শিরোনাম :

  • বিশ্বকাপ বাছাইয়ের প্রথম ম্যাচেই সিঙ্গাপুরের চমক চট্টগ্রামের জহুর হকার্স মার্কেটে অগ্নিকাণ্ড হবিগঞ্জে কৃমিনাশক ওষুধ সেবনে বোনের মৃত্যু, দুই ভাই হাসপাতালে বৌদ্ধ ধর্মাবলম্বীদের ‘কঠিন চীবর দান’ উৎসব আজ ডি মারিয়ার জোড়া গোলে পিএসজির বড় জয়
সৌম্য-লিটনও পারে, প্রয়োজন শুধু বিশ্বাস : ব্যাটিং কোচ
স্পোর্টস ডেস্ক :
১৫ সেপ্টেম্বর, ২০১৯ ১০:৫৫:১৩
প্রিন্টঅ-অ+


ওয়ানডে, টেস্ট বা টি-টোয়েন্টি- ফরম্যাট যাই হোক, একজন ব্যাটসম্যান ছন্দে থাকার বড় প্রমাণ হলো তার ব্যাট থেকে নিয়মিত রান আসা। কিন্তু ব্যাটসম্যানদের ব্যাটে যদি রানই না আসে, তাহলে চিন্তার মেঘ উঁকি দিতে বাধ্য যে কারো মনে। ঠিক যেমনটা হচ্ছে বাংলাদেশ দলের দুই ওপেনার সৌম্য সরকার ও লিটন দাসকে নিয়ে।

এমনিতে নিয়মিত ওপেনার না হলেও, সিনিয়র সদস্য তামিম ইকবালের অনুপস্থিতিতে ইনিংস সূচনার দায়িত্ব পেয়েছেন এ দুজনই। কিন্তু সে অর্থে পারেননি নিজেদের মেলে ধরতে। ফরম্যাটভেদেই যেনো অফফর্মে ঢুকে গেছেন এ দুই ব্যাটসম্যান। যা চিন্তার কারণ হয়ে দাঁড়িয়েছে টিম ম্যানেজম্যান্টের জন্য।

তবে দলের ব্যাটিং কোচ নেইল ম্যাকেঞ্জি অবশ্য এসব নিয়ে ভাবতে রাজি নন। তার মতে সৌম্য-লিটনের প্রতি বিশ্বাস ও আস্থা রাখলে সেরা ফল পাওয়া সম্ভব। কিন্তু ঠিক কতদিন ধরে রাখতে হবে এ বিশ্বাস কিংবা আস্থা?- তা হয়তো জানা নেই কারোরই।

বিশ্বকাপে ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে সবশেষ ৯৪ রানের অপরাজিত ইনিংসের পর আরও ৭ বার ব্যাট করতে নেমেছেন লিটন দাস। ফিফটি দূরে থাক, একবারও চল্লিশের ঘরে পেরোতে পারেননি তিনি। সর্বোচ্চ রানের ইনিংসটি ৩৩ রানের। অন্যদিকে সবশেষ দশ আন্তর্জাতিক ইনিংসে একবার মাত্র ফিফটি ছুঁয়েছেন সৌম্য, একবার পেরিয়েছেন ত্রিশ রানের কোটা। বাকি আটবারই সাজঘরে ফিরেছেন বিশ রানের কমে।

টপঅর্ডারের দুই ব্যাটসম্যানের রান খরা ভাবাচ্ছে দলকে। চলতি ত্রিদেশীয় সিরিজের প্রথম ম্যাচেই জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে বিপর্যয়ে পড়তে হয়েছে এ দুজনের ব্যাট থেকে রান না আসায়। তবু আশা হারাতে রাজি নন টাইগারদের ব্যাটিং কোচ নেইল ম্যাকেঞ্জি। তার মতে সৌম্য-লিটনও পারে, প্রয়োজন শুধু বিশ্বাস এবং যথাযথ সমর্থন।

শনিবার সংবাদমাধ্যমে আলাপে ম্যাকেঞ্জি বলেন, ‘আমি মনে করি, তারা যা করেছে এতদিনে, আপনি তাদের প্রতি বিশ্বাস রাখতে পারেন। আয়ারল্যান্ডে ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে ফাইনাল ম্যাচে দারুণ খেলেছিল সৌম্য। আপনারা নিশ্চয়ই টিভিতে দেখেছেন সেটি। সেদিন খুব দ্রুতই ফিফটি করে ফেলেছিল সৌম্য। তার ব্যাটসম্যানশিপ নিয়ে কোনো সন্দেহ নেই, প্রয়োজন শুধু বিশ্বাসের।’

আরও দৃঢ়ভাবে সৌম্যর প্রতি নিজের আস্থার কথা জানিয়ে এ প্রোটিয়া কোচ বলেন, ‘আপনি সবসময় তার (সৌম্য) ব্যাটিং সামর্থ্য নিয়ে প্রশ্ন তুলতে পারেন না। সে বারবারই বড় ইনিংস খেলে প্রত্যাবর্তন করে এসেছ। পাঁচ-ছয় মাস আগে জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে দারুণ ৮০ রানের ইনিংস খেলেছে। আয়ারল্যান্ড সফরটাও দুর্দান্ত ছিলো। এমনকি বিশ্বকাপেও নিজের সামর্থ্যের একটা ছাপ রাখতে পেরেছিল। আমাদের এখন শুধু তাদের প্রতি বিশ্বাস রাখতে হবে এবং সমর্থন দিয়ে যেতে হবে।’

ডানহাতি ওপেনার লিটন দাসের ব্যাপারেও প্রায় একই মন্তব্য ম্যাকেঞ্জির। তিনি বলেন, ‘আমরা দেখেছি লিটন দাস কী করতে পারে। এশিয়া কাপে ১৪০ (আসলে ১২১) রানের একটা ইনিংস খেলেছিল। এটা চার বছর আগের ঘটনা নয়, এই তো ৬-৭ মাস হবে। টন্টনে ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে ঐতিহাসিক রান তাড়ার ম্যাচের ৯০ রানের ইনিংস খেলেছে লিটন। তাই এটা পরিষ্কার যে ওরা পারে, সামর্থ্য আছে। নির্বাচকরাও তাদের লম্বা সময়ের জন্য নিয়েছে।’



আমার বার্তা/১৫ সেপ্টেম্বর ২০১৯/জহির


আরো পড়ুন