শিরোনাম :

  • আজ পবিত্র শবে বরাত শবে বরাতে নিজ নিজ ঘরে বসে আল্লাহর ইবাদত করি : রাষ্ট্রপতি সৌভাগ্যের রজনী মানবজাতির জন্য শান্তি-সমৃদ্ধি বয়ে আনুক : প্রধানমন্ত্রী সৌদি আরবের রাষ্ট্রদূত হচ্ছেন জাবেদ পাটোয়ারী
চুড়িহাট্টার আগুন : এখনও পরিচয় মেলেনি ৩ জনের
নিজস্ব প্রতিবেদক :
১৯ ফেব্রুয়ারি, ২০২০ ১৭:১৩:০৪
প্রিন্টঅ-অ+


রাজধানী চকবাজারের চুড়িহাট্টায় ভয়াবহ অগ্নিকাণ্ডে নিহত ৬৭ জনের ময়নাতদন্তের চূড়ান্ত প্রতিবেদন প্রস্তুত করেছে ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালের ফরেনসিক বিভাগ। যেকোনো সময় পুলিশের কাছে এ প্রতিবেদন হস্তান্তর করা হতে পারে।

বুধবার (১৯ ফেব্রুয়ারি) ঢামেক হাসপাতালের ফরেনসিক বিভাগের বিভাগীয় প্রধান সহযোগী অধ্যাপক ডাক্তার সোহেল মাহমুদ সাংবাদিকদের এসব কথা জানান।

তিনি জানান, অগ্নিকাণ্ডে নিহত ৬৭ জনের ময়নাতদন্ত সম্পন্ন হয়েছে। এর মধ্যে প্রথম পর্যায়ে শনাক্ত হয়েছিল ৪৫ জন। বাকি ২২ জনের ডিএনএ প্রোফাইলিং করা হয়, এর মাধ্যমে ১৯ জনকে শনাক্ত করা হয়। বাকি তিন জনকে এখনো শনাক্ত করা সম্ভব হয়নি।

সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে তিনি জানান, যারা এখনো তাদের স্বজনকে পাননি তারা ডিএনএ নমুনা দিয়ে যায়নি। নমুনা দিয়ে গেলে ডিএনএ প্রোফাইলিংয়ের মাধ্যমে শনাক্ত করা হবে।

এত বড় ভয়াবহ ঘটনার ময়নাতদন্তের প্রতিবেদন দেরিতে দেয়া হচ্ছে কেন? জবাবে তিনি বলেন, 'আমরা টিমওয়াইজ করে ময়নাতদন্ত সম্পন্ন করি। এর মধ্যে ডিএনএর স্যাম্পল (নমুনা) সংগ্রহ করে এগুলো সিআইডিতে পাঠানো হয়, ওই সব রিপোর্ট আসতে দেরি হওয়ায় এবং ময়নাতদন্তকারী টিমের কারও কারও বদলি হওয়ার কারণে রিপোর্ট প্রস্তুত হতে দেরি হয়েছে।'

তিনি আরও বলেন, 'আমরা গত সপ্তাহে ডিএনএ রিপোর্ট পেয়েছি, তাই ময়নাতদন্তের প্রতিবেদন প্রস্তুত হতে কিছুটা সময় লেগেছে।'

উল্লেখ্য, ২০১৯ সালের ২০ ফেব্রুয়ারি রাজধানীর চকবাজারের চুড়িহাট্টায় ওয়াহেদ ম্যানশনে ভয়াবহ অগ্নিকাণ্ড ঘটে। রাত পৌনে ১১টার দিকে আগুনের সূত্রপাত হয়। এরপর একাধিক সিলিন্ডার বিস্ফোরণ ঘটতে থাকে। জানা যায়, সেখানে কেমিক্যালের গোডাউন থাকায় আগুন বেপরোয়া হয়ে ওঠে। এ অগ্নিকাণ্ডে ৬৭ জন নিহত হন। আহত হন অনেকেই।



আমার বার্তা/১৯ ফেব্রুয়ারি ২০২০/জহির


আরো পড়ুন