শিরোনাম :

  • বিশ্বকাপ বাছাইয়ের প্রথম ম্যাচেই সিঙ্গাপুরের চমক চট্টগ্রামের জহুর হকার্স মার্কেটে অগ্নিকাণ্ড হবিগঞ্জে কৃমিনাশক ওষুধ সেবনে বোনের মৃত্যু, দুই ভাই হাসপাতালে বৌদ্ধ ধর্মাবলম্বীদের ‘কঠিন চীবর দান’ উৎসব আজ ডি মারিয়ার জোড়া গোলে পিএসজির বড় জয়
দেশে ক্যাসিনো সংস্কৃতি চালু করেছে বিএনপি : মতিয়া
নিজস্ব প্রতিবেদক :
২৮ সেপ্টেম্বর, ২০১৯ ১৬:০৪:৪৮
প্রিন্টঅ-অ+


আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য বেগম মতিয়া চৌধুরী বলেছেন, বিএনপি নেতারা কোন মুখে বলেন ক্যাসিনো আওয়ামী লীগের সংস্কৃতি। এগুলো বিএনপির সংস্কৃতি।

শনিবার রাজধানীর রমনা ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিউশনের সেমিনার কক্ষে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ৭৩তম জন্মদিন উপলক্ষে দুস্থ অসহায় ও সুবিধা বঞ্চিতদের মাঝে সেলাই মেশিন বিতরণ অনুষ্ঠানে তিনি একথা বলেন। আওয়ামী লীগের ত্রাণ ও সমাজকল্যাণ উপ-কমিটি এ আয়োজন করে।

বিএনপির সমালোচনা করে মতিয়া বলেন, তাদের (বিএনপি) জানের জান, পরানের পরান, তাদের নেতা তারেক রহমানের আয়ের উৎস ক্যাসিনো। লন্ডনে নানান ধরনের অপকর্মের টাকা ঢাকার একটা সুবিধা আছে। সেই সুবিধা নিয়েছে তারেক রহমান। ইনকাম ট্যাক্স এর ফাইলে নানান ধরনের অপকর্মের টাকা ক্যাসিনো বলে চালিয়ে দিয়েছে।

তিনি বলেন, হজের জাহাজ হিজবুল বাহারকে প্রমোদ তরীতে পরিণত করেছিল বিএনপি প্রতিষ্ঠাতা জিয়াউর রহমান। সে যুব সমাজকে বিধ্বংসী করেছিল। একটি দেশের রাষ্ট্রপতি ছাত্রদের নিয়ে প্রমোদ বিহারে যায় কিভাবে? আমরা ছাত্র থাকাকালীন শিক্ষা সফরে যেতাম ৷

আওয়ামী লীগের এই সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য বলেন, একইসঙ্গে জিয়াউর রহমান যে কলম দিয়ে সংবিধানে বিসমিল্লাহ লেখেন, সেই কলম দিয়েই আবার দেশে মদ-জুয়া, হাউজির লাইসেন্স দেয়। বঙ্গবন্ধু ১০ জানুয়ারি দেশে ফিরে মদ-জুয়া নিষিদ্ধ করে। দেশে মদের বারও ছিল না। এগুলো বিএনপির সংস্কৃতি।

এ সময় আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মাহবুব-উল আলম হানিফ বলেন, দুর্নীতি, অনিয়ম, অপকর্ম করে কেউ ছাড় পাবে না। আওয়ামী লীগ বা বিএনপি যেই হোক না কেন। বিএনপিই দেশে সর্বপ্রথম ক্যাসিনো-জুয়া চালু করেছিল। যে স্বপ্ন নিয়ে দেশ স্বাধীন হয়েছিল বঙ্গবন্ধুকে হত্যার মাধ্যমে তা ধ্বংস করে জিয়াউর রহমান। জিয়াউর রহমান মুক্তিযুদ্ধের পক্ষের শক্তিকে ধ্বংসে লিপ্ত ছিলেন।

আওয়ামী লীগের এই যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক বলেন, আজকে ক্যাসিনো নিয়ে বিএনপি মিথ্যাচার করছে। আওয়ামী লীগ সরকারের ওপরে দোষ চাপিয়ে মিথ্যাচার করছে। ক্যাসিনের সঙ্গে যারাই জড়িত তাদের আইনের আওতায় এনে বিচার করা হবে।

ত্রাণ ও সমাজ কল্যাণ উপকমিটির চেয়ারম্যান এ এফএম ফখরুল ইসলাম মুন্সির সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন আওয়ামী লীগ যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক জাহাঙ্গীর কবির নানক, আব্দুর রহমান, সাংগঠনিক সম্পাদক বিএম মোজাম্মেল হক, আ ফ ম বাহাউদ্দীন নাছিম, ত্রাণ ও সমাজ কল্যাণ সম্পাদক সুজিত নন্দি রায় প্রমুখ।



আমার বার্তা/২৮ সেপ্টেম্বর ২০১৯/জহির


আরো পড়ুন