শিরোনাম :

  • ড. কালাম স্মৃতি পদক গ্রহণ করলেন প্রধানমন্ত্রী বিকেলে রাজহংস উদ্বোধন করবেন প্রধানমন্ত্রী অবশেষে মাঠে নামতে যাচ্ছেন মেসি! ভিকারুননিসার নতুন অধ্যক্ষের বৈধতা নিয়ে রিটের আদেশ আজ বছিলায় জঙ্গি আস্তানায় অভিযান : তদন্ত প্রতিবেদন দাখিল ১৭ অক্টোবর
প্লাস্টিকের গ্যাস লাইনে দ্রুত ছড়ায় মিরপুর বস্তির আগুন
নিজস্ব প্রতিবেদক :
১৭ আগস্ট, ২০১৯ ১৪:২৮:৫১
প্রিন্টঅ-অ+


রাজধানী আবাসিক এলাকাতেই আগুন লাগলে বেগ পেতে হয় ফায়ার সার্ভিসকে। অগ্নিনির্বাপন ব্যবস্থা না থাকা ও সরু গলি কিংবা পানির পর্যাপ্ত না থাকার কারণে। সেখানে বস্তিগুলোর অবস্থা সহজেই অনুমেয়। অব্যবস্থাপনায় জর্জরিত রাজধানীর বস্তিগুলোতে অগ্নিঝুঁকি সর্বোচ্চ বলেই জানিয়েছেন সংশ্লিষ্টরা।

রাজধানীর বিভিন্ন বস্তিতে বিভিন্ন সময় অগ্নিকাণ্ডের ঘটনাতে তা স্পষ্ট হয়েছে। রুপনগর মোড়ের চলন্তিকা বস্তিতে আগুন লাগার পর প্রকট অব্যবস্থাপনা আরো স্পষ্ট হয়েছে।

ফায়ার সার্ভিস বলছে, পানি সংকটের পাশাপাশি সরু গলির কারণে ফায়ার সার্ভিসের গাড়ি ঘটনাস্থলে পৌঁছাতে পারেনি। অনেক দূর থেকে পাইপের মাধ্যমে পানি ছিটানো হয়েছে। পুরো এলাকায় প্লাস্টিকের পাইপের মাধ্যমে গ্যাস সরবরাহ করা হচ্ছিল। আগুন লাগার পর পাইপগুলো গলে আগুনের তীব্রতা বৃদ্ধি পায় এবং মুহূর্তেই পুরো এলাকায় ছড়িয়ে পড়ে। আগুন ৩০/৪০ ফুট উপরে পর্যন্ত উঠে যায়। এরমধ্যে বেশ ক'টি গ্যাসের সিলিন্ডার ঝিলপাড়ের উপর গড়ে উঠা ওই বস্তিতে বিস্ফোরিত হয়।

শুক্রবার (১৬ আগস্ট) সন্ধ্যা সাড়ে সাতটার দিকে মিরপুরের চলন্তিকা মোড় সংলগ্ন ঝিলপাড় বস্তিতে অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা ঘটে। ফায়ার সার্ভিসের তোড়জোড় শুরুর মধ্যেই মুহূর্তেই ছড়িয়ে পড়ে আগুন।

দীর্ঘ তিন ঘণ্টা ধরে ২৪টি ইউনিটের প্রচেষ্টায় আগুন নিয়ন্ত্রণে আনতে সক্ষম হয় ফায়ার সার্ভিস। তবে রাত দেড়টার দিকে আগুন পুরোপুরি নির্বাপণ করা সম্ভব হয়েছে।

শনিবার (১৭ আগস্ট) ঘটনাস্থলে দেখা গেছে, বস্তির প্রায় সবগুলো ঘরই পুড়ে ছাই হয়ে গেছে। বাঁশের মাচার উপর বিশেষ ব্যবস্থায় ২-৩ তলা টিনের ঘরগুলোতে কিছুই পুড়তে বাকি নেই। আগুনের তীব্রতায় অনেক স্থানে টিন-লোহার আসবাবগুলোও বেঁকে গেছে।

ফায়ার সার্ভিসের তথ্য অনুযায়ী, সরেজমিনে বিভিন্ন স্থানে পোড়া প্লাস্টিকের পাইপের অবশিষ্ট অংশ পড়ে থাকতে দেখা গেছে। স্থানীয় বাসিন্দারাও প্লাস্টিকের পাইপে গ্যাস সরবরাহের কথা জানিয়েছেন।

বস্তির বাসিন্দা শফিকুল ইসলাম জানান, বস্তিতে তার সাতটি ঘর রয়েছে। এর মধ্যে দুইটি রান্নাঘর। যেখানে গ্যাসের চুল ছিল। পুরো এলাকাতেই প্লাস্টিকের পাইপের মাধ্যমে গ্যাস সরবরাহ করা হতো।

আগুন লাগার উৎপত্তিস্থলের বিষয়ে জানতে চাইলে তিনি বলেন, বস্তির উত্তর দিক থেকে আগুন লাগে। মুহূর্তের মধ্যেই আগুন পুরা এলাকায় ছড়িয়ে গেছে। কেমনে লাগছে তা সঠিক জানি না। আগুন লাগার খবরে সবাই জানডা লইয়া কোনোমতে বের হইছে। ঘরের কিছুই নিতে পারে নাই।

ফায়ার সার্ভিস অ্যান্ড সিভিল ডিফেন্স অধিদফতরের সহকারী পরিচালক রেজাউল করিম বলেন, বস্তির পুরো এলাকাতেই প্লাস্টিকের গ্যাস লাইন ছিল। যে কোনোভাবে আগুন লাগার পর প্লাস্টিকের গ্যাস লাইনগুলো গলে যায়। যে কারণে আগুন দ্রুত ছড়ায়।

আগুন নেভাতে প্রতিবন্ধকতার বিষয়ে জানতে চাইলে তিনি বলেন, প্রধান সমস্যা বস্তির এন্ট্রি পয়েন্ট একটা এবং সরু গলির কারণে বস্তি পর্যন্ত ফায়ার সার্ভিসের গাড়ি পৌঁছানো যায়নি। যার ফলে আগুন ছড়িয়ে পড়েছে। ঘরগুলো কাঁচা এবং ঘরগুলোর মধ্যে কোনো সেপারেশন ছিল না। আগুনে কাঠ আর বাঁশে তৈরি মাচাঘর ভেঙে পড়ে ঝিলে। ভেতরে ঢুকতে ঝিলে নামতে হয়েছিল ফায়ার কর্মীদের।



আমার বার্তা/১৭ আগস্ট ২০১৯/জহির


আরো পড়ুন