শিরোনাম :

  • করোনা প্রাণ নিল আরও ৫০ জনের, নতুন শনাক্ত ১৭৪২করোনায় মৃত্যুবরণকারী ২ পুলিশ সদস্যের পাশে ডিএমপিমমতা ব্যানার্জিকে পররাষ্ট্রমন্ত্রীর অভিনন্দন বার্তাদেশে ফিরলেন লিবিয়ায় আটকেপড়া ১৬০ অভিবাসী
আ.লীগ নেতার বাড়িতে ব্যবসায়ীর লাশ : বিচারবিভাগীয় তদন্তের দাবি
২২ এপ্রিল, ২০২১ ১৭:০০:১৮
প্রিন্টঅ-অ+

সদ্য বহিষ্কৃত গাইবান্ধা জেলা আওয়ামী লীগের উপদফতর সম্পাদক মাসুদ রানার বাড়ি থেকে ব্যবসায়ী হাসান আলীর মরদেহ উদ্ধারের ঘটনায় বিচারবিভাগীয় তদন্তের দাবি জানিয়েছে ‘হাসান হত্যার প্রতিবাদ মঞ্চ’।


বৃহস্পতিবার (২২ এপ্রিল) দুপুরে জেলা জাসদ কার্যালয়ে সাংবাদিকদের সঙ্গে মতবিনিময় সভায় এ দাবি জানানো হয়।


‘হাসান হত্যার প্রতিবাদ মঞ্চের’ আহ্বায়ক আমিনুল ইসলাম গোলাপের সভাপতিত্বে মতবিনিময় সভায় মঞ্চের সদস্য ও বিভিন্ন রাজনৈতিক নেতৃবৃন্দের মধ্যে বক্তব্য দেন- মিহির ঘোষ, ময়নুল ইসলাম রাজা, ওয়াজিউর রহমান রাফেল, গোলাম মারুফ মনা, জিয়াউল হক জনি, মনজুর আলম মিঠু, গোলাম রব্বানী, মোস্তফা মনিরুজ্জামান, কাজী আবু রাহেন শফিউল্যাহ, মৃনাল কান্তি বর্মণ, রেজাউন্নবী রাজু, জেলা বারের সাধারণ সম্পাদক অ্যাড. সিরাজুল ইসলাম বাবু প্রমুখ।


জাহাঙ্গীর কবির তনুর সঞ্চালনায় মতবিনিময় সভায় সাংবাদিকদের মধ্যে বক্তব্য দেন- গোবিন্দলাল দাস, দীপক কুমার পাল, অমিতাভ দাশ হিমুন, গৌতমাশিষ গুহ সরকার, শামীম উল হক শাহীন, উজ্জল চক্রবর্ত্তী, আরিফুল ইসলাম বাবু, হেদায়েতুল ইসলাম বাবু, রিকতু প্রসাদ, খালেদ হোসেন, শামীম আল সাম্য, এসএম বিপ্লব, মিলন খন্দকার প্রমুখ।


হাসান হত্যার প্রতিবাদ মঞ্চের আহ্বায়ক আমিনুল ইসলাম গোলাপ বলেন, ‘হাসান আলী হত্যার ঘটনায় অভিযুক্ত ওসি (তদন্ত) ও পুলিশ কর্মকর্তাদের প্রত্যাহার করলেই হবে না তাদের গ্রেফতার করতে হবে। এই হত্যাকাণ্ডের দায় সদর থানার ওসি কোনোভাবেই এড়াতে পারে না। তাকে আসামি হিসেবে অন্তর্ভুক্ত করতে হবে।’


তিনি আরও বলেন, ‘পুলিশকে বাঁচানোর নানারকম ষড়যন্ত্র আমরা লক্ষ্য করছি। এরইমধ্যে বাদীর এজাহারে বর্ণীত ঘটনাকে পাশ কাটিয়ে মিথ্যা ফরওয়ার্ডিং দেয়া হয়েছে। এর তীব্র প্রতিবাদ জানাই। একইসঙ্গে পুরো ঘটনার একটি বিচারবিভাগীয় তদন্তের দাবি জানান।’


উল্লেখ্য, ১০ এপ্রিল জেলা আওয়ামী লীগের উপদফতর সম্পাদক মাসুদ রানার বাড়ি থেকে ব্যবসায়ী হাসান আলীর মরদেহ উদ্ধার করা হয়। পরের দিন নিহত হাসান আলীর স্ত্রী মাসুদ রানাসহ তিনজনকে আসামি করে গাইবান্ধা সদর থানায় হত্যা মামলা করেন। সেদিন দুপুরেই গাইবান্ধায় পুলিশের হাতে গ্রেফতার হন মাসুদ রানা। জেলার অতিরিক্ত চিফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট তার চার দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন। তাকে দল থেকেও বহিষ্কার করা হয়।


২০ এপ্রিল রাতে সদর থানার পরিদর্শক (তদন্ত) মজিবর রহমান ও উপপরিদর্শক (এসআই) মোশাররফকে পুলিশ লাইনে প্রত্যাহার করা হয়েছে। একইসঙ্গে ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মাহফুজার রহমানের কাছে ব্যাখ্যা চাওয়া হয়েছে।

আরো পড়ুন