শিরোনাম :

  • ডিজিটাল বাংলাদেশ দিবস আজ কেরানীগঞ্জের অগ্নিকাণ্ড : নিহতের সংখ্যা বেড়ে ৯ ইরানের ওপর নতুন মার্কিন নিষেধাজ্ঞা নাইজারে সেনা ক্যাম্পে হামলায় নিহত ৭১
ব্র্যাকের চেয়ারপারসন পদ থেকে অবসরে ফজলে হাসান আবেদ
নিজস্ব প্রতিবেদক :
০৭ আগস্ট, ২০১৯ ১২:২৭:৪০
প্রিন্টঅ-অ+


বেসরকারি উন্নয়ন সংস্থা ব্র্যাকের চেয়ারপারসন পদ থেকে স্যার ফজলে হাসান আবেদ অবসর নিয়েছেন। তবে প্রতিষ্ঠানটির ‘এমেরিটাস চেয়ারপারসন’ হিসেবে থাকছেন তিনি।

মঙ্গলবার (৬ আগস্ট) ব্র্যাকের ওয়েবসাইটে প্রকাশিত এক বিবৃতিতে এ তথ্য জানানো হয়েছে। এতে বলা হয়েছে, ফজলে হাসান আবেদের অবসরের পর ব্র্যাকের চেয়ারপারসনের পদে আসছেন সাবেক তত্ত্বাবধায়ক সরকারের উপদেষ্টা অর্থনীতিবিদ ড. হোসেন জিল্লুর রহমান। আর ব্র্যাক ইন্টারন্যাশনালের চেয়ারপারসন হিসেবে দায়িত্ব পালন করবেন জাতিসংঘের সাবেক আন্ডার সেক্রেটারি জেনারেল আমিরা হক।

বিবৃতিতে আরও বলা হয়েছে, ১৯৭২ সালে ৩৬ বছর বয়সে ব্র্যাক প্রতিষ্ঠা করেন ফজলে হাসান আবেদ। প্রতিষ্ঠার পর থেকে ২০০১ সাল পর্যন্ত তিনি সংস্থাটির নির্বাহী পরিচালকের দায়িত্ব পালন করেন। ৬৫ বছর বয়সে নির্বাহী পরিচালকের পদ থেকে অবসর নেয়ার পর তাকে চেয়ারপারসন নির্বাচিত করা হয়। পরবর্তীতে ব্র্যাক ইন্টারন্যাশনালের তত্ত্বাবধায়ক পর্ষদেরও চেয়ারপার্সন নির্বাচিত হন তিনি।

সম্প্রতি ব্র্যাকের নতুন নির্বাহী পরিচালক হিসেবে আসিফ সালেহকে নিযুক্ত করা হয়েছে। ইতোমধ্যে দায়িত্বভার গ্রহণ করেছেন তিনি। গত মে মাসে ব্র্যাক ইন্টারন্যাশনালের নির্বাহী পরিচালক হিসেবে ড. মুহাম্মদ মুসাকে নিযুক্ত করা হয়। সংস্থার সার্বিক ব্যবস্থাপনার দায়িত্ব পালন করছেন তারা।

ফজলে হাসান আবেদ বলেন, ‘গত কয়েক বছর ধরে ব্র্যাকে আমার পরবর্তী নেতৃত্ব নিয়ে অনেক ভেবেছি এবং সেভাবে প্রস্তুতি নিয়েছি। এখন আমার বয়স ৮৩ বছর। ব্র্যাককে এগিয়ে নেয়ার কাজে যথাযোগ্য নেতৃত্ব নির্বাচনের বিষয়টি আমার সিদ্ধান্তের গুরুত্বপূর্ণ অংশ ছিল।’

তিনি আরও বলেন, ‘ব্র্যাক কখনোই কোনো ব্যক্তিকেন্দ্রিক প্রতিষ্ঠান ছিল না। আমি এর প্রতিষ্ঠাতা ঠিকই, কিন্তু প্রত্যয় ও কর্মনিষ্ঠা দিয়ে ব্র্যাকের সুদৃঢ় ভিত্তি ও সুনাম তৈরি করেছেন এর নিবেদিত কর্মীরা। এত বছর ধরে বাংলাদেশ সরকার, সমমনা ব্যক্তি ও প্রতিষ্ঠান, দাতাসংস্থা এবং সহযোগী প্রতিষ্ঠানসমূহের সঙ্গে কাজ করতে পেরে আমি গর্বিত ও কৃতজ্ঞ। আগামী দশ বছরে আমাদের কাজের প্রভাব পৃথিবীর আরও বেশি মানুষের মধ্যে ছড়িয়ে দিতে চাই। আমি স্বপ্ন দেখি, ব্র্যাক আগামীতে আরও বড় হয়ে উঠবে, নতুন উদ্ভাবন চালিয়ে যাবে, নতুন দিনের প্রয়োজনে নতুন সমাধান নিয়ে এগিয়ে আসবে।’

ব্র্যাকের বিদায়ী পরিচালনা পর্ষদে ছিলেন মুশতাক চৌধুরী, তাহেরুন্নেসা আবদুল্লাহ, লতিফুর রহমান, রোকিয়া আফজাল রহমান, লুভা নাহিদ চৌধুরী, মার্থা আলটার চেন, আদিব এইচ খান, সৈয়দা রিজওয়ানা হাসান ও সৈয়দ এস কায়সার কবির।

এদিকে ব্র্যাক ইন্টারন্যাশনালের বিদায়ী পরিচালনা পর্ষদে ছিলেন সিলভিয়া বোরেন, শাবানা আজমী, দেবপ্রিয় ভট্টচার্য্য, শফিকুল হাসান কায়েস, আইরিন জুবাইদা খান, পারভিন মাহমুদা, মুশতাক চৌধুরী, ফওজিয়া রশিদ, ভিক্টোরিয়া সেকিটোলেকো ও মারিলো ফন গোলস্টেইন।



আমার বার্তা/০৭ আগস্ট ২০১৯/জহির


আরো পড়ুন