শিরোনাম :

  • মধ্যরাত পর্যন্ত রুদ্ধদ্বার বৈঠক, শর্ত জুড়ে দিয়ে ধর্মঘট প্রত্যাহার আজ সশস্ত্রবাহিনী দিবস ওয়াটারফ্রন্ট স্মার্টসিটি হবে কেরানীগঞ্জে ছোট ভাই প্রেসিডেন্ট, বড় ভাই এবার প্রধানমন্ত্রী ৭ তলার জানালা দিয়ে উড়ে আসছে লাখ লাখ টাকা, কুড়োতে হুড়োহুড়ি
প্রথমার্ধে জয়ী জার্মানি, দ্বিতীয়ার্ধে আর্জেন্টিনা
স্পোর্টস ডেস্ক :
১০ অক্টোবর, ২০১৯ ০৯:৫২:০৩
প্রিন্টঅ-অ+


খালি চোখে স্কোরলাইন বলছে ম্যাচের ফলাফল ২-২ গোলে ড্র। আর্জেন্টিনা ও জার্মানির মধ্যকার প্রীতি ম্যাচটিতে জেতেনি কোনো দলই। একদম সত্য। তবে ম্যাচটিকে দুই ভাগে ভাগ করলেই হয়তো দেখা যাবে দুই অর্ধে জিতেছে দুই দল।

নব্বই মিনিটের ম্যাচের প্রথমার্ধে যেখানে সর্বেসর্বা ছিলো জার্মানি, সেখানে দ্বিতীয়ার্ধে দুর্দান্তভাবে লড়াইয়ে ফিরেছে আর্জেন্টিনা। তাই তো প্রথমার্ধে দুই গোল করে এগিয়ে যায় জার্মানি, দ্বিতীয়ার্ধে শোধ করে ম্যাচের ফলাফল ড্রতেই নামিয়ে আনে আর্জেন্টিনা।

ক্লাব ফুটবলের টানা খেলার ধকল ও ইনজুরির বাধা মিলিয়ে দুই দলেই ছিলো না নিয়মিত মুখদের উপস্থিতি। আর্জেন্টিনার সবচেয়ে বড় তারকা লিওনেল মেসি খেলতে পারেননি নিষেধাজ্ঞার কারণে, স্কোয়াডে জায়গা না পাওয়ায় খেলা হয়নি অ্যাঞ্জেল ডি মারিয়া, সার্জিও আগুয়েরোদের। এছাড়া জার্মানিতেও ছিল না তারকাদের উপস্থিতি।

এ সুযোগটা অবশ্য দারুণ কাজে লাগিয়েছে দুই দলেরই তরুণ, উদীয়মান খেলোয়াড়রা। জার্মানির ঘরের মাঠ সিগনাল ইদুনা পার্কে শুরুটা করেছিলেন স্বাগতিক দলের মিডফিল্ডার সার্জি জিনাব্রি। কয়েকদিন আগেই চ্যাম্পিয়নস লিগের ম্যাচে ৪ গোল করা জিনাব্রি এদিন ১৫ মিনিটের মাথায় এগিয়ে দেন জার্মানিকে।

শুরুতেই প্রথম গোল পাওয়া পর ব্যবধান বাড়াতে সময় নেয়নি জার্মানরা। ম্যাচের ২২ মিনিটে জার্মানির জার্সি গায়ে নিজের প্রথম গোলটি করেন ২০ বছর বয়সী তরুণ মিডফিল্ডার কাই হাভার্টস। প্রথমার্ধে আরও গোল পেতে পারত স্বাগতিকরা। তবে বার পোস্ট তাদের সামনে বাধা হয়ে দাঁড়ালে দুই গোলের লিডেই বিরতিতে যেতে হয়।

দ্বিতীয়ার্ধে খেলতে নেমে নিজেদের গুছিয়ে নেয় আর্জেন্টিনা। যার ফলও পেয়ে যায় ম্যাচের ৬৬তম মিনিটে। বাম পাশ দিয়ে আক্রমণে উঠে ডি-বক্সের মধ্যে ক্রস বাড়িয়ে দেন মার্কস আকুনা। ডি-বক্সে লাফিয়ে উঠে নিখুঁত হেডে বল জালে জড়ান লুকাস আলারিও।

দলের দ্বিতীয় গোলেও অবদান রাখেন আলারিও। ম্যাচ শেষের আগে দিয়ে ৮৫ মিনিটের মাথায় ডি-বক্সের মধ্যে বল নিয়ে আক্রমণে ঢুকে যান আলারিও। কিন্তু শট করার জায়গা পাচ্ছিলেন না। তাই ছোট করে পাস বাড়িয়ে দেন লুকাস ওকাম্পোসের উদ্দেশ্যে। বুদ্ধিদীপ্ত শটে বল জালে জড়াতে ভুল করেননি ওকাম্পোস।

এ ড্রয়ের পর দুই দলের মুখোমুখি পরিসংখ্যান দাঁড়ালো ২৩ ম্যাচে আর্জেন্টিনার জয় ১০ ম্যাচ, জার্মানির জয় ৮ ম্যাচে এবং ড্র বাকি ৫টি ম্যাচ।

আগামী সোমবার ইউরো বাছাইয়ের ম্যাচে এস্তোনিয়ার মুখোমুখি হবে জার্মানি। অন্যদিকে ফিফা প্রীতি ম্যাচে রোববার ইকুয়েডরের বিপক্ষে খেলবে আর্জেন্টিনা।



আমার বার্তা/১০ অক্টোবর ২০১৯/জহির


আরো পড়ুন