শিরোনাম :

  • ঢাকায় বাড়তে পারে তাপমাত্রা করোনার ছোবলে এবার চলে গেলেন এসআই মোশাররফ সপ্তাহে তিন দিন ছুটির বিধান আসছে নিউজিল্যান্ডে পেরুতে একদিনেই আক্রান্ত প্রায় ৩ হাজার
বিপিএল নিয়ে যে পরামর্শ দিলেন রোহিত
স্পোর্টস ডেস্ক :
১৬ মে, ২০২০ ১১:১৫:২১
প্রিন্টঅ-অ+


সন্দেহাতীতভাবেই ফ্র্যাঞ্চাইজিভিত্তিক টি-টোয়েন্টি টুর্নামেন্টগুলোর মধ্যে সবার সেরা ইন্ডিয়ান প্রিমিয়ার লিগ (আইপিএল)। খেলার মান, অর্থের ঝনঝনানি, গ্ল্যামার কিংবা দর্শক জনপ্রিয়তা- সব মানদণ্ডেই অন্য যেকোন লিগের চেয়ে এগিয়ে আইপিএল।

টুর্নামেন্টটির এমন সাফল্যের অন্যতম কারণ ফ্র্যাঞ্চাইজিগুলোর ব্র্যান্ড ভেলু। যে কেউ চেন্নাই সুপার কিংসের কথা বললেই সঙ্গে সঙ্গে চলে আসে মহেন্দ্র সিং ধোনির নাম, রয়েল চ্যালেঞ্জার্স ব্যাঙ্গালুরুর বেলায় বিরাট কোহলি কিংবা মুম্বাই ইন্ডিয়ানসের বেলায় আসে রোহিত শর্মার নাম।

প্রায় প্রতিটি দলেই এমন কয়েকজন খেলোয়াড় আছেন, যারা অন্তত ৩-৪ মৌসুম ধরে খেলছেন একই ফ্র্যাঞ্চাইজির অধীনে। যা কি না ফ্র্যাঞ্চাইজির ব্র্যান্ড ভেলু বাড়াতেও সাহায্য করে। কেননা নির্দিষ্ট খেলোয়াড়ের যে সমর্থকগোষ্ঠি, তারাও তখন ঐ ফ্র্যাঞ্চাইজির সমর্থন করতে থাকেন লম্বা সময় ধরে।

কিন্তু পরিতাপের বিষয় হলো, বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগে (বিপিএল) এমনটা নেই বললেই চলে। বিপিএলের ইতিহাসের সেরা অধিনায়ক মাশরাফি বিন মর্তুজার পর্যন্ত টুর্নামেন্টের সাত আসরের ইতিহাসে ফ্র্যাঞ্চাইজি বদলাতে হয়েছে ৪ বার।

মুশফিকুর রহীমের বেলায় এ সংখ্যাটা পুরো সাত! অর্থাৎ কোন দলের হয়েই এক মৌসুমের বেশি খেলা হয়নি তার। এছাড়া অন্যান্য তারকা ক্রিকেটারদের বেলায়ও হুবহু একই চিত্র। প্রতি মৌসুমেই বদলে যায় তাদের ঠিকানা। ফলে নির্দিষ্ট কোন ফ্র্যাঞ্চাইজির হয়ে দীর্ঘমেয়াদি পরিকল্পনা সাজাতে পারেন না তারা।

এ সমস্যাটি নিয়ে গত কয়েকদিন ধরেই বেশ সরব তামিম ইকবাল। গত ২ মে মুশফিকুর রহীমের সঙ্গে এক লাইভ সেশনে বলেছিলেন বিপিএলে এক দলে খেলতে পারলে কত ভালো হতো। একই প্রসঙ্গ আসে পরেরদিন মাহমুদউল্লাহ রিয়াদের সঙ্গে করা লাইভেও।

সবশেষ শুক্রবার রাতে বিপিএলে এই এক দলে খেলার আকুতি দেশের গণ্ডি পেরিয়ে চলে গেছে বিদেশে! ভারতীয় ক্রিকেট দলের সহ-অধিনায়ক ও তারকা ওপেনার রোহিত শর্মা পর্যন্ত চান, বিপিএলে যেন নির্দিষ্ট কোন খেলোয়াড়কে অন্তত কয়েকবছর টানা একই দলে খেলতে দেয়া হয়। এতে করে টুর্নামেন্টের আকর্ষণ বাড়বে বলে মতামত তার।

তামিম ইকবালের সঙ্গে করা ফেসবুক লাইভে বিপিএল প্রসঙ্গ এলে রোহিত বলেন, ‘বাংলাদেশের মানুষ ক্রিকেটের ব্যাপারে অনেক আবেগপ্রবণ। এমনটা বাংলাদেশ ছাড়া আর কোথাও দেখিনি সত্যি। আমার মনে হয়, এই উৎসাহটা যদি দর্শকদের মাঝে ছড়িয়ে দেয়া যায় তাহলে আরও ভালো হবে।’

‘(বিপিএলে) দুই-তিনজন খেলোয়াড় যদি কয়েকবছর নির্দিষ্ট একটি ফ্রাঞ্চাইজির হয়ে খেলে তাহলে তাদের সমর্থকগোষ্ঠিও বৃদ্ধি পাবে। দর্শকরা একটা দলকে সেভাবেই সাপোর্ট করতে পারবে। ধরো, তুমিসহ (তামিম) আরও কয়েকজন ঢাকার হয়ে অনেক বছর খেললে। আমার মনে হয় বিসিবির এমন কিছু করা উচিৎ।’

এমনটা না হলে দর্শকদের আগ্রহ কমে যাওয়াই স্বাভাবিক বলে মনে করেন আইপিএলের ইতিহাসের সফলতম অধিনায়ক রোহিত শর্মা। মুম্বাই ইন্ডিয়ানসের হয়ে চারবারের শিরোপাজয়ী অধিনায়ক জোর দিয়েই বললেন একই দলে কয়েক বছর খেলার গুরুত্বের কথা।

তার ভাষ্য, ‘কয়েকজন মূল খেলোয়াড়কে এক দলে অনেক বছর রাখা উচিৎ, নাহলে দর্শকদের উৎসাহ হারিয়ে যাবে। ধরো, তারা তোমার জন্য এক দলকে সমর্থন দিচ্ছে, কিন্তু এরপর শুনলো যে তুমি অন্য দলে চলে গেছ, তখন তাদের আবার আরেক দলকে সমর্থন দিতে হবে।’

‘আমাদের মনে রাখা উচিৎ দর্শকরা খেলার আগ্রহ আরও বাড়িয়ে দেয়। সেটা শুধু ক্রিকেট না, যেকোন খেলাই হতে পারে। আমাদের কাছেও ভক্তদের গুরুত্ব অনেক বেশি। তুমি তাদের খেয়াল না রাখলে, তারাও তোমার খেয়াল করবে না।’



আমার বার্তা/১৬ মে ২০২০/জহির


আরো পড়ুন