শিরোনাম :

  • ঢাকায় বাড়তে পারে তাপমাত্রা করোনার ছোবলে এবার চলে গেলেন এসআই মোশাররফ সপ্তাহে তিন দিন ছুটির বিধান আসছে নিউজিল্যান্ডে পেরুতে একদিনেই আক্রান্ত প্রায় ৩ হাজার
স্মিথ অদ্ভুত এবং নিজেও এটা জানে : স্টোকস
স্পোর্টস ডেস্ক :
২৯ এপ্রিল, ২০২০ ১১:০২:০৬
প্রিন্টঅ-অ+


ইংল্যান্ডের মাটিতে সবশেষ অ্যাশেজ সিরিজটা দুই চিরপ্রতিদ্বন্দ্বী দেশের পাশাপাশি দুইজন খেলোয়াড়ের মুখোমুখি দ্বৈরথও হয়ে আছে। প্রায় একা হাতে অস্ট্রেলিয়াকে টেনেছেন স্টিভেন স্মিথ আর অলরাউন্ড নৈপুণ্যে নিজ দলকে আগলে রেখেছেন ইংলিশ অলরাউন্ডার বেন স্টোকস।

এ দুজনের ব্যক্তিগত দ্বৈরথে কে জিতেছে, কে হেরেছে- তা নিয়ে বিস্তর আলোচনা হতেই পারে। তবে তাদের পারফরম্যান্সের সুবাদে অ্যাশেজ সিরিজ হারেনি কোন দেশ। ইংল্যান্ড-অস্ট্রেলিয়া উভয়েই জিতেছে ২টি করে ম্যাচ, সিরিজ হয়েছে ড্র।

সেই অ্যাশেজে প্রতিপক্ষ হিসেবে স্মিথকে দেখেছেন স্টোকস, তার বিপক্ষে খেলেছে এর আগেও। শুধু প্রতিপক্ষ হিসেবেই নয়, ইন্ডিয়ান প্রিমিয়ার লিগে তো স্মিথের সতীর্থ হিসেবেও খেলার অভিজ্ঞতা রয়েছে স্টোকসের। নিজের এই অভিজ্ঞতা থেকে স্মিথকে ‘অদ্ভুত’ বলে আখ্যায়িত করেছেন স্টোকস।

আইপিএলের দল রাজস্থান রয়্যালসে একসঙ্গে খেলেছেন স্মিথ ও স্টোকস। আসন্ন মৌসুমেও এক জার্সিতে দেখা যাবে এ দুজনকে। রাজস্থানেরই আরেক সতীর্থ ইশ সোধির সঙ্গে এক ভিডিও আলাপে স্মিথের ব্যাপারে নিজের মূল্যায়ন জানিয়েছেন ইংলিশ অলরাউন্ডার।

তিনি বলেন, ‘সত্যি বলতে তার (স্মিথ) দলে খেললেও সে অদ্ভুত, তার বিপক্ষে খেললেও সে অদ্ভুত এবং সে নিজেও এটা জানে। তবে আমি মনে করি, জিনিয়াস হতে হলে আপনাকে খানিক অদ্ভুত হতেই হয়। স্মিথ নিশ্চিতভাবে জিনিয়াস এবং অদ্ভুত।’

স্মিথের ব্যাটিংকে ভিন্ন পর্যায়ের উল্লেখ করে স্টোকস আরও বলেন, ‘যদিও সে অস্ট্রেলিয়ার হয়ে খেলে, তবু মাঝেমধ্যে এমন কিছু খেলোয়াড়ের জন্য আপনাকে দুই হাত ওপরে তুলে মেনে নিতে হবে, হ্যাঁ! ব্যাটিং প্রসঙ্গে তুমি ভিন্ন পর্যায়ের।’

এসময় স্টোকস আরও জানান, তিনি কখনওই ব্যাটিংয়ের সময় স্মিথের মতো করে ভাবতে পারেন না। কখনও পারবেনও না বলে মনে করেন তিনি, ‘ব্যাটিংয়ের কথা আসলে, সে যেভাবে চিন্তা করে, আমি কখনওই তা পারি না। হয়তো সামনেও কোনদিন পারব না। তবে হ্যাঁ! সে সবসময়ই (ব্যাটিংয়ে) দারুণ মুডে থাকে। যে কারণে টেস্ট ক্রিকেটে তার গড় ষাটের ওপর।’

এমনিতে মারকুটে অলরাউন্ডার হলেও, টেস্ট ক্রিকেটের ব্যাপারে স্টোকসের শ্রদ্ধা অনেক বেশি। এই ফরম্যাটকেই ক্রিকেটের চূড়া হিসেবে মানেন তিনি। তার মতে টেস্ট ক্রিকেট কখনওই নিজের জৌলুস হারাবে না।

স্টোকস বলেন, ‘আমার কাছে টেস্ট ক্রিকেটই সর্বোচ্চ চূড়া। সম্প্রতি অনেক কথা বলাবলি হচ্ছে যে, টেস্ট ক্রিকেট মরে যাচ্ছে। আমি জানি না এসব কথা কীভাবে আসে। বিরাট কোহলি, জো রুটরা বারবারই বলছে টেস্ট ক্রিকেটই যেকোন খেলোয়াড়ের সবচেয়ে বড় পরীক্ষার জায়গা। এই ফরম্যাটেই একজন ক্রিকেটারের নিজের জাত চেনানোর সবচেয়ে বড় সুযোগ। ক্রিকেটের বিশুদ্ধতম ফরম্যাট এটি।’



আমার বার্তা/২৯ এপ্রিল ২০২০/জহির


আরো পড়ুন