শিরোনাম :

  • রোকেয়ার আদর্শে উজ্জীবিত হয়ে নারীরা বঙ্গবন্ধুর সোনার বাংলা গড়বে : প্রধানমন্ত্রী নারীর ক্ষমতায়নে বাংলাদেশ বিশ্বে রোল মডেল : রাষ্ট্রপতি বেগম রোকেয়া দিবস আজ উগ্রবাদবিরোধী জাতীয় সম্মেলন শুরু হচ্ছে আজ
নবদিগন্তের উন্মোচন করেছেন প্রধানমন্ত্রী : স্পিকার
নিজস্ব প্রতিবেদক :
১০ জুলাই, ২০১৯ ১৮:১৯:০৩
প্রিন্টঅ-অ+


জাতীয় সংসদের স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরী বলেছেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ডিজিটাল বাংলাদেশ উপহার দিয়ে এক নবদিগন্তের উন্মোচন করেছেন। এই ডিজিটাল রূপান্তরের মূল কারিগর জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের সুযোগ্য দৌহিত্র ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তিবিষয়ক উপদেষ্টা, ডিজিটাল বাংলাদেশের স্থপতি সজীব ওয়াজেদ জয়।

মাত্র ১০ বছরে ডিজিটাল সেবার সুফল ভোগ করছে সমগ্র দেশের জনগণ উল্লেখ করে তিনি বলেন, মেধাভিত্তিক জ্ঞাননির্ভর সমাজ গঠনে অবদান রাখছে ডিজিটালাইজেশন। তথ্যপ্রযুক্তি নির্ভর দক্ষ মানব সম্পদই উন্নত বাংলাদেশের মূল চালিকাশক্তি হবে।

বুধবার বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে জাতীয় সংসদ আয়োজিত ‘ডিজিটাল বাংলাদেশ : সমৃদ্ধির অগ্রযাত্রায় তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি’ শীর্ষক কর্মশালায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেন তিনি। কর্মশালায় মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তিবিষয়ক উপদেষ্টা সজীব ওয়াজেদ জয়। স্বাগত বক্তব্য দেন কর্মশালার সভাপতি ও বাংলাদেশ জাতীয় সংসদ সচিবালয়ের সিনিয়র সচিব ড. জাফর আহমেদ খান। বিশেষ অতিথির বক্তব্য দেন বাংলাদেশ জাতীয় সংসদের ডেপুটি স্পিকার মো. ফজলে রাব্বী মিয়া, চিফ হুইপ নূর-ই-আলম চৌধুরী এবং তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক।

স্পিকার বলেন, ডিজিটাল বাংলাদেশ গড়ে তোলার পাশাপাশি ডিজিটাল নেতৃত্ব গড়ে তুলতে সংসদ সদস্যদের তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিষয়ে প্রশিক্ষণ আয়োজন করেছে বাংলাদেশ জাতীয় সংসদ। ডিজিটাল বাংলাদেশ বিনির্মাণে সংসদ সদস্যদের নিজ নিজ অবস্থান থেকে সম্পৃক্ত হয়ে ভূমিকা রাখার আহ্বান জানান তিনি।

ড. শিরীন শারমিন চৌধুরী বলেন, গত ১০বছরে বাংলাদেশ ডিজিটালাইজডসহ বিভিন্ন ক্ষেত্রে অভাবনীয় উন্নয়ন অর্জন করেছে। দারিদ্র্যের হার ৪০ শতাংশ থেকে ২১ শতাংশে নেমে এসেছে। ৫ হাজার ইউনিয়ন ডিজিটাল সেন্টার প্রতিষ্ঠা, বিদ্যুৎ সুবিধা ২৭ শতাংশ থেকে বেড়ে ৯০ শতাংশে বৃদ্ধি, ইন্টারনেট সুবিধা ০.৪ শতাংশ থেকে বৃদ্ধি পেয়ে ৬০ শতাংশে উন্নীত হয়েছে। তৃণমূলে আইসিটি সুবিধা পৌঁছে দেয়ার ফলে জনগণের জীবনমানে উল্লেখযোগ্য পরিবর্তন এসেছে।

তিনি বলেন, সুশাসন ও জবাবদিহি নিশ্চিত করতে আইসিটির জ্ঞান ও ব্যবহার খুবই গুরুত্বপূর্ণ। জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বেতবুনিয়ায় ভূ-উপগ্রহ কেন্দ্র স্থাপনের মাধ্যমে মহাকাশ জয়ের যে স্বপ্ন দেখিয়েছিলেন বঙ্গবন্ধু কন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও বঙ্গবন্ধুর সুযোগ্য দৌহিত্র সজীব ওয়াজেদ জয়ের প্রচেষ্টায় ‘বঙ্গবন্ধু-১ স্যাটেলাইট’ উৎক্ষেপণের মাধ্যমে সেই স্বপ্নের বাস্তবায়িত হয়েছে।

একাদশ জাতীয় সংসদের সংরক্ষিত নারী আসনের সংসদ সদস্য রুশেমা বেগমের মৃত্যুতে অনুষ্ঠানের শুরুতে ১ মিনিট নীরবতা পালন করা হয়। কর্মশালায় মন্ত্রী-প্রতিমন্ত্রী, উপমন্ত্রী, সংসদ সদস্য এবং জাতীয় সংসদ সচিবালয়ের সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।



আমার বার্তা/১০ জুলাই ২০১৯/জহির


আরো পড়ুন