শিরোনাম :

  • ৩০ হাজার ৩৫৪ জন হাজি দেশে ফিরেছেন মক্কায় আরও এক বাংলাদেশি হাজির মুত্যু এবার হজ করেছেন ২৪ লাখ ৮৯ হাজার ৪০৬ মুসল্লি মোজাফফর আহমদের প্রতি শ্রদ্ধা জানাবেন প্রধানমন্ত্রী ইশান্তের তোপে দিশেহারা ক্যারিবীয়রা
দিনাজপুরের রাণীরবন্দর হাট চান্দিনায় অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ হবে কি?
দিনাজপুর প্রতিনিধি :
৩১ জুলাই, ২০১৯ ১৮:৫০:১১
প্রিন্টঅ-অ+


দিনাজপুরের প্রসিদ্ধ হাট বাজারের মধ্যে রাণীরবন্দর ও একটি বড় হাট ও বাজার। সপ্তাহে দু’দিন গরু, মহিষ, ছাগল সহ অন্যান্য পশুর বিরাট সমাবেশ। প্রতি বছর হাট-বাজার ইজারা থেকে প্রায় দেড় কোটি টাকা পেয়ে থাকেন সরকার। এছাড়াও সপ্তাহের ৫দিবসে বাঁশ ও রসুনের জম জমাট বেঁচা কেনা । ইজারাদারগণ সাপ্তাহিক বাজার থেকেই  লক্ষাধিক টাকা আয় করে থাকেন।

হাটের সরকারী জমির পরিমাণ প্রায় সাড়ে ৩-একরের বেশি। এব বাইরেও খাস খতিয়ান ভূক্ত জমি রয়েছে। হাট চত্ত¡রে অবস্থানরত ভূমি দশ্যুরা হাট চান্দিনার জমি দীর্ঘদিন ধরে নিজ দখলে নিয়ে অবৈধ স্থাপনায় হাটের জায়গার সংকুলান সৃষ্টি করেছে। আসছে ইদুল আযহার পশু হাটের চাহিদা মাফিক জায়গা নেই। হাট ইজারদাররা কোরবানির ঈদের আগাম হাটের পার্শ্বে অন্যের জমি ভাড়া বা চুক্তিতে নিয়ে পশু হাট, ধান, পাট সহ বিভিন্ন পণ্যের বেঁচাকেনায় প্রতিবছর চরম হয়রাণী মধ্যে খেসারত দিয়ে আসছেন। অপরদিকে, সরকারী ভাবে লক্ষ লক্ষ টাকা ব্যয় করে মাছ ও মাংসের সেট নির্মাণ করা হলেও মাছ ও মাংস বিক্রি হয় হাট চান্দিনার চলাচল রাস্তায়। হাটের নির্মিত সেটগুলো অনেকেই ব্যক্তি মালিকানায় ব্যবহার করে আসছে বে-আইনীভাবে। চলতি বর্ষা মৌসুমে হাট বাজারে স্বল্প পরিসরের জায়গায় ক্রেতা-বিক্রেতা ও সাধারণ মানুষের চলাচলে সীমাহীন কষ্ট পোহাতে হয় দীর্ঘদিন ধরে। হাটে জন শৌচাগার ও টিউবয়েল নেই বললেই চলে। বর্তমানে হাটে জায়গা-জমিতে কাঁদা পানিতে সয়লাব অবস্থা। সাধারণ মানুষের কথা, হাট উন্নয়নের লক্ষ্য লক্ষ্য টাকা যায় কোথায়? এ ব্যাপারে একাধিক অভিযোগ রয়েছে বলে জানাগেছে। এবং হাটের খাস জমি গোপনে লিজ নিয়ে কেউ আবার জমির মালিক হয়েছে। স্থানীয় প্রশাসন সহ উপজেলা প্রশাসন ভালভাবেই জানেন যে, রাণীরবন্দর হাট বাজারের জায়গার অভাব। এ ব্যাপারে অভিজ্ঞ মহলের কথা, হাট-বাজারের ক্রেতা-বিক্রেতার দৈনদর্শায় হাটে মাটি ভরাট, হটের সীমানা নির্ধারনে হাটের সরকারী জায়গার পরিমাপ বাহির করলেই দোকানদার ও ক্রেতা-বিক্রেতাদের দুর্ভোগের অবসান সহ রাজস্ব আয় দ্বিগুণ বাড়বে। এছাড়াও হাটের পার্শ্বে অন্যের জায়গা জমি ক্রয় করতে এক বছরের ইজারার টাকাই যথেষ্ট। এলাকাবাসী সরকারী হাট বাজারের জমি অধিগ্রহন করতে উর্দ্ধত্তন কর্তৃপক্ষের নেক দৃষ্টি আকর্ষণ করেছেন।



আমার বার্তা/৩১ জুলাই ২০১৯/জহির



 


আরো পড়ুন