শিরোনাম :

  • ঢাকায় বাড়তে পারে তাপমাত্রা করোনার ছোবলে এবার চলে গেলেন এসআই মোশাররফ সপ্তাহে তিন দিন ছুটির বিধান আসছে নিউজিল্যান্ডে পেরুতে একদিনেই আক্রান্ত প্রায় ৩ হাজার
‘শচিনের চেয়ে লারাকে আউট করা সহজ’
স্পোর্টস ডেস্ক :
২০ এপ্রিল, ২০২০ ১৪:৪৬:৪০
প্রিন্টঅ-অ+


জেসন গিলেস্পি- এক নামেই বাংলাদেশের সকল ক্রিকেটপ্রেমীরা চেনেন যাকে। পুরোদস্তুর বোলার হয়েও নাইটওয়াচম্যান হিসেবে নেমে তিনি গড়েছিলেন ইতিহাস। বাংলাদেশের বিপক্ষে নিজের শেষ টেস্টে খেলেছিলেন ২০১ রানের অপরাজিত ইনিংস।

অথচ তার মূল পরিচয় ছিল ডানহাতি পেসার। দারুণ সুইং বোলিং করে প্রতিপক্ষ ব্যাটসম্যানকে পরাস্ত করাই ছিল তার অস্ত্র। অস্ট্রেলিয়ার হয়ে দশ বছরের ক্যারিয়ারে খেলেছেন ৭১ টেস্ট ও ৯৭টি ওয়ানডে ম্যাচ। শিকার করেছেন সবমিলিয়ে ৪০১টি উইকেট।

সেই গিলেস্পির নিজের ক্যারিয়ারে বোলিং করা অন্যতম দুই কঠিন ব্যাটসম্যান ছিলেন শচিন টেন্ডুলকার ও ব্রায়ান লারা। সন্দেহাতীতভাবেই, ক্রিকেট ইতিহাসের অন্যতম সেরা ব্যাটসম্যান এ দুজন। বিশ্বের যেকোন বোলিং আক্রমণকে গুঁড়িয়ে দিতে সমান পারদর্শীই ছিলেন তারা।

তবে লারা যেখানে ছিলেন একটু বেশিই আক্রমণাত্মক, সেখানে শচিন বেশিরভাগ সময়েই খেলেছেন কেতাবি ঢঙে, কপিবুক স্টাইল মেনে। তাই লারার চেয়ে শচিনকে আউট করাই তুলনামূলক কঠিন বলে মনে হতো গিলেস্পির।

তিনি বলেন, ‘দুইজন (লারা-শচিন) ভিন্ন ধরনের ব্যাটসম্যান। তাদের আউট করা খুবই কঠিন ছিল। তবে আমার সবসময় মনে হতো, শচিনকে আউট করা তুলনামূলক বেশি কঠিন। কারণ লারা হয়তো আপনার ওপর চড়াও হবে (যা উইকেটের সম্ভাবনা তৈরি করে) কিন্তু শচিন কখনও আক্রমণাত্মক খেলে না।’

‘আমার সবসময়ই মনে হতো যে লারাকে আউট করার বেশি সম্ভাবনা রয়েছে আমার কাছে। কারণ সে সবসময়ই মেরে খেলতে পছন্দ করে। অন্যদিকে শচিনের রক্ষণ ছিল মজবুত। যা ভেদ করা খুবই কঠিন মনে হতো আমার।’

তবে দুজনের বিপক্ষে খেলতে পারাটাই অনেক বড় সম্মান ও আনন্দের বলে মনে করেন গিলেস্পি। তিনি বলেন, ‘দেখুন, তারা দুজন অন্যতম সেরা খেলোয়াড়। সত্যিই আমি এখন চিন্তামুক্ত যে তাদের বিপক্ষে আর বোলিং করতে হয় না। তারা অন্যদের চেয়ে অনেক এগিয়ে ছিল। সত্যি বলতে এটা আমার জন্যই গর্বের ছিল, তাদের বিপক্ষে খেলা।’



আমার বার্তা/২০ এপ্রিল ২০২০/জহির


আরো পড়ুন