শিরোনাম :

  • মধ্যরাত পর্যন্ত রুদ্ধদ্বার বৈঠক, শর্ত জুড়ে দিয়ে ধর্মঘট প্রত্যাহার আজ সশস্ত্রবাহিনী দিবস ওয়াটারফ্রন্ট স্মার্টসিটি হবে কেরানীগঞ্জে ছোট ভাই প্রেসিডেন্ট, বড় ভাই এবার প্রধানমন্ত্রী ৭ তলার জানালা দিয়ে উড়ে আসছে লাখ লাখ টাকা, কুড়োতে হুড়োহুড়ি
দিনদুপুরে বাড়ি থেকে ডেকে নিয়ে যুবককে হত্যা
নরসিংদী প্রতিনিধি :
১১ সেপ্টেম্বর, ২০১৯ ১৪:৩৪:২০
প্রিন্টঅ-অ+


নরসিংদীতে দিনদুপুরে বাড়ি থেকে ডেকে নিয়ে রুহুল আমিন (২২) নামে এক যুবককে কুপিয়ে হত্যা করেছে সন্ত্রাসীরা। বুধবার বেলা সাড়ে ১১টার দিকে সদর উপজেলার সঙ্গীতা জবা মিল এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।

নিহত রুহুল আমিন সদর উপজেলার সঙ্গীতা এলাকার বিল্লাল মিয়ার ছেলে। তিনি রঙের ব্যাবসা করতেন।

নিহতের পারিবারিক সূত্রে জানা যায়, সঙ্গীতা এলাকায় ডিস ব্যবসা করে আসছিল স্থানীয় সারোয়ার হোসেনের ছেলে তানজিল ও ছোটন। সম্প্রতি রুহুল আমিন তার নিজ এলাকায় ডিস ব্যবসা করতে চেয়েছিলেন। সেই অনুযায়ী রুহুল চার শতাধিক ডিস লাইন দেয়ার কথা জানিয়েছিল তানজিলকে। এ নিয়ে তাদের মধ্যে দ্বন্দ্ব তৈরি হয়। এরই জের ধরে বুধবার বেলা ১১টার দিকে তানজিল হৃদয়, ছোটন ও মনির রুহুলকে বাড়ি থেকে ডেকে নিয়ে যায়। পরে জবা টেক্সটাইল মিল সংলগ্ন একটি মাঠে নিয়ে কোনো কিছু বুঝে ওঠার আগেই তারা রুহুলকে ধারালো অস্ত্র দিয়ে এলোপাতাড়ি কোপাতে থাকে। তার আর্তচিৎকারে আশপাশের লোকজন এগিয়ে এলে তারা পালিয়ে যায়। পরে তাকে উদ্ধার করে জেলা হাসপাতালে নেয়া হলে সেখানে কর্তব্যরত চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন।

নিহতের ভাবি সাথী বলেন, রুহুল বাড়িতেই ছিল। তারা তাকে বাড়ি থেকে ডেকে নিয়ে যায়। একটু পর তার মৃত্যুর খবর পাই।

নিহতের ভাই শরিফুল বলেন, ছোটনের সঙ্গে রুহুলের পার্টনারে ব্যবসা ছিল। কিন্তু ছোটন রুহুলকে কোনো লাভ দিতো না। এ নিয়ে তাদের মধ্যে কথা কাটাকাটি হয়। এর জের ধরে তানজিল হৃদয়, ছোটন ও মনির রুহুলকে বাড়ি থেকে ডেকে নিয়ে হত্যা করেছে। আমি খুনিদের বিচার চাই।

নরসিংদী সদর মডেল থানা পুলিশের ওসি (তদন্ত) সালাউদ্দিন বলেন, রুহুল ডিস ব্যবসায় পার্টনার হতে চেয়েছিলেন। এনিয়ে তাদের মধ্যে দ্বন্দ্ব তৈরি হয়। এরই জেরে তাকে হত্যা করা হয়েছে বলে প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে।



আমার বার্তা/১১ সেপ্টেম্বর ২০১৯/রহিমা


আরো পড়ুন