শিরোনাম :

  • ঢাকায় বাড়তে পারে তাপমাত্রা করোনার ছোবলে এবার চলে গেলেন এসআই মোশাররফ সপ্তাহে তিন দিন ছুটির বিধান আসছে নিউজিল্যান্ডে পেরুতে একদিনেই আক্রান্ত প্রায় ৩ হাজার
সরকার সবদিকেই অত্যাচারী হয়ে উঠেছে : ফারুক
নিজস্ব প্রতিবেদক :
০২ মার্চ, ২০২০ ১৪:০৩:২৮
প্রিন্টঅ-অ+


ক্ষমতাসীনদের কড়া সমালোচনা করে বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার উপদেষ্টা জয়নুল আবদীন ফারুক বলেছেন, সরকার সবদিক দিয়েই অত্যাচারী হয়ে উঠেছে। জনগণের কোনো উন্নয়নের সরকার তারা না। আওয়ামী লীগ উন্নয়নের নামে, মেগা প্রজেক্টের নামে নিজেদের পকেট ভারী করছে।

সোমবার (২ মার্চ) জাতীয় প্রেস ক্লাবের সামনে বিদ্যুৎ ও পানির মূল্যবৃদ্ধির প্রতিবাদে আয়োজিত এক মানববন্ধনে তিনি এসব কথা বলেন। ‘দেশ বাঁচাও মানুষ বাঁচাও আন্দোলন’ এ মানববন্ধনের আয়োজন করে।

ফারুক বলেন, দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়া দুই বছরের বেশি সময় ধরে বন্দি। বাংলাদেশের তিনবারের সফল প্রধানমন্ত্রী, বাংলাদেশের সাবেক সেনাপ্রধানের স্ত্রী আজ কারাগারে। বেগম জিয়া অসুস্থ, তার চোখ দিয়ে পানি পড়ে, ডান হাত উঠাতে পারেন না। আমরা যখনই তার জামিনের আবেদন জানাচ্ছি তখনই কোর্ট জামিনের আবেদন খারিজ করে দিচ্ছেন। আমরা বলতে চাই এটা রাজনৈতিক সিদ্ধান্ত। রাজনৈতিক সিদ্ধান্তের কারণে তাকে কারাগারে আবদ্ধ রাখা হয়েছে।

তিনি বলেন, এই সরকারের কাছে কোনোদিনও আদালতের মাধ্যমে খালেদা জিয়ার জামিন হবে- সেটা বিশ্বাস করা যায় না। যখনই আন্দোলনের ডাক দেব, যখনই কর্মসূচির ঘোষণা দেব, তখনই বলে অনুমতির প্রয়োজন। সেই অনুমতি কোনোদিনও মেলে না। আমরা রাজপথে নামতে পারি না। যদি কখনও কৌশলগতভাবে রাজপথে নামি তখন আমাদের ওপর হামলা হয়। আপনারা অনুমতি দেবেন না, বেগম খালেদা জিয়াকে মুক্তি দেবেন না; তারা মানে আমরা মনে করি আন্দোলন ছাড়া বেগম খালেদা জিয়ার মুক্তির আর কোনো পথ নেই।

সরকারের উদ্দেশ্য বিএনপির এ নেতা বলেন, দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়ার মুক্তির আন্দোলন ভিন্ন খাতে প্রবাহিত করার জন্য পাপিয়া-নাটক করেন, ক্যাসিনো-নাটক করেন। একটির পর একটি ইস্যু তৈরি করে বিএনপির আন্দোলনকে কোণঠাঁসা করেন। আপনারা বিএনপির আন্দোলনকে আন্ডার এস্টিমেট করবেন না।

তিনি বলেন, লগি-বৈঠা দিয়ে যারা ক্ষমতায় আছেন তারা কৌশল করে বাংলাদেশের গণতন্ত্রকে কুক্ষিগত করছেন। রাজনৈতিক প্রতিষ্ঠান, সাংবিধানিক প্রতিষ্ঠানকে ধ্বংস করে দিচ্ছেন। আমি অনুরোধ করব অনতিবিলম্বে খালেদা জিয়ার মুক্তি দিন ও তেল-বিদ্যুতের দাম বাড়ানোর জন্য যে পরিকল্পনা করেছেন তা বাতিল করতে হবে।

তিনি আরও বলেন, আমাদের আর কতটি মামলা দেবেন? কতদিন ঠেকিয়ে রাখবেন। সপ্তাহের সাতদিনই তো আমরা কোর্টের বারান্দায় আছি। আবারও না হয় মায়ের মুক্তির জন্য, পানি ও বিদ্যুতের দাম বৃদ্ধির প্রতিবাদে লক্ষ মামলা মাথায় নিয়ে আন্দোলনে ঝাঁপিয়ে পড়ব।

আয়োজক সংগঠনের সভাপতি কামরুল ইসলাম রিপনের সভাপতিত্বে মানববন্ধনে বিএনপির প্রশিক্ষণ বিষয়ক সম্পাদক এবিএম মোশাররফ হোসেন, সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক অ্যাডভোকেট আবদুস সালাম আজাদ, ঢাকা মহানগর দক্ষিণ বিএনপির সহ-সভাপতি ইউনুস মৃধা, কৃষক দলের আহ্বায়ক কমিটির সদস্য লায়ন মিয়া মোহাম্মদ আনোয়ার, তাঁতী দলের যুগ্ম আহ্বায়ক কাজী মনিরুজ্জামান মনির প্রমুখ বক্তব্য দেন।



আমার বার্তা/০২ মার্চ ২০২০/জহির


আরো পড়ুন