শিরোনাম :

  • নয়াপল্টনে বিএনপির নেতাকর্মীদের সঙ্গে পুলিশের সংঘর্ষ জবানবন্দিতে বুলুসহ ১৫ বিএনপি নেতার নাম পেয়েছে পুলিশ সেনা অভ্যুত্থানবিরোধী বিক্ষোভে উত্তাল সুদান, সংঘর্ষে নিহত ৭দুই ট্রাকের মুখোমুখি সংঘর্ষ, নিহত ২
ওজন নিয়ন্ত্রণে ওটস এর প্রয়োজনীয়তা
০৮ আগস্ট, ২০২১ ১২:৩১:২৪
প্রিন্টঅ-অ+

আপনি কি স্বল্প সময়ে বিনা পরিশ্রমে আপনার ওজন কমাতে চান ?তাহলে দেখে নিন ওটস সেবন আপনাকে কিভাবে সাহায্য করবে ,ওজন নিয়ন্ত্রণ করতে চাইলে নিয়মিত ওটস খাওয়া উপকারী। হেল্থ লাইন ডটকম’য়ে প্রকাশিত প্রতিবেদনে কানাডা’র পুষ্টিবিদ কেইটি ডেভিডসন বলেন, “ওজন কমানোর লক্ষ্য যাই হোক না কেনো, ওটমিল খাওয়ার সামান্য পরিবর্তন দেহের ওজন বাড়াতে বা কমাতে ভূমিকা রাখে।”


ওজন কমাতে চাইলে সঠিক ওটস বাছাই করা উচিত।


ডেভিডসনের মতে, গোল বা স্টিল কাট ওটস বাছাই করা যেতে পারে। ওটস যত কম প্রক্রিয়াজাত করা হবে তাতে আঁশের পরিমাণ তত বেশি ও শর্করার পরিমাণ তত কম থাকে। যা ওজন কমাতে সহায়ক। 


পরিমাপের দিকে খেয়াল রেখে সকালে ক্ষুধার্ত অবস্থায় পেট ভরে ওটস খেতে ইচ্ছা হতেই পারে। তবে ওজন নিয়ন্ত্রণে রাখতে চাইলে ওটস খাওয়ার আদর্শ মাপ অর্থাৎ শুকনা অবস্থায় আধা কাপের সমান পরিমাপের কথা মাথায় রাখতে হবে।


ডেভিডসন বলেন, “আধা কাপ ওটসে ১৫০ ক্যালরি  (রান্না করা হচ্ছে এমন পানীয় যেমন-দুধের ক্যালরি বাদে), পাঁচ গ্রাম প্রোটিন এবং চার গ্রাম আঁশ থাকে।”


অনেকে মুখের স্বাদের জন্য নানা রকমের ‘ফ্লেইভার’ যোগ করা ওটস খেয়ে থাকেন। এই ধরনের ওটসে বাড়তি প্রোটিন ও চিনি যোগ করা থাকে। তাই, কেনার আগে তা দেখে নেওয়া ভালো।


অন্যথায় এই চিনি রক্তের শর্করার ওপর প্রভাব ফেলে এবং দেহে শক্তি কমানোর পাশাপাশি ওজন বাড়াতে ভূমিকা রাখতে পারে বলে জানান, ডেভিডসন।   


ওটসের স্বাদ বাড়াতে যা যা দিতে পারেন‘ফ্লেইভার’য়ের প্রয়োজন হলে এতে দারুচিনির গুঁড়া বা সামান্য ভ্যানিলার এসেন্স যোগ করা যেতে পারে।


এছাড়াও, পুষ্টিমূল্য বাড়াতে নানা রকম ফল যেমন- কলা, আম ও বেরি এবং পছন্দের বাদাম বা এক চামচ প্রোটিন পাউডারও যোগ করা যেতে পারে বলে পরামর্শ দেন ডেভিডসন। ওটস এর পাশাপাশি সঠিক ডায়েট মেনে চললে দ্রুত ফলাফল মিলবে ,পুষ্টিকর খাদ্য অবশ্যই  থাকতে হবে আর অতিরিক্ত তেল, ঝাল, ফাস্ট ফুড মশলাযুক্ত খাবার থেকে দূরে থাকুন।


আমার বার্তা - মৌসুমী রায় 

আরো পড়ুন