯ জিলহজ) পবিত্র হজ অনুষ্ঠিত হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে। সাধারণত সৌদি আরব ১৫ শাওয়ালের পর থেকে উমরা ভিসা বন্ধ করে দিয়ে হজের প্রস্তুতি নিত। আর জিলকদ মাসের শুরু থেকে হজযাত্রীরা সৌদি আরব গমন শুরু করতেন। এবার করোনা দেখা দেওয়ার পর থেকে (২৭ ফেব্রুয়ারি) উমরা বন্ধ রয়েছে, তাই এবারের হিসাব ভিন্ন। কিন্তু বৃহস্পতিবার (৪ জুন, সৌদি আরবে শাওয়ালের ১২ তারিখ) পর্যন্ত স্পষ্ট কোনো ঘোষণা সৌদি কর্তৃপক্ষ দেয়নি হজ নিয়ে।

এদিকে সৌদি আরবে বসবাসকারী একাধিকসূত্রে জানা গেছে, স্পষ্ট কোনো ঘোষণা না দিলেও সৌদি আরব ভেতরে ভেতরে হজের প্রস্তুতি নিচ্ছেন। এক্ষেত্রে হজযাত্রীর সংখ্যা কমবে। সৌদিতে অবস্থানের সময়ও কমবে। করোনা পরিস্থিতির উন্নতি হয়েছে এমন দেশের নির্দিষ্ট নাগরিকরাই কেবল হজের অনুমতি পাবেন। আর মক্কা অঞ্চলকে এখনও কারফিউর আওতায় রাখা হয়েছে হজের প্রস্তুতির জন্যই।

বিভিন্ন দেশ সৌদি আরবের কাছে স্পষ্টভাবে জানতে চাচ্ছে হজের বিষয়ে। বেশিরভাগ দেশ হজের জন্য সৌদি আরবের সিদ্ধান্তের অপেক্ষায় রয়েছে। ইতোমধ্যে পাকিস্তান ও নাইজেরিয়া নিজ নিজ দেশের দূতাবাসের মাধ্যমে হজের সিদ্ধান্তের বিষয়ে জানতে চিঠি দিয়েছে। তারা বলছেন, করোনার প্রভাবে আশা জাগানিয়া কিংবা কঠোর ও বেদনাদায়ক যে ব্যবস্থাই নেওয়া হোক- সেটা আমরা মেনে নিতে প্রস্তুত। কিন্তু সেটা স্পষ্ট হওয়া চাই। এরই মধ্যে এ বছরের হজযাত্রা স্থগিত করেছে ইন্দোনেশিয়া ও সিঙ্গাপুর।

এ দিকে হজের বিষয়ে চলতি মাসের ১৫ তারিখের মধ্যে দেশটির সিদ্ধান্ত আসতে পারে বলে মনে করছেন ধর্ম প্রতিমন্ত্রী অ্যাডভোকেট শেখ মো. আব্দুল্লাহ। সম্প্রতি বিভিন্ন গণমাধ্যমে তিনি বলেন, আমরা আসন্ন হজের জন্য নিবন্ধনসহ সব ধরনের প্রস্তুতি নিয়ে বসে আছি। এ বছর বাংলাদেশসহ বহির্বিশ্বের হজযাত্রীরা হজপালন করতে পারবেন কি না তা নির্ভর করছে করোনা পরিস্থিতির ওপর। সব বিষয় বিবেচনা করে ওই সিদ্ধান্ত নেবে সৌদি সরকার। আশা করছি, এ ব্যাপারে তারা ১৫ জুনের মধ্যে সিদ্ধান্ত জানাবে। তাদের সিদ্ধান্ত পাওয়া মাত্রই বাংলাদেশ প্রয়োজনীয় কার্যক্রম শুরু করবে।এখন পর্যন্ত ৬৬ হাজার যাত্রী চলতি বছর হজের জন্য নিবন্ধন করেছেন বলেও জানান ধর্ম প্রতিমন্ত্রী।



আমার বার্তা/ ০৭ জুন,২০২০/এসএফসি


আরো পড়ুন