শিরোনাম :

  • ঝিলপাড়ে শুধুই আহাজারি ১ হাজার ৯৪২ জন হাজি দেশে ফিরেছেন ভিএআর কেড়ে নিলো ম্যানসিটির জয় বিমানের ফিরতি হজ ফ্লাইট শেষ হবে ১৫ সেপ্টেম্বর টানা ১১ জয়ে রেকর্ডে ভাগ বসাল লিভারপুল
প্রতিটি জেলা শহরে ডেঙ্গু চিকিৎসার ব্যবস্থা করতে হবে : জি এম কাদের
নিজস্ব প্রতিবেদক :
০৭ আগস্ট, ২০১৯ ১৬:০৩:৫০
প্রিন্টঅ-অ+


জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান জিএম কাদের বলেছেন, অনেক জেলায় ডেঙ্গু চিকিৎসার ব্যবস্থা নেই। এতে পরিস্থিতি আরও অবনতির আশঙ্কা রয়েছে। সব জেলা শহরে ডেঙ্গু চিকিৎসার কিট সরবরাহ করতে হবে।

তিনি বলেন, সাধারণ মানু্ষের মধ্যে যেভাবে সচেতনতা বৃদ্ধি করা দরকার ছিল, সেটি করতে ব্যর্থ হয়েছে সরকার। কার্যকর ব্যবস্থা নিতে ব্যর্থ হয়েছে। আমরা রাজনীতিবিদ, ডাক্তার নই। আমরা সরকারকে ব্যবস্থা নিতে বাধ্য করতে পারি।

বুধবার জাতীয় প্রেস ক্লাবের সামনে ডেঙ্গু নির্মূলে গণসচেতনা সৃষ্টির লক্ষ্যে জাতীয় পার্টি আয়োজিত মানববন্ধনে তিনি এ মন্তব্য করেন।

কাদের বলেন, প্রতিটি জেলা শহরে ডেঙ্গু চিকিৎসার ব্যবস্থা করতে হবে। দেশের প্রতিটি হাসপাতালে ডেঙ্গু পরিক্ষার ব্যবস্থা করতে হবে। প্রত্যন্ত অঞ্চলের প্রতিটি হাসপাতালে ডেঙ্গু রোগীদের শরীরে রক্তের প্লাটিলেট দেয়ার যন্ত্রপাতি নিশ্চিত করতে হবে।

তিনি বলেন, আমি বছর দশেক আগে রংপুরে অবস্থানকালে ডেঙ্গুতে আক্রান্ত হয়েছিলাম। তখন আমাকে চিকিৎসার জন্য ঢাকায় পাঠানো হয়েছিল। ডেঙ্গু পরিস্থিতি ভয়াবহ আকার ধারণ করেছে। মৃত্যুর সংখ্যা আরও বাড়ার শঙ্কা করা হচ্ছে।

জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান বলেন, বেসরকারি হাসপাতালের সঙ্গে আলোচনা করে ফ্রি ডেঙ্গুর চিকিৎসার ব্যবস্থা করুণ। এমন হতে পারে তারা ফ্রি চিকিৎসা দেবে খরচ বাবদ টাকা দেবে সরকার। শুধু সরকারি হাসপাতালে চিকিৎসা নিশ্চিত করা সম্ভব হচ্ছে না।

সাধারণ জনগণের প্রতি আহ্বান জানিয়ে তিনি বলেন, এই রোগে রক্তের প্রয়োজন পড়ে। আপনাদের যার যেখানে যেভাবে রক্ত দেয়া প্রয়োজন, সেভাবে রক্ত দিন। মানুষের পাশে দাঁড়ান, জনগণকে সচেতন করুন।

কাদের বলেন, প্রতিটি বেসরকারি হাসপাতালের সাথে সরকার চুক্তি করতে পারে। প্রতিটি ডেঙ্গু জ্বরে আক্রান্ত রোগীদের চিকিৎসাবাবদ বেসরকারি হাসপাতাল ও ক্লিনিককে সরকারিভাবে সব খরচ দিতে হবে।

তিনি অভিযোগ করে বলেন, সঠিক সময়ে এডিস মশা নির্মূলে কার্যকর ব্যবস্থা নিতে ব্যর্থ হয়েছে দুই সিটি কর্পোরেশন। সাধারণ মানুষের মাঝে ডেঙ্গু সচেতনতা সৃষ্টিতেও ব্যর্থ হয়েছে তারা। তাই দেশে ডেঙ্গু পরিস্থিতি এখন ভয়াবহ রূপ নিয়েছে। মশা নিধনে যে ব্যবস্থা নেয়া হয়েছে তা অকার্যকর প্রমাণ হয়েছে।

কাদের বলেন, প্রতিদিন ডেঙ্গু জ্বরে আক্রান্ত হচ্ছে মানুষ, প্রতিদিন মারাও যাচ্ছে আক্রান্তরা। তাই মানুষ এখন মশা দেখলেই আতঙ্কিত হয়ে পড়ে। পরিবারের কাউকে মশায় কামড়ালে আতঙ্কিত হয়ে পড়ে পুরো পরিবার।

জাপা চেয়ারম্যান বলেন, এখনই কার্যকর উদ্যোগ নিতে না পারলে ডেঙ্গু পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণের বাইরে চলে যেতে পারে। তিনি জাতীয় পার্টির নেতা-কর্মীদের প্রতি নির্দেশ দিয়ে বলেন, প্রতিটি দুর্যোগে সাধারণ মানুষের পাশে থাকতে হবে। এছাড়া প্রয়োজনে ডেঙ্গু আক্রান্ত রোগীদের রক্ত দিয়ে সহায়তা করতেও জাতীয় পার্টির নেতা-কর্মীদের প্রতি আহ্বান জানান গোলাম মোহাম্মদ কাদের।

মানববন্ধন কর্মসূচিতে আরও উপস্থিত ছিলেন জাতীয় পার্টির প্রেসিডিয়াম সদস্য সাহিদুর রহমান টেপা, হাজী সাইফুদ্দিন আহমেদ মিলন, আলমগীর শিকদার লোটন, ভাইস চেয়ারম্যান ইকবাল হোসেন রাজু, জহিরুল আলম রুবেল প্রমুখ। মানববন্ধন শেষে প্রেস ক্লাব এলাকায় সচেতনতা লিফলেট বিতরণ করেন জিএম কাদেরসহ জাপার নেতাকর্মীরা।



আমার বার্তা/০৭ আগস্ট ২০১৯/জহির


আরো পড়ুন