শিরোনাম :

  • ঢাকায় বাড়তে পারে তাপমাত্রা করোনার ছোবলে এবার চলে গেলেন এসআই মোশাররফ সপ্তাহে তিন দিন ছুটির বিধান আসছে নিউজিল্যান্ডে পেরুতে একদিনেই আক্রান্ত প্রায় ৩ হাজার
‘ভাজ্জি সহজেই ৭০০ উইকেট নিতে পারত’
স্পোর্টস ডেস্ক :
২৮ এপ্রিল, ২০২০ ১১:৪২:৪৩
প্রিন্টঅ-অ+


ভারতের ক্রিকেট ইতিহাসের অন্যতম সেরা স্পিনার হরভজন সিং। বর্তমান সময়ে রবিচন্দ্রন অশ্বিন এবং চলতি শতাব্দীর শুরুতে অনিল কুম্বলে- এ দুইয়ের মাঝামাঝি সময়টাতে ভারতের স্পিন আক্রমণ সামলেছেন হরভজনই।

তবে ২০১২ সালের পর থেকে আর সাদা পোশাকে খেলার সুযোগ পাননি তিনি। ২০১১ সালে দল থেকে বাদ পড়ার সাকুল্যে মাত্র ৫টি টেস্ট খেলতে পেরেছেন হরভজন। এর আগে ২০১১ পর্যন্তই খেলেছেন ৯৮টি টেস্ট। সবমিলিয়ে ৪১৩ উইকেট শিকার করে ভারতের স্পিনারদের মধ্যে দ্বিতীয় সর্বোচ্চ উইকেট শিকারি তিনি।

ক্যারিয়ারের শেষদিকে হরভজনকে বারবার দলের বাইরে রাখা না হলে, সহজেই ৭০০ উইকেট শিকার করতে পারতেন বলে মনে করেন পাকিস্তানের কিংবদন্তি সাকলাইন মুশতাক। কিন্তু তখন রবিচন্দ্রন অশ্বিনের আবির্ভাবের কারণে তেমন সুযোগই হরভজন।

এ বিষয়ে মুশতাকের মত, যেহেতু হরভজন এবং অশ্বিন দুজন ভিন্ন ধরনের দুই বোলার, তাই ভারতের উচিৎ ছিল দুজনকেই একসঙ্গে খেলানো। তাহলে হরভজনের ক্যারিয়ার যেমন আরও সমৃদ্ধ হতো, তেমনি ভারতও এতে লাভবান হতো।

পাকিস্তানি এ অফস্পিনার বলেন, ‘ভাজ্জির (হরভজন) মতো একজন বোলারকে বাদ দেয়ায় আমিই সত্যিই বিস্মিত হয়েছিলাম। অশ্বিন এবং ভাজ্জির স্টাইল আলাদা ছিল। তারা একসঙ্গেই একাদশে থাকতে পারত। দলে দুজন ডানহাতি পেসার থাকতে পারলে, দুজন অফস্পনার কেন পারবে না? ভাজ্জির মধ্যে বিশেষত্ব ছিল। সে খুব সহজেই ৭০০ উইকেট নিতে পারত।’

হরভজনের ক্যারিয়ারের শেষ হয়ে গেছে, ফলে তার ব্যাপারে আলোচনা করে এখন আর কোন ফায়দা নেই- এটি জানেন মুশতাকও। তাই তিনি এখন বাজি ধরছেন ভারতের বর্তমান দুই স্পিনার রবিন্দ্র জাদেজা ও অশ্বিনকে নিয়েই। তার মতে, এ দুজনই ১০০’র বেশি টেস্ট খেলতে পারবে।

মুশতাক বলেন, ‘ভারতের বর্তমান স্পিন আক্রমণও অসাধারণ। কুলদ্বীপ যাদভ বেশ ইমপ্রেসিভ। অশ্বিন, জাদেজাও ধারাবাহিকভাবে ভাল করে যাচ্ছে। তারা বিশ্বমানের বোলার। আমি নিশ্চিত তারা দুজনই ১০০টি করে টেস্ট খেলতে পারবে।’

এখনও পর্যন্ত ৭১ টেস্টে ৩৬৫ উইকেট শিকার করেছেন অশ্বিন। ৪৯ টেস্ট খেলা জাদেজার শিকার ২১৩ উইকেট। দুজনেরই ফর্ম এবং বয়স রয়েছে নিজেদের অনুকূলে। ফলে মুশতাকের ১০০ টেস্ট খেলার ভবিষ্যদ্বাণী মিলে যাওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে অনেক।



আমার বার্তা/২৮ এপ্রিল ২০২০/জহির


আরো পড়ুন