শিরোনাম :

  • বিশ্বকাপ বাছাইয়ের প্রথম ম্যাচেই সিঙ্গাপুরের চমক চট্টগ্রামের জহুর হকার্স মার্কেটে অগ্নিকাণ্ড হবিগঞ্জে কৃমিনাশক ওষুধ সেবনে বোনের মৃত্যু, দুই ভাই হাসপাতালে বৌদ্ধ ধর্মাবলম্বীদের ‘কঠিন চীবর দান’ উৎসব আজ ডি মারিয়ার জোড়া গোলে পিএসজির বড় জয়
শেষ দিনে পূজামণ্ডপে ভক্তরা
নিজস্ব প্রতিবেদক :
০৮ অক্টোবর, ২০১৯ ১৩:১২:৫৬
প্রিন্টঅ-অ+


এক এক করে শেষ দিনে এসে পৌঁছেছে হিন্দু সম্প্রদায়ের সব থেকে বড় উৎসব দুর্গা পূজা। শেষ দিনে দেবীকে শেষ দেখা দেখতে পুঁজামণ্ডপে ছুটে আসছেন ভক্তরা। তবে সবার মধ্যেই যে এক ধরনের বিষাদের ছায়া।

মঙ্গলবার (৯ অক্টোবর) সকালে রাজধানীর ঢাকেশ্বরী মন্দির গিয়ে দেখা যায়, ভক্তদের ভিড় তুলনামূলক কম। তবে সাড়ে ১১টার পর থেকে দেবীর ভক্তদের পদচারণা বাড়তে থাকে।

ধানমন্ডি থেকে মন্দিরটিতে দুর্গার মূর্তি দেখতে আসা অজিত কুমার বলেন, ‘আজ বিজয়া দশমী। আমাদের মা দুর্গা আজ আমাদের ছেড়ে চলে যাবেন। এতে মন খারাপ হওয়াটা স্বাভাবিক। মা আসায় কটা দিন খুব আনন্দে কেটেছে। পাঁচটি দিন কীভাবে কেটে গেল বুঝতে পারলাম না।’

তিনি বলেন, আজ সন্ধ্যায় মাকে বিসর্জন দেয়া হবে। তাই আজ বিকেলে মন্দিরে ভিড় সব থেকে বেশি হবে। তখন মার হাজার হাজার সন্তান উপস্থিত থাকবেন। মাকে সঙ্গে করে নিয়ে যাবেন বিসর্জনের জন্য।

ফার্মগেট থেকে আসা দিপালী রানী বলেন, ‘আজ মা আমাদের ছেড়ে মর্ত্য থেকে স্বর্গে ফিরে যাবেন। তবে আগামী বছর আবার আমাদের মাঝে ফিরে আসবেন মা। কিন্তু মাঝের একটা বছর মাকে দেখতে পাব না। তাই আজ মাকে শেষ দেখা দেখতে আসলাম। ভাগ্য ভালো হলে সামনের বছর আবার মাকে দেখতে পাব।’

তিনি বলেন, দশমীর মূল আয়োজন হয় সন্ধ্যায়। তাই বিকেল থেকে মন্দির মার সন্তানদের উপস্থিতিতে ভরে ওঠে। সকালে ভিড় কম থাকে। এজন্য সকালে এসে মাকে দেখে যাচ্ছি। কারণ ভিড়ের মধ্যে চলাচল করা কিছুটা হলেও কষ্টকর।

পরিবার নিয়ে পূজামণ্ডপে আসা জিতেন বলেন, ‘মা আসায় গত কয়েকটা দিন আমাদের বেশ উৎসব আনন্দে কেটেছে। আজ এক বছরের জন্য মা আমাদের ছেড়ে চলে যাবেন। তাই পরিবারের সবাই মিলে মাকে দেখতে এবং আর্শীবাদ নিতে এসেছি। তাদের বাসায় রেখে আমি বিকেলে আবার আসব। বিসর্জনে মার পিছুপিছু যাব।’



আমার বার্তা/০৮ অক্টোবর ২০১৯/জহির


আরো পড়ুন