শিরোনাম :

  • হাতিরঝিলে ভেসে উঠলো মরদেহ বিএনপি নেতা শামসুজ্জামান দুদুর বাড়িতে হামলা জাবি উপাচার্যকে পদত্যাগের জন্য আল্টেমেটাম রাজবাড়ীতে ট্রেনে কাটা পড়ে বৃদ্ধের মৃত্যু জাকির নায়েককে ভারতে ফেরত পাঠানোর সিদ্ধান্ত নেবে আদালত
রাজধানীতে ফিরছে মানুষ : বাস, ট্রেন ও লঞ্চ ঘাটে ভিড়
নিজস্ব প্রতিবেদক :
০৯ জুন, ২০১৯ ১৩:১০:০৭
প্রিন্টঅ-অ+


স্বজনদের সঙ্গে ঈদ উদযাপন শেষে কর্মস্থলে যোগদানের তাগিদে রাজধানীতে ফিরছেন মানুষ। ঈদের ছুটির সঙ্গে সাপ্তাহিক ছুটি মিলিয়ে টানা কয়েকদিনের ছুটি শেষ হয়েছে গতকাল শনিবার। আজ রোববার থেকেই শুরু হয়েছে সরকারি-বেসরকারি প্রতিষ্ঠানের কার্যক্রম। বাস টার্মিনাল, রেল স্টেশন ও লঞ্চ ঘাট ঢাকামুখী মানুষের পদচারণায় মুখরিত।

লঞ্চ, বাস ও ট্রেনের যাত্রীসেবা নিয়ে গুরুতর কোনো অভিযোগ করেননি যাত্রীরা। ফিরতি পথে ঝক্কি-ঝামেলা ছাড়াই ঢাকায় পৌঁছাতে পেরে দারুণ খুশি ঢাকাফেরত মানুষ।

সংশ্লিষ্টদের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, শুক্রবার বিকেল থেকেই রাজধানীতে ফিরতে শুরু করেছেন লোকজন। এর মধ্যে সর্বোচ্চ ভিড় দেখা যাচ্ছে আজ। আজ অনেকেই সকাল সকাল ঢাকায় ফিরে অফিসে যোগ দিচ্ছেন।

দক্ষিণাঞ্চলের বেশিরভাগ মানুষ রাজধানীতে ফিরছেন নৌপথে। দেশের অন্যান্য অঞ্চলের মানুষ ফিরছেন সড়ক এবং রেলপথে। রেলপথ ও মহাসড়কে যানজট, ভোগান্তি না থাকায় যাত্রীরা স্বস্তির কথা জানিয়েছেন। তবে নৌপথে যারা ফিরেছেন তাদের অনেকেই ঢাকার টার্মিনাল থেকে ঘরে পৌঁছাতে ভোগান্তিতে পড়ার অভিযোগ করেছেন। অধিকাংশ রিকশা, সিএনজি ও বাস বাড়তি ভাড়া আদায় করছেন বলে অভিযোগ যাত্রীদের।

গাবতলী বাসস্ট্যান্ডে গিয়ে দেখা গেছে, সকাল থেকেই মানুষ ভর্তি করে একে একে আসছে দূরপাল্লার বাস। কোনোটাতেই আসন ফাঁকা নেই। অনেকে বাসের মধ্যে দাঁড়িয়ে বা ড্রাইভারের পাশে বসে ফেরেন। পরিবহনকর্মীরা জানান, সরকারি কর্মচারীরা আজ অফিস করবেন। সে কারণে রাতের গাড়িগুলোতে বেশি ভিড় ছিল।

আবার কমলাপুর রেল স্টেশনেও ঠিক একই রকম ভিড় লক্ষ করা গেছে। ঈদ উপলক্ষে রেলের অগ্রিম টিকিট বিক্রির সময় যারা ৩১ মে টিকিট সংগ্রহ করেছিলেন তারা আজ ট্রেনে ঢাকায় ফিরছেন। বিমানবন্দরে থামা ট্রেনগুলো থেকে বিপুলসংখ্যক যাত্রী নামেন। কমলাপুরেও ছিল একই চিত্র। সকাল থেকে দেশের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে আসা দূরপাল্লার প্রতিটি ট্রেনই ছিল রাজধানীতে ফেরা মানুষের ভিড়।

কমলাপুর স্টেশনের ভারপ্রাপ্ত স্টেশন ম্যানেজার সীতাংশু চক্রবর্তী বলেন, ট্রেনে করে ঢাকায় ফেরা এবং ঢাকা থেকে বিভিন্ন গন্তব্যে যারা যাচ্ছেন তাদের কাছ থেকে কোনো ভোগান্তির অভিযোগ শোনা যায়নি। আসা এবং যাওয়া উভয় দিকের যাত্রীদের চাপ প্রায় সমান ছিল।

পরিবহন সংশ্লিষ্টরা জানিয়েছেন, ঢাকায় ফেরার চাপ এই সপ্তাহ পর্যন্ত থাকবে। তবে এখনো অনেক মানুষ ঢাকা ছেড়ে যাচ্ছেন। এদের অনেকে বাড়ি ফিরছেন আবার অনেকে ঘুরতে বিভিন্ন দর্শনীয় স্থানে যাচ্ছেন।

এদিকে ঈদ উপলক্ষে বাড়ি যাওয়া ও রাজধানীতে ফেরার জন্য যানজট নিরসনে ঈদের আগের তিন দিন ও পরের তিন দিন সব মহাসড়কে ট্রাক, কাভার্ড ভ্যান ও লরি চলাচল বন্ধ থাকে। সড়কে খোঁড়াখুঁড়িও বন্ধ।



আমার বার্তা/০৯ জুন ২০১৯/জহির



 


আরো পড়ুন