শিরোনাম :

  • আজ শুরু হচ্ছে মহাকালের ‘বাংলা নাট্যোৎসব’ সোনাদিয়ায় শিল্পকারখানা স্থাপন না করার নির্দেশ প্রধানমন্ত্রীর বিক্রিই হলেন না সাকিব-গেইল-মালিঙ্গারা রাজধানীতে আনসার আল ইসলামের চার সদস্য গ্রেফতার কালিদাস কর্মকারের মরদেহে শ্রদ্ধা চারুকলায়
১২ চিকিৎসক দিয়ে চলছে ১০ লক্ষাধিক মানুষের চিকিৎসা
রাজবাড়ী প্রতিনিধি :
২১ সেপ্টেম্বর, ২০১৯ ১১:২৮:১৬
প্রিন্টঅ-অ+


১০ লক্ষাধিক মানুষের চিকিৎসার একমাত্র ভরসাস্থল রাজবাড়ী সদর হাসপাতাল। বর্তমানে হাসপাতালটিতে চিকিৎসক সংকট প্রকট আকার ধারণ করেছে। ৪২ জন চিকিৎসকের বিপরীতে হাসপাতালটিতে মাত্র ১২ জন চিকিৎসক রয়েছে। এতে প্রকৃত চিকিৎসাসেবা থেকে বঞ্চিত হচ্ছেন স্থানীয়রা। দীর্ঘদিন হাসপাতালে ভর্তি থেকেও রোগীরা কাঙ্ক্ষিত সেবা পাচ্ছেন না। আর্থিকভাবে যারা স্বচ্ছল তারা চিকিৎসক না পেয়ে রোগী নিয়ে অনত্র গেলেও গরিব-অসহায় রোগীরা চিকিৎসক না পেয়ে পড়ছেন চরম বিপাকে।

প্রতিদিন হাসপাতালটিতে গড়ে ৮০০ থেকে প্রায় এক হাজার ২০০ রোগী বহির্বিভাগে চিকিৎসার জন্য আসেন। হাসপাতালে ভর্তি থাকে প্রায় দেড় শতাধিক রোগী। এতে রীতিমতো রোগীদের সেবা দিতে হিমশিম খেতে হচ্ছে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষকে। চিকিৎসক সংকটের কারণে জরুরি বিভাগ ও ময়নাতদন্ত কার্যক্রম চালানো হচ্ছে উপজেলা থেকে ধার করা চিকিৎসক দিয়ে।

সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে, রাজবাড়ী সদর হাসপাতালটি ১৯৭০ সালে ৫০ শয্যা নিয়ে যাত্রা শুরু করে। ২০০৩ সালে হাসপাতালটি ৫০ থেকে ১০০ শয্যায় উন্নীত করা হয়। জনবল কাঠামো অনুমোদিত হয় ২০১৭ সালে। ১০০ শয্যার হাসপাতালে সরকারি নীতিমালা অনুযায়ী চিকিৎসক প্রয়োজন ৪২ জন। কিন্তু হাসপাতালে কর্মরত আছেন মাত্র ১২ জন চিকিৎসক। তবে রোগীর খাবার অনুমোদন দেয়া আছে। এছাড়া হাসপাতালে প্রায় ৪৬ রকমের ট্যাবলেট, ১৪ প্রকারের ক্যাপসুল, ৪৪ ধরনের ইনজেকশন ও ১৬ প্রকারের সিরাপ দেয়া হয়। হাসপাতালে জনবল সংকট থাকলেও ১০০ শয্যার অনুপাতে ওষুধের বরাদ্দ আসে। সর্বশেষ ২০১৮ সালে ১০০ শয্যা থেকে ২৫০ শয্যায় উন্নীত করা হয়। যার ভবন নির্মাণের কাজ চলমান রয়েছে।

হাসপাতাল সূত্রে জানা গেছে, ১০০ শয্যার হাসপাতাল হিসেবে বর্তমানে হাসপাতলে চিকিৎসকের ৪২টি পদ রয়েছে। যার মধ্যে ৩০টি পদই শূন্য। কনসালটেন্ট ২৩ জনের বিপরীতে ৮ জন এবং ১৯ জন মেডিকেল অফিসারের বিপরীতে রয়েছে চারজন। নার্সের (ব্রাদার) দুটি এবং তৃতীয় ও চতুর্থ শ্রেণির ২৬টি পদ খালি রয়েছে।

রোগীর স্বজনরা বলেন, সদর হাসপাতালে চিকিৎসা নিতে এসে ডাক্তার না পেয়ে রোগীদের নিয়ে সমস্যায় পড়তে হয়। দীর্ঘদিন হাসপাতালে থেকেও কোনো লাভ হচ্ছে না। ডাক্তার না পেয়ে আর্থিক অনেকেই তাদের রোগী ফরিদপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালসহ অনত্র নিয়ে যাচ্ছেন। এছাড়া রোগীর তুলনায় বেডের সংখ্যাও কম। ডাক্তার সংকট থাকায় সঠিক চিকিৎসা রোগীরা পাচ্ছেন না। চিকিৎসার মান উন্নয়নে হাসপাতালের সকল বিভাগে ডাক্তার নিয়োগের জন্য তারা কর্তৃপক্ষের দৃষ্টি আকর্ষণ করেন।

রোগীরা জানান, কেউ কেউ বেশ কয়েকদিন ধরে ওয়ার্ডে ভর্তি রয়েছেন। শুক্রবার ও শনিবার ছাড়া প্রতিদিন একবার ডাক্তার তাদের দেখতে আসেন। এসে একটু কথা শুনে ওষুধ লিখে দিয়ে চলে যান। দিনে একাধিকবার ডাক্তার ওয়ার্ডগুলোতে আসলে তাদের রোগের কথা শুনে পরামর্শ দিলে তারা তাড়াতাড়ি সুস্থ্য হয়ে উঠতেন। গরিব অসহায় বলেই তারা সরকারি হাসপাতালে চিকিৎসা নিতে এসেছেন।

রাজবাড়ী সদর হাসপাতালের তত্ত্বাবধায়ক দীপক কুমার বিশ্বাস বলেন, জনবল সংকটে খুব সমস্যায় আছি। বিশেষ করে চিকিৎসক সংকটে বেশি সমস্যা দেখা দিচ্ছে। হাসপাতালে কনসালটেন্ট ও মেডিকেল অফিসারসহ মোট ৪২টি পদ রয়েছে। এর মধ্যে ৩০টি পদ শূন্য রয়েছে।

তিনি আরও বলেন, বর্তমানে ইনডোর-আউটডোরে রোগীর চাপ অনেক বেশি। মেডিকেল অফিসার না থাকায় রোগীর চাপ সামলাতে প্রতিদিন হিমশিম খেতে হচ্ছে। জনবল সংকট নিয়েই জেলাবাসীকে সাধ্যমত চিকিৎসা সেবা দেবার চেষ্টা কররছি।



আমার বার্তা/২১ সেপ্টেম্বর ২০১৯/রহিমা


আরো পড়ুন