শিরোনাম :

  • ঢাকায় বাড়তে পারে তাপমাত্রা করোনার ছোবলে এবার চলে গেলেন এসআই মোশাররফ সপ্তাহে তিন দিন ছুটির বিধান আসছে নিউজিল্যান্ডে পেরুতে একদিনেই আক্রান্ত প্রায় ৩ হাজার
তিনবার আত্মহত্যা করতে চেয়েছেন শামি
স্পোর্টস ডেস্ক :
০৩ মে, ২০২০ ১১:৩৭:০১
প্রিন্টঅ-অ+


পেস বোলিংয়ে ভারতীয় ক্রিকেট দলের যে নবজাগরণ, তার অন্যতম অংশীদার ডানহাতি পেসার মোহাম্মদ শামি। টেস্ট ক্রিকেটে তার বোলিং দক্ষতা অনেকটাই এগিয়ে দেয় বিরাট কোহলির দলকে। গত দেড়-দুই বছরে শামির ব্যক্তিগত সাফল্যের পাল্লাটাও বেশ ভারি।

তবে তার ঠিক আগের সময়টা এত সহজ ছিল না শামির জন্য। স্ত্রী হাসিন জাহানের সঙ্গে দ্বন্দ্ব, পারিবারিক কলহ, নারী নির্যাতন মামলাসহ এসব বিষয় নিয়ে একদম ভেঙে পড়েছিলেন শামি। এর বাইরে ক্রিকেট মাঠেও পড়েন ইনজুরিতে।

ফলে মাঠে থাকতে না পারা এবং পরিবারে এসব ঝামেলা মানসিক সমস্যায়ই ফেলে দিয়েছিল শামিকে। যে কারণে তিনি অন্তত তিনবার চেয়েছেন আত্মহত্যা করতে। শনিবার এক ইন্সটাগ্রাম লাইভে এ তথ্য জানিয়েছেন খোদ শামিই।

তখনকার জানিয়ে তিনি বলেন, ‘রিহ্যাব প্রক্রিয়াটা খুবই কষ্টকর ছিল। কারণ একই জিনিস প্রতিদিন বারবার করতে হতো। একইসঙ্গে পারিবারিক ঝামেলা শুরু হলো এবং আমার একটা দুর্ঘটনাও হলো। আইপিএল শুরুর ১০-১২ দিন আগে হয় সেই ঘটনা। এছাড়া মিডিয়াতেও তখন আমার ব্যক্তিগত সমস্যাগুলো নিয়ে অহেতুক চর্চা চলছিল।’

এসব ঝামেলার কারণেই আত্মহত্যা করতে চেয়েছেন তিনি। তবে পরিবার এবং বন্ধুবান্ধবদের সার্বক্ষণিক সহায়তায় সেই খারাপ সময় কাটিয়ে পুনরায় ক্রিকেট মনোযোগ দিতে পেরেছেন এ ডানহাতি পেসার।

তিনি বলেন, ‘আমার পরিবার যদি তখন পাশে না দাঁড়াত, আমি ক্রিকেটকে হারিয়ে ফেলতাম। ব্যক্তিগত সমস্যা ও দুশ্চিন্তার কারণে অন্তত তিনবার আত্মহত্যা করতে চেয়েছিলাম তখন। ক্রিকেটের ব্যাপারে ভাবতামই না একদম।’

আরও যোগ করেন, ‘আমরা তখন ২৪ তলায় থাকি। আমার পরিবার সবসময় ভয়ে থাকত, আমি না আবার বারান্দায় গিয়ে লাফিয়ে পড়ি। আমার ভাই তখন অনেক সাহায্য করেছে। আমার কয়েকজন বন্ধু ২৪ ঘণ্টা আমার সাথে থাকত। বাবা-মা আমাকে সবকিছু দূরে সরিয়ে ক্রিকেটে মনোযোগ দিতে বলতেন। এরপরই আমি দেহরাদুনে একটি একাডেমিতে ঘাম ঝরাতে শুরু করি।’



আমার বার্তা/০৩ মে ২০২০/জহির


আরো পড়ুন